Advertisement
২৭ নভেম্বর ২০২২
Rasogolla

Rasogolla day: রসগোল্লা দিবস, তাই একটা খেয়েই ফেললেন

চিকিৎসকেরা ডায়াবিটিস আক্রান্তদের মাপজোক করে মিষ্টি খাবার খাওয়ার পরামর্শ দেন। আর রসগোল্লা ও ডায়াবিটিস- দিবস একই দিনে পালিত হচ্ছে।

নানা রঙের রসগোল্লা।

নানা রঙের রসগোল্লা। নিজস্ব চিত্র।

নিজস্ব সংবাদদাতা 
বহরমপুর শেষ আপডেট: ১৫ নভেম্বর ২০২১ ০৫:১৪
Share: Save:

রসগোল্লার (মিষ্টির) সঙ্গে সাপে নেউলে সম্পর্ক ডায়াবিটিসের। চিকিৎসকেরা ডায়াবিটিস আক্রান্তদের মাপজোক করে মিষ্টি খাবার খাওয়ার পরামর্শ দেন। আর রসগোল্লা ও ডায়াবিটিস- দিবস একই দিনে পালিত হচ্ছে। রসগোল্লা জিআই প্রাপ্তির দিনটিকে রসগোল্লা দিবস হিসেবে পালন হয়ে আসছে। আবার দীর্ঘদিন থেকে ১৪ নভেম্বর ডায়াবিটিস দিবস হিসেবে পালিত হয়ে আসছে। তবে রবিবার দিনের শেষে ডায়াবিটিস না রসগোল্লা- কে জয়ী হল সেটাই লাখ টাকার প্রশ্ন। কারণ এদিন ডায়াবিটিস আক্রান্ত অনেকেই ভয়কে দূরে সরিয়ে টুক করে গিলে নিয়েছেন আস্ত রসগোল্লা। যেমন বহরমপুর জেলা আদালতের আইনজীবী আব্দুল হাই সিদ্দিক ডায়াবিটিসে আক্রান্ত। কিন্তু রসগোল্লাও তাঁর প্রিয়। তাই রসগোল্লা দিবসে বাড়িতে বেশ কয়েক রকমের রসগোল্লা নিয়ে হাজির। আব্দুল হাই সিদ্দিক বলছেন, ‘‘রসগোল্লার স্বাদই আলাদা। তাই রসগোল্লা দিবসে তার স্বাদ না নিয়ে আর থাকতে পারলাম না। একটি দিনতো তাই খেয়েই নিলাম।’’

Advertisement

ফরাক্কার প্রফেসর সৈয়দ নুরুল হাসান কলেজের শিক্ষক সমিত মণ্ডলও ডায়াবিটিসে আক্রান্ত। তিনি মিষ্টি এতটাই এড়িয়ে চলেন যে চিনি ছাড়াই চা পান করেন। কিন্তু রসগোল্লা দিবসে তাঁকে কে রোখে। সমিত বলছেন, ‘‘গত কয়েক বছর থেকে রসগোল্লা দিবস পালন হয়ে আসছে। বছরে এই একটি দিন আর থাকতে পারি না। তাই মিষ্টির দোকানে দাঁড়িয়ে বেশ কয়েকটি রসগোল্লা খেয়ে নিলাম।’’

তবে মুর্শিদাবাদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মেডিসিন বিভাগের অ্যাসোসিয়েট প্রফেসর কৌশিক ঘোষ বলেন, ‘‘ রসগোল্লা-সহ বিভিন্ন মিষ্টিতে উচ্চ ক্যালোরি ও ফ্যাট থাকে। তাই মিষ্টির সঙ্গে ডায়াবিটিসের শত্রুতা। ডায়াবিটিস আক্রান্তদের মিষ্টি না খাওয়ার পরামর্শ দিই।’’ তাঁর দাবি, ‘‘ডায়াবিটিস আক্রান্তদের একান্তই মিষ্টি খেতে হলে চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।’’ তিনি জানান, এ়দিন ডায়াবিটিস দিবস। এই রোগ উত্তরোত্তর বাড়ছে।

মিষ্টির ব্যবসায়ীরা বলছেন, ডায়াবিটিসের কারণে অনেকে মিষ্টি এড়িয়ে চলেন ঠিকই। তবে তার জন্য মিষ্টির চাহিদা কমেছে এমনটা নয়। মিষ্টির চাহিদা বরাবরই রয়েছে। ডায়াবিটিসে আক্রান্তদের জন্য আমরা কম মিষ্টত্ব যুক্ত, সুগার-ফ্রি মিষ্টি, রসগোল্লা তৈরি করি।
বহরমপুরের কল্পনা মোড়ের একটি মিষ্টির দোকানে ৮ রকমের রসগোল্লা তৈরি করেছে। সেখানে এলাচি, কাঁচা আম, পাকা আম, কালো আঙুর, আনারস, চকোলেট, স্ট্রবেরি ফ্লেভারের রসগোল্লা তৈরি করা হয়েছেন। ওই দোকানের কর্তা সুমন কল্যাণ ঘোষ বলছেন, ‘‘রসগোল্লা দিবসকে সামনে রেখে রাজ্য জুড়ে আমাদের সংগঠন ‘মিষ্টি উদ্যোগ’ এর তরফে রসগোল্লা দিবস পালন করা হচ্ছে।’’

Advertisement
(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.