×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

২৫ জুন ২০২১ ই-পেপার

নবজাতকের আধার কার্ড মেডিক্যালেই

নিজস্ব সংবাদদাতা
মেদিনীপুর ০৮ ডিসেম্বর ২০১৭ ০২:০২
প্রতীকী ছবি।

প্রতীকী ছবি।

সদ্যোজাতের আধার কার্ড তৈরির জন্য ঝাড়গ্রাম জেলা হাসপাতালে বিশেষ কেন্দ্র তৈরি হয়েছে আগেই। এ বার সদ্যোজাতের আধার তৈরির জন্য মেদিনীপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল চত্বরেও তৈরি করা হবে কেন্দ্র। এই কেন্দ্রেই আধার কার্ড তৈরির কাজ হবে। এ জন্য প্রাথমিক ভাবে একটি জায়গাও চিহ্নিত করা হয়েছে। যত দ্রুত সম্ভব এই আধার কার্ড কেন্দ্র চালুর চেষ্টা চলছে বলে হাসপাতালের এক সূত্রে খবর।

মেদিনীপুর মেডিক্যালের সুপার তন্ময়কান্তি পাঁজা বলেন, “সদ্যোজাতের আধার কার্ড এ বার হাসপাতালেই মিলবে। আধার কার্ডের কেন্দ্র তৈরির জন্য হাসপাতাল চত্বরে একটি জায়গা চিহ্নিত হয়েছে। আশা করি, দ্রুত পরিষেবা দেওয়া সম্ভব হবে।” কেন্দ্রটি পরিচালনার দায়িত্বে থাকবে এক সংস্থা। সুপারের কথায়, “ওই সংস্থার কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথাও হয়েছে। কর্মকর্তারা হাসপাতালে এসে ওই জায়গা দেখে গিয়েছেন।”

গ্যাস সিলিন্ডারে ভর্তুকি পাওয়া থেকে নতুন ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট খোলার মতো গুরুত্বপূর্ণ কাজে বর্তমানে আধার কার্ড অতি প্রয়োজনীয়। পড়ুয়াদের বৃত্তি পাওয়ার ক্ষেত্রেও প্রয়োজন আধার কার্ডের। যদিও এই কার্ড তৈরি করাতে গিয়ে প্রায়ই ভোগান্তির শিকার হন অনেকে। দীর্ঘক্ষণ লাইনে দাঁড়িয়ে আধার কার্ডের জন্য প্রয়োজনীয় তথ্য নথিভুক্ত করার কাজে সবচেয়ে সমস্যায় পড়েন কমবয়সী ও বয়স্করা। আধার কার্ড তৈরির সমস্যা মেটাতেই হাসপাতালে কেন্দ্র তৈরির উদ্যোগ বলে হাসপাতাল সূত্রে খবর।

Advertisement

হাসপাতালের এক সূত্রে খবর, রাজ্য প্রশাসনের পক্ষ থেকেই হাসপাতালে সদ্যোজাতের আধার কার্ড তৈরি করে দেওয়ার নির্দেশ জারি হয়েছে। কোনও সংস্থা কেন্দ্র পরিচালনার দায়িত্বে থাকবে তাও ঠিক করে দেওয়া হয়। রাজ্যে প্রথম ঝাড়গ্রামেই এই পরিষেবা চালু হয়। এ বার মেদিনীপুর মেডিক্যালে এই কেন্দ্র তৈরি হবে। জেলা প্রশাসনের এক সূত্র মনে করিয়ে দিচ্ছে, এ রাজ্যেও পাঁচ বছরের ঊর্ধ্বে সব নাগরিকের বায়োমেট্রিক তথ্যসংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা নিয়েছে জাতীয় জনগণনা দফতর। সেই লক্ষ্যেই বিভিন্ন এলাকায় শিবিরও হয়েছে। নাগরিকদের বায়োমেট্রিক তথ্যসংগ্রহ করা হয়েছে।

হাসপাতাল সূত্রে খবর, সদ্যোজাতের আধার নথিভুক্তিকরণের এই পরিষেবা মিলবে সম্পূর্ণ বিনামূল্যে। এই কেন্দ্রে সদ্যোজাত থেকে পাঁচ বছর বয়সী শিশুদের আধার কার্ডের জন্য নাম নথিভুক্ত করা যাবে। এ জন্য সদ্যোজাত শিশুর জন্মের শংসাপত্র এবং বাবা-মায়ের আধার কার্ডের প্রতিলিপি ও মোবাইল নম্বর প্রয়োজন। এই পরিষেবা চালু হলে হাসপাতালে প্রসব হওয়া সমস্ত সদ্যোজাতের সচিত্র আধার কার্ড হবে। তথ্য জমা দেওয়ার কিছু দিন পরে অভিভাবকদের ঠিকানায় শিশুর আধার কার্ড পৌঁছে যাবে। তবে শিশুর বয়স পাঁচ বছর হওয়ার পরে নিকটবর্তী আধার কেন্দ্রে গিয়ে বায়োমেট্রিক তথ্য আপডেট করাতে হবে। কারণ, হাসপাতালের কেন্দ্রে তৈরি কার্ডে বায়োমেট্রিক তথ্য (চোখের মণির স্ক্যান ও আঙুলের ছাপ) থাকবে না। শিশুর বয়স পাঁচ বছর হলে তা আপডেট করিয়ে নিতে হবে। হাসপাতালের এক আধিকারিকের কথায়, “সরকারি হাসপাতালের বাইরেও যে সব শিশুর জন্ম হয়েছে, উপযুক্ত নথিপত্র জমা দিলে এখান থেকে তাদেরও আধার কার্ড করানো যেতে পারে। এই পরিষেবা দেওয়ার চেষ্টাও চলছে।”

Advertisement