×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

২০ জানুয়ারি ২০২১ ই-পেপার

দাদার অনুগামীর পাল্টা দিদির সঙ্গে

নিজস্ব সংবাদদাতা
২৯ নভেম্বর ২০২০ ০২:২৩
—ফাইল চিত্র।

—ফাইল চিত্র।

‘দাদার অনুগামী’দের প্রচার যেমন চলছে, তেমনই ‘দিদির সঙ্গে’ থাকার বার্তাও দিচ্ছেন অনেকেই। ইতিমধ্যে নেত্রীর পাশে থাকার বার্তা দিয়ে সমাজমাধ্যমে নিজেদের কভার ফটো ভরিয়েছেন অনেক তৃণমূল নেতাকর্মী। কিন্তু এই মুহূর্তে হঠাৎ তার প্রয়োজন হল কেন, সেই প্রশ্ন উঠছেই।

শুভেন্দু অধিকারীর সঙ্গে নদিয়ার তেমন সংযোগ না থাকলেও তৃণমূলের থেকে তাঁর দূরত্ব বাড়তেই তাঁর সমর্থনে ফ্লেক্স-পোস্টার পড়েছিল কিছু জায়গায়। সমাজমাধ্যমেও এই জেলায় ‘দাদার অনুগামী’দের উপস্থিতি নজরে এসেছে। তারই পাল্টা হিসেবে এখন সমাজমাধ্যমে ‘দিদির পাশে’ থাকার বার্তাও দিচ্ছেন তৃণমূল নেতাকর্মীদের একাংশ। অনেকেরই কভার ফটোতে দেখা যাচ্ছে, তৃণমূলের প্রতীক এবং তার নীচে লেখা ‘দিদির সঙ্গে’। 

সম্প্রতি জেলা ও ব্লক তৃণমূলের নানা পদে রদবদলের পরে দলের মধ্যে অসন্তোষ মাথাচাড়া দিয়েছে। অনেক জায়গাতেই বিভিন্ন সম্মেলনে তা প্রকাশ্যে আসছে। সামনেই বিধানসভা ভোট, তার আগে দলের কর্মীদের একাংশের এই ‘দিদি’র প্রতি আনুগত্য প্রকাস নিয়ে কটাক্ষ করতে ছাড়ছেন না বিরোধীরা। রানাঘাটের বিজেপি সাংসদ জগন্নাথ সরকারের দাবি, “ওদের আত্মবিশ্বাসে চিড় ধরেছে। নিজের ছায়াকে পর্যন্ত বিশ্বাস করতে পারছে না। ভাবছে, কে কখন বেরিয়ে চলে যাবে। তাই নিজেদের দলকে ধরে রাখতে এখন প্রকাশ্যে এসব বার্তা দিতে হচ্ছে। এতে লাভ হবে না।”

Advertisement

 তবে জেলা তৃণমূল নেতাদের বক্তব্য, দলের কর্মীরা নানা সময়েই এই ধরনের ছবি আপলোড করে থাকেন। নতুন কিছু নয়। নদিয়া জেলা তৃণমূলের মুখপাত্র বাণীকুমার রায় শনিবার বলেন, “মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আমাদের নেত্রী। তাঁকে সামনে রেখে আমাদের লড়াই। দলের নেতাকর্মীরা দিদির সঙ্গে থাকার বার্তা দেবেন এতে অস্বাভাবিকতা কিছু নেই। বিজেপি বরং কিছু জায়গায় চক্রান্ত করছে আমাদের দলে বিভেদ তৈরি করার।”

Advertisement