×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

২৮ জানুয়ারি ২০২১ ই-পেপার

চরে গুলি, বাংলাদেশি প্রৌঢ় জখম

নিজস্ব সংবাদদাতা
জলঙ্গি০৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০ ০৭:৫৩
প্রতীকী ছবি।

প্রতীকী ছবি।

ফের উত্তপ্ত হয়ে উঠল জলঙ্গির চর। এ বার অভিযোগ উঠল, বিএসেফের গুলিতে জখম হয়েছেন এক বাংলাদেশি নাগরিক। তাঁর নাম সোলেমান মোল্লা। ডোমকলের এসডিপিও সন্দীপ সেন বলেন, ‘‘বিএসএফ জানিয়েছে, ওই প্রৌঢ়ের বাড়ি বাংলাদেশের দৌলতপুর থানা এলাকায়।’’

যদিও বিএসএফ সূত্রে জানা গিয়েছে, মঙ্গলবার দুষ্কৃতীরা কাশির সিরাপ পাচার করছিল চরভদ্রা এলাকায়, তাদের তাড়া করা হয়। তখন তারাও সীমান্তরক্ষীদের পাল্টা আক্রমণ করে। তখনই বিএসএফ গুলি চালায়। তাতেই জখম হন সোলেমান। রবিবার সকাল থেকেই উত্তপ্ত ছিল চর এলাকা। চর পরাশপুরে গ্রামবাসীরা অভিযোগ তুলেছিল, পাচারের জন্য গরু ধরে রাখা হয়েছে বলে বাড়ির গরুই টেনে নিয়ে চলে যাচ্ছিলেন বিএসএফ জওয়ানেরা। গ্রামবাসীরা প্রতিবাদ করায় তখনও বিএসএফ গুলি ছোড়ে বলে দাবি। তবে বিএসএফ দাবি করেছে, তেমন কিছুই ঘটেনি। পাচারকারিরা বিএসএফের বিরুদ্ধে মিথ্যা গল্প ফাঁদছে বলে সীমান্তরক্ষী বাহিনীর দাবি।

বিএসএফের বহরমপুর রেঞ্জের ডিআইজি কুনাল মজুমদার বলেন, ‘‘বিএসএফ খবর পেয়ে চরের ওই এলাকায় গেলে দেখতে পাই সীমান্ত পেরিয়ে একদল বাংলাদেশে পাচারকারি ফেনসিডিল নিয়ে পালাচ্ছে। সেই সময় পাম্প অ্যাকশন গান দিয়ে প্রতিরোধ করে বিএসএফ। আর তাতেই একজন সামান্য জখম হয়।’’ সোলেমানকে মুর্শিদাবাদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়েছে। চরভদ্রার ঘটনা ঘিরে আতঙ্ক ছড়িয়েছে সীমান্ত এলাকায়। এ দিন অনেকেই চাষবাস ফেলে পালিয়ে এসেছেন পদ্মার শাখা নদীর এপারে। স্থানীয় বাসিন্দাদের দাবি, তাঁরা দূর থেকে বেশ কয়েক রাউন্ড গুলির আওয়াজ পেয়েছেন। তার পরেই দেখেন, বিএসএফ একজনকে তুলে নিয়ে এল ক্যাম্পে। গ্রামবাসীদের একাংশ যদিও জানান, দিন মজুরের কাজ করতেই এসেছিলেন সোলেমান।

Advertisement
Advertisement