Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৭ অক্টোবর ২০২১ ই-পেপার

প্রেমের কাঁটা তুলে বিয়ে দিলেন এসপি

নিজস্ব সংবাদদাতা
মেদিনীপুর ২৬ জানুয়ারি ২০১৭ ০০:০০
নব দম্পতির সঙ্গে পুলিশ সুপার ভারতী ঘোষ। নিজস্ব চিত্র।

নব দম্পতির সঙ্গে পুলিশ সুপার ভারতী ঘোষ। নিজস্ব চিত্র।

এতদিন সাংবাদিক বৈঠক ডেকে ডাকাত বা মাওবাদী ধরার কথা ঘোষণা করতেন পশ্চিম মেদিনীপুরের পুলিশ সুপার ভারতী ঘোষ। বুধবার সন্ধ্যায় সাংবাদিকদের ডাকলেন একেবারে অন্য কারণে— বিয়ে। পুলিশ সুপারের অফিসের মধ্যেই বিয়ে হয়ে গেল শুভজিৎ আর প্রতিভার।

যে রাজ্যে রিজওয়ানুরের মতো যুবককে মরতে হয় প্রেমের জন্য, সে মৃত্যুতে প্রশ্ন ওঠে পুলিশি ভূমিকায়। সেই রাজ্যেই প্রেমের বাধা কাটিয়ে চার হাত এক করে দিলেন পুলিশ সুপার। গড়বেতার বাসিন্দা শুভজিৎ কর্মকার আর শালবনির প্রতিভা দণ্ডপাট। প্রেম পর্ব বেশ কয়েক বছরের। কিন্তু প্রতিভার পরিবার এ সম্পর্ক মেনে নিতে নারাজ। অথচ স্নাতক শুভজিৎ পারিবারিক ব্যবসার সুবাদে যথেষ্ট প্রতিষ্ঠিত।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ভারতী ঘোষের মোবাইলে ফোন করেন বিএ দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী প্রতিভা। বলেন, তাঁর প্রেম সম্পর্ক মেনে নিচ্ছে না পরিবার। এমনকী ওই সম্পর্ক ভাঙতে তাঁকে ঘরে আটকে রেখে গুনিন ডেকে নানা রকম অত্যাচারও করা হচ্ছে। বাকি কথা আর বলা হয়নি। কেটে গিয়েছিল ফোন। প্রতিভা জানাতে পারেনি তাঁর বাড়ি কোথায়।

Advertisement

কিন্তু হাল ছাড়েননি ভারতীদেবী। মোবাইল টাওয়ার লোকেশন দেখে ওই রাতেই শালবনি থেকে প্রতিভাকে উদ্ধার করে পুলিশ। মেদিনীপুর পুলিশ লাইনে এনে সব কথা শুনে যোগাযোগ করা হয় শুভজিতের সঙ্গে। শুভজিৎ তখনই জানিয়ে দেন, তিনি প্রতিভাকে ভালবাসেন। বিয়েও করতে চান।

সমস্ত খোঁজখবর নেওয়ার পর আর দেরি করেননি পুলিশ সুপার। চার হাত এক করার সব আয়োজন শুরু হয়। এ দিন বর-কনেকে উপহারও দেন ভারতীদেবী। সোনার আংটি, দুল, হার, হাতঘড়ি, শাড়ি— বাকি ছিল না কিছুই। নিজের হাতে প্রতিভাকে সাজিয়ে দেন ভারতীদেবী। সেরেছেন কন্যাদানও। উপস্থিত ছিলেন শুভজিতের পরিবারের সকলেই। তাঁরা খুশি এই বিয়েতে। বিয়ের পর শুভজিৎ বলছিলেন, “ভাবতেই পারিনি এমনটা হবে। পুলিশ সুপারের কাছে আমরা কৃতজ্ঞ।” কৃত়়জ্ঞ প্রতিভাও, ‘‘আমার এক বন্ধুর কাছ থেকে পুলিশ সুপারের ফোন নম্বর পেয়েছিলাম। উনি খুব সাহায্য করলেন।’’ আর কনেকর্ত্রী ভারতীদেবী বলছিলেন, “ওঁদের দু’জনের চার হাত এক করতে পেরে ভাল লাগছে। নতুন জীবনের জন্য শুভেচ্ছা থাকল।” পরে, স্থানীয় এক মন্দিরে গিয়ে সামাজিক বিয়েও সারেন প্রতিভা, শুভজিৎ।

আরও পড়ুন

Advertisement