Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৩ মে ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

মোহতা কাণ্ড: কেন্দ্রকে তীব্র তোপ মমতার, টলিউডের রক্ত চুষছে সিন্ডিকেট, পাল্টা দিলীপ-লকেট

সিবিআই বৃহস্পতিবার দুপুরে আটক করে সিনেমা নির্মাতা সংস্থা এসভিএফ-এর কর্ণধার শ্রীকান্ত মোহতাকে।

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ২৫ জানুয়ারি ২০১৯ ২০:৫০
Save
Something isn't right! Please refresh.
সাংবাদিক বৈঠকে দিলীপ ঘোষ ও লকেট চট্টোপাধ্যায়।—নিজস্ব চিত্র.

সাংবাদিক বৈঠকে দিলীপ ঘোষ ও লকেট চট্টোপাধ্যায়।—নিজস্ব চিত্র.

Popup Close

সিনেমা প্রযোজকের গ্রেফতারিতে রাজনৈতিক প্রতিক্রিয়া আসতে শুরু করেছিল বৃহস্পতিবার রাত থেকেই। শুক্রবার খোদ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় টুইট করে তোপ দেগেছেন কেন্দ্রের বিরুদ্ধে। এ বার শুরু হয়ে গেল পাল্টা প্রতিক্রিয়াও। সাংবাদিক সম্মেলন ডেকে এ দিন শ্রীকান্ত মোহতাকে এবং তৃণমূলকে আক্রমণ করল বিজেপি। তৃণমূলের সিন্ডিকেট টলিউডের রক্ত চুষে খাচ্ছে— মন্তব্য করলেন দিলীপ ঘোষ

সিবিআই বৃহস্পতিবার দুপুরে আটক করে সিনেমা নির্মাতা সংস্থা এসভিএফ-এর কর্ণধার শ্রীকান্ত মোহতাকে। বিকেল নাগাদ জানানো হয়, তাঁকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তৃণমূলের তরফে দলের মহাসচিব তথা রাজ্যের মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় এই গ্রেফতারির বিরুদ্ধে মুখ খুলেছিলেন বৃহস্পতিবার রাতেই। তিনি বলেছিলেন, ‘‘সিবিআই-কে দলদাসে পরিণত করেছে বিজেপি।’’ শুক্রবার টুইটারে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রতিক্রিয়া আরও কড়া।

‘‘রাজনৈতিক প্রতিহিংসা চলছেই।’’—টুইটারে লেখেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বিভিন্ন তদন্তকারী সংস্থাকে কাজে লাগিয়ে বিজেপি গোটা দেশে বিরোধী দলগুলিকে হেনস্থা করে চলেছে বলেও লেখেন তিনি। মমতার প্রশ্ন— বিজেপি কি ভয় পেয়েছে? তারা কি মরিয়া?

Advertisement

টুইটে তোপ মুখ্যমন্ত্রীর।

আরও পড়ুন: শ্রীকান্ত মোহতাকে ১৪ দিনের জেল হেফাজত, আদালতে সিবিআই পেশ করল ‘সিক্রেট ইনফরমেশন’​

রাজ্য বিজেপির সদর দফতরে সাংবাদিক বৈঠক ডেকে এ দিন মুখ্যমন্ত্রীর এই আক্রমণের জবাব দেন দিলীপ ঘোষ। অখিলেশ-মায়াবতীদের দল হোক বা তাঁর নিজের দল তৃণমূল, দিল্লি হোক বা কলকাতা— সর্বত্রই সিবিআই-কে কাজে লাগিয়ে বিরোধীদের কোণঠাসা করার চেষ্টা চলছে বলে যে অভিযোগ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এ দিন করেছেন, তার প্রেক্ষিতে রাজ্য বিজেপির সভাপতির মন্তব্য, ‘‘ভয় আসলে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিজেই পেয়েছেন। তাই নিজের ভয়টা অন্যদের সঙ্গে ভাগ করে নেওয়ার চেষ্টা চলছে।’’

সিবিআই-এর হাতে গ্রেফতার হওয়া শ্রীকান্ত মোহতা প্রসঙ্গে দিলীপ এ দিন বলেন, ‘‘যিনি গ্রেফতার হয়েছেন, সত্যি কথা বলতে তিনি একজন ফিল্ম মাফিয়া।’’ অবৈধ ভাবে কলকাতা বন্দরের জমি দখল করে রাখার যে অভিযোগ মোহতার বিরুদ্ধে আগে উঠেছিল, সেটাও এ দিন ফের সামনে আনেন দিলীপ। তার পরে বলেন, ‘‘শ্রীকান্ত মোহতা টালিগঞ্জ ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে মাফিয়া রাজ চালাচ্ছিলেন।’’ কটাক্ষের সুরে দিলীপ আরও বলেন, ‘‘শুধু শ্রীকান্ত মোহতা নন, দিদির আরও অনেক ছোট ছোট ভাই রয়েছেন, যাঁরা টলিউডের রক্ত চুষে খাচ্ছেন। এত দিন কেউ তাঁদের বিরুদ্ধে মুখ খুলতে সাহস পাচ্ছিলেন না। আমাদের এই সাংবাদিক সম্মেলনের পরে হয়তো অনেকেই মুখ খুলবেন।’’


টুইটে তোপ মুখ্যমন্ত্রীর।

আরও পড়ুন: মুকুলের হাত ধরে ‘ভাইপো’ বিজেপিতে, অনুব্রত বললেন ‘চিনিই না, পাগল সব’​

বাংলা ফিল্ম এবং টেলি ইন্ডাস্ট্রির চেনা মুখ তথা বিজেপি মহিলা মোর্চার রাজ্য সভানেত্রী লকেট চট্টোপাধ্যায়কে সঙ্গে নিয়ে এ দিন সাংবাদিক সম্মেলনে বসেছিলেন দিলীপ। লকেটও দিলীপের সুরেই আক্রমণ করেন শ্রীকান্ত মোহতাকে। তিনি বলেন, ‘‘টলিউডে স্বচ্ছতা অভিযান শুরু হল। টলি সিন্ডিকেটের প্রথম উইকেটটা পড়ল। আরও উইকেট পড়বে।’’ তৃণমূলের বিরুদ্ধে যে দিন থেকে তিনি কথা বলতে শুরু করেছিলেন, সেই দিন থেকেই তাঁর সব কাজ কেড়ে নেওয়া হয়েছে বলে লকেট জানান। তিনি বলেন, ‘‘সিন্ডিকেটের ভয়ে টলিউড ইন্ডাস্ট্রির কেউ আমার সঙ্গে যোগাযোগ রাখার সাহস পান না। কেউ আমাকে ফোন করেন না। সোশ্যাল মিডিয়ায় আমার পোস্ট দেখেন, কিন্তু লাইক করার সাহস পান না।’’ লকেট আরও বলেন, ‘‘আজও আমার এই বক্তব্য সবাই সোশ্যাল মিডিয়ায় দেখবেন, আমি জানি, তাঁরা মনে মনে খুশি হবেন, তবু লাইক করতে পারবেন না। টলিউডের অবস্থাটা এই রকমই হয়েছে।’’ লকেটের কথায়, ‘‘শিল্পীসত্তা বিসর্জন দিয়ে রাজনীতির সঙ্গে জুড়তে বাধ্য করা হচ্ছে শিল্পীদের। একজন শিল্পীর যদি তৃণমূলের হয়ে প্রচার করার ইচ্ছা হয়, তা হলে তিনি নিশ্চয়ই করতে পারেন। কিন্তু ঘাড় ধরে তৃণমূলের হয়ে প্রচার করতে সকলকে বাধ্য করা হচ্ছিল।’’ প্রযোজক শ্রীকান্ত মোহতা, রাজ্যের এক মন্ত্রী, সেই মন্ত্রীর ভাই এবং আরও কেউ কেউ মিলে টলিউডে এই সিন্ডিকেট রাজ কায়েম করেছেন বলে লকেট এ দিন অভিযোগ করেন।



Something isn't right! Please refresh.

আরও পড়ুন

Advertisement