×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

০৭ মার্চ ২০২১ ই-পেপার

জেলবন্দি আনিসুরের ফেসবুক পোস্ট ঘিরে বিতর্ক

নিজস্ব সংবাদদাতা
পাঁশকুড়া ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০ ০০:০২
ফেসবুকে এই পোস্ট ঘিরেই বিতর্ক। নিজস্ব চিত্র

ফেসবুকে এই পোস্ট ঘিরেই বিতর্ক। নিজস্ব চিত্র

তৃণমূল নেতা খুনের অভিযোগে আপাতত তিনি রয়েছেন জেলে। সেই তিনিই ‘সক্রিয়’ সমাজ মাধ্যমে!

পাঁশকুড়ার নেতা কুরবান শা-কে খুনের অভিযোগে মেদিনীপুর জেলে বন্দি রয়েছেন বিজেপি নেতা আনিসুর রহমান। শনিবার সকালে হঠাৎ তাঁর ফেসবুক অ্যাকাউন্টে একটি পুরনো পোস্ট রিপোস্ট করা হয়েছে। তাতে দেখা গিয়েছে, নন্দীগ্রামের জমি আন্দোলন পর্বে তৎকালীন বিরোধী নেত্রী তথা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে মোটরবাইকে চাপিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন আনিসুর। ছ’বছর আগের ওই পুরনো পোস্ট শেয়ার করে সঙ্গে স্টিভ জোবসের একটি মন্তব্য ক্যাপশন করা হয়েছে। তার নীচে ইংরেজিতে লেখা, ‘মাত্র ছ’বছর আগে। সময় এবং জীবন চলছে’। উল্লেখ্য, তৃণমূল ছেড়েই কয়েক বছর আগে বিজেপিতে এসেছেন আনিসুর।

ফেসবুকে পোস্টটি দেখার পরেই শুরু হয়েছে নানা জল্পনা। পোস্টটি কি আদৌ নিজে করেছেন জেলবন্দি আনিসুর! না কি তাঁর অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করে অন্য কেউ ওই পোস্টটি করেছেন! প্রশ্ন ঘুরছে। আনিসুরের পরিবার অবশ্য দাবি করেছে পোস্টটি তারা করেনি। আনিসুরের ভাই আশিকুর রহমান বলেন, ‘‘বিষয়টি আমাদেরও নজরে এসেছে। তবে আনিসুরের ফেসবুক আমরা ব্যবহার করি না। অন্য কেউ সেটির মিসউইজ করছেন কি না, জানা নেই।’’

Advertisement

পোস্টে লাইক, কমেন্টের পাশাপাশি আনিসুরের ছাড়া পাওয়ার সম্ভাবনাও দেখছেন কেউ কেউ। কমেন্টে কয়েকজন প্রশ্ন করেছেন, কবে আনিসুর জেল থেকে ছাড়া পাচ্ছেন। কেউ কেউ আনিসুরকে নিয়ে জনসভা করার কথা লিখেছেন। মমতার সঙ্গে পুরনো ছবি দেখে কয়েকজন অনুগামী আবার তাঁকে তৃণমূলে ফিরে যাওয়ার পরামর্শও দিয়েছেন।

পোস্ট কে করল, সেই প্রশ্ন তুলেছেন নিহত তৃণমূল নেতা কুরবানের দাদা আফজল। তিনি বলেন, ‘‘একজন জেলবন্দি কী ভাবে ফেসবুক করতে পারেন? যদি জেলের ভিতরে তিনি মোবাইল ব্যবহারের সুযোগ পান, তাহলে তো তিনি সেখানে বসে আরও কোনও নাশকতার ছক করতে পারেন। পুলিশকে বলেছি বিষয়টি তদন্ত করে দেখতে। এ নিয়ে ই-মেলে মেদিনীপুর কোতোয়ালি থানায় অভিযোগও করেছি।’’ কুরবান হত্যার তদন্তকারী অফিসার অজয় মিশ্র বলেন, ‘‘পোস্টটি আনিসুর করেছেন, না তাঁর কোনও পরিচিত করেছেন, তা তদন্ত করে দেখা হবে।’’ এ ব্যাপারে জানতে চেয়ে ফোন করা হয়েছিল মেদিনীপুরের জেলসুপার সুদীপ বসুকে। তবে তিনি ফোন ধরেননি।

রাজনৈতিক মহলের একাংশের অভিমত, পোস্টটি যে-ই করুন না কেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে আনিসুরের ছবিটি সচেতন ভাবেই পোস্ট করা হয়েছে। তাদের ব্যাখ্যা, পুরনো স্মৃতি উস্কে এটা তৃণমূলের মন পাওয়ার চেষ্টা মাত্র। যদিও আনিসুরের এই পোস্টকে গুরুত্ব দিতে নারাজ তৃণমূল। তৃণমূলের পাঁশকুড়া ব্লক সভাপতি দীপ্তি জানা বলেন, ‘‘খুনে অভিযুক্তের সম্পর্কে মন্তব্য করব না। দল ছেড়ে যিনি চলে গিয়েছেন, তাঁর কোনও অধিকারই নেই দলনেত্রীর ছবি পোস্ট করার।’’

Advertisement