Advertisement
২২ জুলাই ২০২৪
West Midnapore Road Accident

কলকাতা থেকে চিকিৎসা করিয়ে ফেরার পথে দুর্ঘটনা, পশ্চিম মেদিনীপুরে মৃত্যু বৃদ্ধার, আহত ১০ জন

ঘটনার খবর পেয়ে দুর্ঘটনাস্থলে পৌঁছয় বেলদা থানার পুলিশ এবং জাতীয় সড়ক কর্তৃপক্ষের আধিকারিকেরা। আহতদের উদ্ধার করে নিয়ে যাওয়া হয় বেলদা সুপার স্পেশ্যালিটি হাসপাতালে।

দুর্ঘটনাগ্রস্ত সেই অটো।

দুর্ঘটনাগ্রস্ত সেই অটো। —নিজস্ব চিত্র।

আনন্দবাজার অনলাইন সংবাদদাতা
বেলদা শেষ আপডেট: ২৫ জুন ২০২৪ ১৩:৪৩
Share: Save:

কলকাতা থেকে চিকিৎসা করিয়ে ফেরার পথে দুর্ঘটনা। পশ্চিম মেদিনীপুরের বেলদায় মৃত্যু হল এক বৃদ্ধার। দুর্ঘটনাগ্রস্ত অটোয় থাকা যাত্রীদের মধ্যে আহত হয়েছেন ১০ জন। প্রত্যেকেই চিকিৎসা করিয়ে ফিরছিলেন। মঙ্গলবার ভোরে দুর্ঘটনাটি বেলদা থানার বাখরাবাদের কালিবাগিচা এলাকায়। কী কারণে দুর্ঘটনা, তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

সোমবার রাতে কলকাতায় ডাক্তার দেখিয়ে খড়্গপুর স্টেশনে নামেন বেলদা এলাকার ১৩ জন বাসিন্দা। স্টেশন থেকে একটি অটোয় চেপে বাড়ি ফিরছিলেন তাঁরা। বাখরাবাদের কালিবাগিচা এলাকায় একটি গাড়ি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে অটোটিতে গিয়ে ধাক্কা মারে। ধাক্কার অভিঘাতে অটোটি সামনে থাকা লরিতে গিয়ে ধাক্কা মারে। দুর্ঘটনায় কমবেশি আহত হন অটোতে থাকা প্রত্যেকেই। ঘটনার খবর পেয়ে দুর্ঘটনাস্থলে পৌঁছয় বেলদা থানার পুলিশ এবং জাতীয় সড়ক কর্তৃপক্ষের আধিকারিকেরা। আহতদের উদ্ধার করে নিয়ে যাওয়া হয় বেলদা সুপার স্পেশ্যালিটি হাসপাতালে। সেখানেই ওই বৃদ্ধাকে মৃত বলে ঘোষণা করা হয়। পুলিশ জানিয়েছে, মৃত বৃদ্ধার নাম গীতা সামন্ত (৬৭)। তাঁর বাড়ি দাঁতন-২ ব্লকের পলাশি গ্রামে।

মৃতার ছেলে গণেশ সামন্ত বলেন, “শনিবার মা কলকাতায় হোমিওপ্যাথি চিকিৎসার জন্য গিয়েছিল। রাতে খড়্গপুর স্টেশনে নামে। তাকে বলা হয় রাতে স্টেশনে থেকে সকালে বাড়ি ফিরতে। ভোরে খবর পাই দুর্ঘটনা মায়ের চোট লেগেছে। বেলদা হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়েছে। সেখানে গিয়ে জানতে পারি মা আর বেঁচে নেই।” আহতদের মধ্যে কয়েক জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। তাঁদের মেদিনীপুর মেডিক্যাল কলেজ এবং হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়েছে।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)

অন্য বিষয়গুলি:

Belda auto National Highway Death
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement

Share this article

CLOSE