×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

১৮ জুন ২০২১ ই-পেপার

রিলিজ করেনি নবান্ন, বদলির চিঠি ফেরতও নেয়নি কেন্দ্র, মাঝখানে আলাপনের সোমবার

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ৩০ মে ২০২১ ১৫:৫৩
 আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়।

আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়।

সোমবার, ৩১ মে, সকাল ১০টায় দিল্লিতে তলব করা হয়েছে রাজ্যের মুখ্যসচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়কে। নর্থ ব্লকে কেন্দ্রীয় সরকারের কর্মিবর্গ মন্ত্রকে তাঁর হাজিরা দেওয়ার কথা। তিনি কি এই বদলির নির্দেশ মতো সোমবার পৌঁছে যাবেন? না কি নতুন কোনও মোড় অপেক্ষা করছে এই বিতর্কিত পর্বে? পরিস্থিতি কিন্তু এখনও স্পষ্ট নয়।

নবান্ন সূত্রের খবর, রবিবার বিকেল পর্যন্ত আলাপনকে দিল্লি যাওয়ার প্রয়োজনীয় ছাড়পত্র দেয়নি রাজ্য সরকার। এমনকি, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অনুরোধ মেনে কেন্দ্রীয় সরকারও তাদের নির্দেশ প্রত্যাহার করেনি।

৩১ মে-ই ছিল আলাপনের কর্মজীবনের শেষ দিন। কিন্তু রাজ্য সরকার কেন্দ্রের কাছে মুখ্যসচিবের মেয়াদ বৃদ্ধির আবেদন জানালে, তাতে সায় দেয় নরেন্দ্র মোদীর সরকার। ৩ মাসের এক্সটেনশন পান আলাপন। গত শুক্রবার কলাইকুন্ডা বিমানবন্দরে প্রধানমন্ত্রীর ডাকা ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের ক্ষয়ক্ষতি পর্যালোচনা বৈঠকে হাজির থাকার কথা ছিল মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও মুখ্যসচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়ের। কিন্তু দু’জনের কেউই ওই বৈঠকে যোগ দেননি। মুখ্যমন্ত্রী বৈঠকের আগে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করে বিপর্যয়ে ক্ষয়ক্ষতির খতিয়ান পেশ করেন। সঙ্গে ছিলেন মুখ্যসচিবও। তার কয়েক ঘণ্টার মধ্যে আলাপনকে দিল্লিতে তলব করে কেন্দ্র।

Advertisement

শুক্রবার রাতে এই বদলির নির্দেশ আসার পর শনিবার নবান্নে সাংবাদিক সম্মেলন করে মুখ্যমন্ত্রী কেন্দ্রের কাছে আবেদন করেন তাদের নির্দেশ প্রত্যাহার করার জন্য। কিন্তু রবিবার কেন্দ্রীয় নির্দেশনামা প্রত্যাহারের খবর যেমন পাওয়া যায়নি, তেমনই রাজ্য সরকারও মুখ্যসচিবকে দিল্লিতে কাজে যোগ দেওয়ার ছাড়পত্র দেয়নি। কেন্দ্রীয় সরকার রাজ্যের সচিব পর্যায়ের কোনও আধিকারিককে তাদের কাজে যোগদানের বিষয়ে নির্দেশ দিলে, সংশ্লিষ্ট রাজ্য সরকারকেও চিঠি দিয়ে তা জানানোই রেওয়াজ। এ ক্ষেত্রেও কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে আলাপনকে চিঠি দিয়ে দিল্লিতে কাজে যোগদানের নির্দেশ দেওয়ার পাশাপাশি, চিঠি পাঠানো হয়েছিল নবান্নেও। কিন্তু এখনও পর্যন্ত নবান্ন থেকে মুখ্যসচিবকে ‘রিলিজ অর্ডার’ দেওয়া হয়নি বলেই খবর। এমনকি কেন্দ্রীয় সরকারের চিঠির জবাবও দেওয়া হয়নি নবান্ন থেকে। এমতাবস্থায় আলাপনের দিল্লিতে যোগ দেওয়ার সম্ভাবনা নেই বলেই মনে করছেন প্রাক্তন আমলারা। কারণ, দিল্লিতে কাজে যোগ দিতে হলে মুখ্যসচিবকে ‘রিলিজ অর্ডার’ নিতেই হবে। এ ক্ষেত্রে রিলিজ অর্ডার না পেলে তাঁর দিল্লি যাওয়া হচ্ছে না বলেই মনে করছেন প্রাক্তন আমলাদের অনেকে।

সোমবার ইয়াস ঘূর্ণিঝড় পরবর্তী পরিস্থিতি নিয়ে নবান্নে একটি বৈঠক করবেন মুখ্যমন্ত্রী। নবান্নেরই কোনও কোনও সূত্রে খবর, ওই বৈঠকে হাজির থাকবেন মুখ্যসচিব আলাপনও। কিন্তু একটা অংশ বলছেন, আলাপন দিল্লি না গেলেও ওই বৈঠকে সম্ভবত থাকবেন না। এক প্রাক্তন আমলার কথায়, নিয়মানুযায়ী রাজ্য সরকারের তরফে সংশ্লিষ্ট আমলাকে এবং কেন্দ্রকে চিঠি দেওয়া হলে তবেই ওই আধিকারিক কেন্দ্রীয় সরকারের কাজে যোগ দিতে পারেন। এ ক্ষেত্রে যখন রাজ্য সরকার দু’পক্ষকেই চিঠি দেয়নি, তখন ধরে নিতে হবে আলাপন রাজ্যের মুখ্যসচিব হিসেবেই কাজ চালিয়ে যাবেন।

Advertisement