Advertisement
০২ মার্চ ২০২৪
Kolkata Metro

উত্তর-দক্ষিণ মেট্রোয় চালক ভুল করলেও উল্টো দিকে খুলবে না দরজা 

এ বার অবশ্য চালকের মনঃসংযোগে খামতির কারণে ভুল দিকের দরজা খোলার আশঙ্কা বন্ধ করতে বিশেষ ভাবে উদ্যোগী হচ্ছেন কর্তৃপক্ষ। চালক ভুল সুইচ টিপলেও মেট্রোর দরজা ভুল দিকে খোলার মতো ঘটনা ঘটবে না।

An image of Metro

—প্রতিনিধিত্বমূলক ছবি।

ফিরোজ ইসলাম 
কলকাতা শেষ আপডেট: ২০ অগস্ট ২০২৩ ০৬:১৪
Share: Save:

অফিসের ব্যস্ত সময়ে দমদম স্টেশনের প্ল্যাটফর্মে মেট্রো থামার পরে ট্রেনের বাঁ দিকের দরজা খোলায় হুড়মুড়িয়ে যাত্রীরা উঠলেন কামরায়। পরের স্টেশন বেলগাছিয়ায় প্ল্যাটফর্ম ডান দিকে। কিন্তু ট্রেন থামার পরে চালক ডান দিকের দরজা খোলার পরিবর্তে বাঁ দিকের দরজা খোলার সুইচ টিপে বসলেন। ভুল বুঝতে পেরে আবার তা শুধরে নিলেও ক্ষণিকের জন্য খোলা রইল বাঁ দিকের দরজা। উত্তর-দক্ষিণ মেট্রোয় এমন ঘটনা বেশ কয়েক বার ঘটেছে। এর জেরে বড় কোনও বিপদ না ঘটলেও সেই আশঙ্কা উড়িয়ে দেওয়া যায় না বলেই মেট্রো সূত্রের খবর। এ বার অবশ্য চালকের মনঃসংযোগে খামতির কারণে ভুল দিকের দরজা খোলার আশঙ্কা বন্ধ করতে বিশেষ ভাবে উদ্যোগী হচ্ছেন কর্তৃপক্ষ। চালক কোনও কারণে ভুল সুইচ টিপলেও মেট্রোর দরজা ভুল দিকে খোলার মতো ঘটনা ঘটবে না।

এর জন্য প্যাসেঞ্জার ইনফরমেশন সিস্টেম এবং ট্রেন কন্ট্রোল ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম— রেকের এই দু’টি বিশেষ ব্যবস্থার মধ্যে সমন্বয় গড়ে তোলা হচ্ছে বলে মেট্রো সূত্রের খবর। ইতিমধ্যেই গত ১৬ অগস্ট মেট্রোর জেনারেল ম্যানেজার পি উদয়কুমার রেড্ডির উপস্থিতিতে মেধা সিরিজের ৪১৬ নম্বর রেকে এই ব্যবস্থার সফল পরীক্ষা হয়েছে। মাস দুয়েকের মধ্যে প্রথম ধাপে উত্তর-দক্ষিণ মেট্রোয় ইন্টিগ্রাল কোচ ফ্যাক্টরির ১৬টি ‘থ্রি ফেজ়’ মেধা রেকে এমন ব্যবস্থা চালু করা হবে। তার পরে ১৩টি পুরনো এসি রেকে ওই ব্যবস্থা মাস ছয়েকের মধ্যে চালু হবে বলে জানিয়েছেন মেট্রো রেলের মুখ্য জনসংযোগ আধিকারিক কৌশিক মিত্র।

উত্তর-দক্ষিণ মেট্রোয় পার্ক স্ট্রিট ছাড়া সব ক’টি ভূগর্ভস্থ স্টেশনে আইল্যান্ড প্ল্যাটফর্ম রয়েছে। সে ক্ষেত্রে প্ল্যাটফর্মের দু’পাশে ট্রেনের লাইন থাকে। যাত্রীরা ট্রেনের ডান দিক দিয়ে ওঠানামা করেন। মাটির উপরে থাকা সব স্টেশনের পাশে প্ল্যাটফর্ম থাকায় সেখানে যাত্রীরা ট্রেনের বাঁ দিক দিয়ে ওঠানামা করেন।

মেট্রোয় ট্রেনের চাকা ঘোরার ফলে যতটা দূরত্ব অতিক্রান্ত হয়, তা স্বয়ংক্রিয় ভাবে হিসাব করে যাত্রীদের স্টেশনের নাম ও অবস্থান জানাতে থাকে প্যাসেঞ্জার ইনফরমেশন সিস্টেম। অন্য দিকে, ট্রেন নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থার নির্দিষ্ট ‘রিলে’ ট্রেন না-থামা পর্যন্ত দরজা খোলার অনুমতি দেয় না। আগে দুই ব্যবস্থার সমন্বয় না থাকায় চালক দরজা খুলতেন। কোনও কারণে মাঝপথে ট্রেন থামলে চালকের ভুলে দরজা খুলে যাওয়ার আশঙ্কাও থাকত।

নতুন ব্যবস্থায় প্যাসেঞ্জার ইনফরমেশন সিস্টেমে আগে থেকেই স্টেশন ও প্ল্যাটফর্মের অবস্থান সম্পর্কে তথ্য থাকায় তা মিলিয়ে দরজা খোলার বিষয়টি নির্ধারণ করবে ট্রেন কন্ট্রোল ম্যানেজমেন্ট। চালক ভুল করলেও ওই ব্যবস্থা তথ্য মিলিয়ে দরজা খোলার অনুমতি দেবে না। এতে যাত্রী-নিরাপত্তা অনেকটা বাড়বে বলে দাবি কর্তৃপক্ষের। ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রোয় এই সমন্বয় প্রথম থেকেই আছে।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement

Share this article

CLOSE