×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

২৩ জানুয়ারি ২০২১ ই-পেপার

বিধি মেনে বাঁদনা পরব 

নিজস্ব সংবাদদাতা
গোয়ালতোড়১৪ নভেম্বর ২০২০ ০১:৩৯
প্রতীকী ছবি।

প্রতীকী ছবি।

বাঁদনা পরবেও করোনা বিধির বিধান। গোয়ালতোড়ের কুড়মি, আদিবাসী মহল্লা গুলিতে বাঁদনা পরবের প্রস্তুতি শুরু হয়ে গিয়েছে। গড়বেতা ২ (গোয়ালতোড়) ব্লক প্রশাসনের পক্ষ থেকে পরবের উদ্যোক্তাদের জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, করোনা বিধি মেনে সবকিছু আয়োজন করতে হবে। স্থানীয় পঞ্চায়েত ও জন প্রতিনিধিদের তরফ থেকেও পরবে শামিল প্রত্যেককেই মাস্ক পড়ে, স্যানিটাইজ়ার নিয়ে, দূরত্ব বিধি মেনে চলতে বলা  হয়েছে। উদ্যোক্তারা জানিয়েছেন, বাঁদনা পরবেও করোনা বিধি মানা হবে। 

কার্তিক মাস পড়লেই বাঁদনার প্রস্তুতি শুরু হয়ে যায় গোয়ালতোড়ের কুড়মি ও আদিবাসী জনগোষ্ঠীভুক্ত এলাকাগুলিতে। প্রাকৃতিক রং দিয়ে ঘর সাজানো, আলপনা আঁকা, চৌহদ্দি পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন করা-সহ পরবের কাজে ব্যস্ত হয়ে পড়তেন বহু পরিবার। এবার করোনা পরিস্থিতিতে সেই প্রস্তুতিতে ভাটা পড়েছিল। এখন অবশ্য জোরকদমেই চলছে শেষপর্যায়ের প্রস্তুতি। জিরাপাড়ার উজ্জ্বল মাহাতো, পিংবনির চিন্ময় মাহাতো সহ অনেকেই বললেন, ‘‘করোনার জন্য এবার বাঁদনাও হবে বিধি মেনে। প্রশাসন থেকে মনে করিয়ে দেওয়া হয়েছে বিধির কথা। তাই এবার প্রস্তুতি দেরি করেই শুরু হয়েছে।’’ প্রথা মতো কার্তিকী অমাবস্যার তিনদিন আগের থেকেই পরব শুরু হয়ে যায়। চলে অমাবস্যার পর আরও কয়েকদিন। পঞ্জিকা মতে শনিবার সেই অমাবস্যা। গোয়ালতোড়ের পিংবনি, জিরাপাড়া, গোহালডাঙা, পাথরপাড়া, মাকলি, আমলাশুলি প্রভৃতি অঞ্চলে কুড়মি ও আদিবাসী সম্প্রাদায়ভুক্ত পরিবারগুলিতে শুরু হয়ে গিয়েছে বাঁদনা পরবের প্রাথমিক কাজকর্ম। গোয়ালতোড়ের একটি হাইস্কুলের আদিবাসী  কুড়মি সম্প্রদায়ের শিক্ষক বিপ্লব মাহাতো বলেন, ‘‘আমরা বংশানুক্রমে এই পরব করছি, করোনার জন্য পরবের উদ্দীপনায় কিছুটা ভাটা পড়লেও, প্রথা মানার ক্ষেত্রে কোনও খামতি রাখা হচ্ছে না।’’  

মূলত আমন ধান পাকার আগে চাষের কাজে সহযোগিতা করার জন্য গরু, গাভীদের বন্দনা করা এই পরবে হয় নানা সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানও। এবার করোনা কালের বাঁদনা পরবে সেইসব অনুষ্ঠানও হচ্ছে ছোট করে। যেমন পিংবনির পাটাশোলে বাঁদনা পরবে গরু ও কাড়া (মহিষ) খুটানো প্রতিযোগিতার আয়োজন করেছে কুড়মি সেনা নামে একটি সংগঠন। যাতে প্রথম পুরস্কার দেওয়া হবে ২ কুইন্টাল খোল। এবার দূরত্ব বিধি বজায় রেখে এই প্রতিযোগিতা করতে এখন থেকেই প্রচার শুরু করে দিয়েছেন উদ্যোক্তারা। আবার ওই কুড়মি সেনার উদ্যোগেই জিরাপাড়ার ছোট নাকদনা গ্রামে বাঁদনা বা অহিরা গীত প্রতিযোগিতার আসর বসানো হচ্ছে। এখানেও করোনা বিধি মেনে চলা হবে বলে আয়োজকরা জানিয়েছেন। 

Advertisement

গোয়ালতোড়ের বিডিও সোফিয়া আব্বাস বলেন, ‘‘অন্য উৎসবের মতো বাঁদনা পরবেও প্রত্যেককে করোনা বিধি মেনে উৎসবে যোগ দিতে বলা হয়েছে।’’    

Advertisement