Advertisement
০২ ফেব্রুয়ারি ২০২৩

নিষেধ না মেনে পরীক্ষার মধ্যেই ফের বাজল মাইক, অভিযোগ

প্রশাসন বার বার সতর্ক করলেও, মাধ্যমিক পরীক্ষার মধ্যে ভগবানপুর-২ ব্লকের মাধবপুরে এভাবেই গভীর রাতে মাইক বাজিয়ে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান করার অভিযোগ উঠল। মঙ্গলবার থেকে রাজ্যে মাধ্যমিক পরীক্ষা শুরু হয়েছে। স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, সোমবার মাধবপুরে স্থানীয় একটি ক্লাবের উদ্যোগে গ্রামীণ মেলা উপলক্ষে ‘বহিরাগত’ শিল্পীদের নিয়ে অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

নিজস্ব সংবাদদাতা
ভূপতিনগর শেষ আপডেট: ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ ০৪:৩৯
Share: Save:

শিক্ষকের কাছে পড়তে বসেছিল মাধ্যমিক পরীক্ষার্থী বুম্বা (নাম পরিবর্তিত)। কিন্তু তারস্বরে মাইক বাজতে থাকায় পড়া থামিয়ে ক্ষুব্ধ শিক্ষক ছাত্রকেই প্রশ্ন করলেন, ‘কাল মাধ্যমিক পরীক্ষা!’’ যা শুনে ছাত্র জানায়, স্যার আজ মেলায় অভিনেত্রী নুসরতের আসার কথা। আগের দিন প্রসেনজিৎ এসেছিল। তাই জোরে মাইক বাজছে।

Advertisement

প্রশাসন বার বার সতর্ক করলেও, মাধ্যমিক পরীক্ষার মধ্যে ভগবানপুর-২ ব্লকের মাধবপুরে এভাবেই গভীর রাতে মাইক বাজিয়ে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান করার অভিযোগ উঠল। মঙ্গলবার থেকে রাজ্যে মাধ্যমিক পরীক্ষা শুরু হয়েছে। স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, সোমবার মাধবপুরে স্থানীয় একটি ক্লাবের উদ্যোগে গ্রামীণ মেলা উপলক্ষে ‘বহিরাগত’ শিল্পীদের নিয়ে অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। সেই অনুষ্ঠানেই মঙ্গলবার, অনুষ্ঠানের শেষ দিন ছিল অভিনেত্রী নুসরত জাহানের অনুষ্ঠান। মঙ্গলবার ছিল মাধ্যমিকের বাংলা বিষয়ের পরীক্ষা। বুধবার ছিল ইংরাজী। পরীক্ষা চলাকালীন গভীর রাত পর্যন্ত তারস্বরে মাইক বাজিয়ে উদ্দাম নাচ গান হয়েছে বলে স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ। যার ফলে খুবই অসুবিধায় পড়তে হয়েছে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীদের।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, গত ৪ ফেব্রুয়ারি থেকে স্থানীয় একটি ক্লাবের উদ্যোগে এই মেলা শুরু হয়। পুলিশের দাবি, আয়োজক কর্তাদের বারবার সতর্ক করা হয়েছিল, কোনওভাবে মাইক বাজানো যাবে না। অভিযোগ, সেই সতর্কবার্তা না মেনেই গত কয়েক দিন ধরে নাগাড়ে চলে শব্দ দানবের উপদ্রব। থানায় অভিযোগ জানানো হল না কেন? বাসিন্দাদের একাংশের দাবি, ভূপতিনগর থানায় মৌখিক অভিযোগ জানানো সত্ত্বেও কিছুই হয়নি। এ ব্যাপারে স্থানীয় রাধাপুর পঞ্চায়েতের প্রধান সন্ধ্যা মাইতির দাবি, ‘‘অনুষ্ঠান চলাকালীন নিজে উপস্থিত ছিলাম। সাউন্ড বক্স না বাজলেও কম আওয়াজে মাইক বেজেছে।’’ বিডিও জয়দেব মণ্ডল বলেন, ‘‘বারবার সতর্ক করে হয়েছে যাতে পরীক্ষার মরসুমে কারও অসুবিধে না হয়। তা সত্ত্বেও এমন অভিযোগ উঠল কেন খোঁজ নিয়ে দেখছি।’ অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (গ্রামীণ) ইন্দ্রজিৎ বসু বলেন, ‘‘ অভিযোগ পেলে নিশ্চয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’’

আয়োজক সংস্থার কর্মকর্তা নবীনানন্দ দাসের প্রতিক্রিয়া জানার জন্য চেষ্টা করা হলে তাঁর মোবাইলে ফোন বারবার বেজে গেলেও, তিনি ফোন ধরেননি।

Advertisement
(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.