Advertisement
২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২
100 days work

100 Days work: একশো দিনের বকেয়ার প্রশ্ন কেন্দ্রীয় দলকেই

কেন্দ্রীয় দল যখন জেলায় এসে পিংলা পরিদর্শনে যায়, সেই সময়ে ঘটনাটি ঘটেছে বলে স্থানীয় পঞ্চায়েত সূত্রে খবর। ও

ফাইল চিত্র।

ফাইল চিত্র।

বরুণ দে
মেদিনীপুর শেষ আপডেট: ১১ অগস্ট ২০২২ ০৫:৪৫
Share: Save:

কেন্দ্রীয় দল এসেছিল একশো দিনের কাজ সহ একাধিক কেন্দ্রীয় প্রকল্পের পরিদর্শনে। পরিদর্শনে এসে দলটিকে শুনতে হয়েছে, প্রকল্পের এত যে টাকা বকেয়া হয়ে গিয়েছে, তার কী হবে! কবে কেন্দ্র বকেয়া টাকা মেটাবে! দলটিকে এ প্রশ্ন করেছেন পঞ্চায়েতের একাংশ জনপ্রতিনিধিই। ঘটনা পশ্চিম মেদিনীপুরের। কেন্দ্রীয় দল যখন জেলায় এসে পিংলা পরিদর্শনে যায়, সেই সময়ে ঘটনাটি ঘটেছে বলে স্থানীয় পঞ্চায়েত সূত্রে খবর। ওই প্রশ্নে খানিক অস্বস্তিতেও পড়তে হয়েছে কেন্দ্রীয় দলকে।

ব্লক প্রশাসনের এক আধিকারিক মানছেন, ‘‘কয়েক মাসের মজুরি বাকি রয়েছে, কাজ করেও মজুরি না পেয়ে অসন্তোষ দেখা দিচ্ছে শ্রমিকদের মধ্যে। কথা প্রসঙ্গে কেন্দ্রীয় দলকে পঞ্চায়েতের একাংশ সদস্য এ কথা শুনিয়েছেন বলে আমিও শুনেছি। কবে মজুরির টাকা ছাড়া হবে, দলটির কাছে তা-ও জানতে চেয়েছিলেন ওই সদস্যরা।’’ কেন্দ্রীয় পরিদর্শক দল ১ অগস্ট জেলায় এসেছিল। এ বার তিন সদস্যের একটি দল এসেছিল। ৬ অগস্ট পর্যন্ত জেলায় দলটি ছিল। দলটির নেতৃত্বে ছিলেন মন্ত্রকের ডিরেক্টর দেবেন্দ্রকুমার। সঙ্গে ছিলেন প্রজেক্ট ডিরেক্টর মীনাক্ষি ত্রিপাঠী, ইঞ্জিনিয়ার রক্ষিত ত্যাগী। প্রশাসন সূত্রে খবর, একশো দিনের কাজ পরিদর্শন হয়েছে। পাশাপাশি, আবাস যোজনা, সড়ক যোজনার কাজও পরিদর্শন হয়েছে। দলটি গিয়েছে পিংলার জলচক- ১ সহ তিনটি গ্রাম পঞ্চায়েতে। ডেবরার ভবানীপুর- ১ সহ দু’টি গ্রাম পঞ্চায়েতে। ওই গ্রাম পঞ্চায়েতগুলিতে সরেজমিনে পরিদর্শনে গিয়েছে দলটি। পিংলার একটি গ্রাম পঞ্চায়েত পরিদর্শনের সময়েই দলটিকে ওই প্রশ্নের মুখে পড়তে হয়।

বকেয়া মজুরি নিয়ে কেন্দ্র-রাজ্য চাপানউতোর চলছেই। জেলা পরিষদের সহ-সভাধিপতি তথা তৃণমূলের পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার কো- অর্ডিনেটর অজিত মাইতি বলেন, ‘‘বাংলার গরিব মানুষকে ভোগাতে চাইছে কেন্দ্র। একশো দিনের কাজ করে সংসার চালায় গরিব মানুষেরা। আট মাস ধরে কেন্দ্র টাকা দিচ্ছে না। শ্রমিকেরা সমস্যায় পড়ছেন। শুধু বাংলাকেই বঞ্চনা করা হচ্ছে।’’ প্রকল্পে দুর্নীতির অভিযোগ এনে পাল্টা বিঁধছে বিজেপি। রাজ্য বিজেপির সহ- সভাপতি শমিত দাশ বলেন, ‘‘একশো দিনের কাজে কেন্দ্র যে টাকা পাঠাচ্ছিল, তা লুট হয়ে যাচ্ছিল। একশো দিনের কাজে প্রচুর ভুয়ো লোকজন কাজ পেয়েছে। অনেক প্রকৃত দাবিদারকে কাজ দেওয়াই হয়নি।’’ এত বকেয়ার কী হবে, প্রশ্ন শুনে ঠিক কী জানিয়েছে কেন্দ্রীয় দল? স্থানীয় সূত্রে খবর, পঞ্চায়েতের ওই একাংশ জনপ্রতিনিধিকে দলটি স্পষ্ট জানিয়েছে, তারা এসেছে প্রকল্পের কাজ পরিদর্শনে। বকেয়ার কী হবে, সে ব্যাপারে তারা কিছু বলতে পারবে না।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.