Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

১০ অগস্ট ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

পর্যটক-ভিড়ের ছবি ফিরল হাজারদুয়ারির

শুরুটা হয়েছিল গত মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহ থেকে। সংখ্যায় কম হলেও মুর্শিদাবাদের পর্যটনকেন্দ্রগুলিতে পর্যটকরা আসতে শুরু করেন সেই সময় থেকেই। আর ডিসে

নিজস্ব সংবাদদাতা
বহরমপুর ০৭ ডিসেম্বর ২০২০ ০১:৫৯
Save
Something isn't right! Please refresh.
চেনা ছন্দে। রবিবারে ভিড়ে ভরা হাজারদুয়ারি। ছবি: ইন্দ্রাশিস বাগচী।

চেনা ছন্দে। রবিবারে ভিড়ে ভরা হাজারদুয়ারি। ছবি: ইন্দ্রাশিস বাগচী।

Popup Close

করোনা নিয়ে অযথা আতঙ্ক কি কাটছে? প্রায় এক বছর পর শীতেই কি তবে স্বাভাবিক ছন্দে ফিরবে মুর্শিদাবাদ জেলার পর্যটনশিল্প। নভেম্বরের দ্বিতীয় সপ্তাহ থেকে জেলার পর্যটনকেন্দ্রগুলিতে ভিড় সেই দিকেই ইঙ্গিত করছে।

শুরুটা হয়েছিল গত মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহ থেকে। সংখ্যায় কম হলেও মুর্শিদাবাদের পর্যটনকেন্দ্রগুলিতে পর্যটকরা আসতে শুরু করেন সেই সময় থেকেই। আর ডিসেম্বরের প্রথম রবিবার হাজারদুয়ারি, মোতিঝিল-সহ জেলার পর্যটন কেন্দ্রগুলিতে ভিড় বেড়েছে। স্থানীয়রা জানান, চলতি মরসুমে এদিনই সবচেয়ে বেশি পর্যটক এসেছে বলে তাঁরা অনুমান করছেন। স্থানীয় ব্যবসায়ীদের দাবি, এখন মূলত জেলার বিভিন্ন এলাকার লোকজন মুর্শিদাবাদ শহরের পর্যটন কেন্দ্রগুলিতে আসছেন। গাড়ি করে এসে দিনভর ঘুরে সন্ধ্যায় ফিরে যাচ্ছেন। তবে হোটেেল রাত্রিবাস করে পর্যটনকেন্দ্রগুলি ঘুরতে পছন্দ করেন যে সব পর্যটক, তাঁদের এখনও সেভাবে আনাগোনা শুরু হয়নি। তবে দীর্ঘ মন্দার পর অবশেষে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ার ইঙ্গিত মেলায় কিছুটা হলেও মুখে হাসি ফিরেছে ব্যবসায়ী এবং পর্যটনের সঙ্গে যুক্ত মানুষজনের। মুর্শিদাবাদ পুরসভার প্রশাসক বিপ্লব চক্রবর্তী বলেন, ‘‘করোনা ভীতি কাটিয়ে মুর্শিদাবাদ শহরে ধীরে ধীরে পর্যটক আসছে। রবিবার হাজার সাতেক পর্যটক এসেছে। হাজারদুয়ারি এক্সপ্রেস-সহ অন্য ট্রেন স্বাভাবিকভাবে চলাচল শুরু হলে লোকজন আরও বাড়বে।’’ মুর্শিদাবাদ হোটেল ওনার্স ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশনের সম্পাদক তথা লালবাগের হোটেল ব্যবসায়ী স্বপন দাস বলেন, ‘‘এদিন শহরের পর্যটন কেন্দ্রগুলিতে ভিড় ভালই ছিল। তবে এখনও সেভাবে হোটেলে থেকে ঘুরে বেড়ানোর পর্যটক আসতে শুরু করেনি। তবে দু’-একজন ঘর বুক করতে ফোন করছেন।’’ তাঁর দাবি, ‘‘মূলত হাজারদুয়ারি এক্সপ্রেসে কলকাতা থেকে পর্যটকরা মুর্শিদাবাদে আসেন। ফলে ওই ট্রেন চালু হওয়ার দিকেই আমরা তাকিয়ে।’’

জেলার পর্যটন শিল্পের সঙ্গে যুক্ত লোকজন জানান, পুজো থেকে মুর্শিদাবাদে লোকজন আসে। কিন্তু এবার করোনার জেরে এবং ট্রেন যোগাযোগ বন্ধ থাকায় দুর্গাপুজোয় পর্যটকরা মুর্শিদাবাদমুখী হননি বললেই চলে। তবে একদিকে করোনা ভীতি যেমন কমেছে, তেমনই লোকাল, প্যাসেঞ্জার ট্রেনের পাশাপাশি ভাগীরথী এক্সপ্রেস চলাচল শুরু করেছে। কয়েক দিনের মধ্যে হাজারদুয়ারি এক্সপ্রেস-সহ অন্য ট্রেন চালানোর পরিকল্পনা নিচ্ছে রেল। ফলে পর্যটকও বাড়বে বলে আশাবাদী মুর্শিদাবাদের ব্যবসায়ীরা। মুর্শিদাবাদ ডিস্ট্রিক্ট চেম্বার অব কমার্সের যুগ্ম সম্পাদক তথা লালবাগ সিটি ব্যবসায়ী সমিতির সম্পাদক স্বপন ভট্টাচার্য বলেন, ‘‘অন্যদিনের তুলনায় আজ পর্যটক ভাল এসেছে। তবে এদিন পিএসসির পরীক্ষার জন্যও অনেকে শহরে এসেছেন। আমরা আশাবাদী, ধীরে ধীরে ছন্দে ফিরবে জেলার পর্যটন কেন্দ্রগুলি।’’

Advertisement
(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)


Something isn't right! Please refresh.

Advertisement