Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৫ মে ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

21 July: কোভিড নিয়ন্ত্রণে গগনচুম্বী ব্যর্থতা মোদীর, ‘শহিদ মঞ্চ’ থেকে তোপ মমতার

মমতা বলেন, ‘‘বাংলায় ডেলি প্যাসেঞ্জারের মতো এসে গণতন্ত্র ধ্বংস করতেই ব্যস্ত ছিলেন বিজেপি নেতারা। আর বাংলার মানুষ তা বুঝিয়ে দিয়েছেন।’’

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ২১ জুলাই ২০২১ ১৭:৩৮
Save
Something isn't right! Please refresh.
তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।
নিজস্ব চিত্র

Popup Close

গত সপ্তাহে কোভিড মোকাবিলায় যোগী আদিত্যনাথের ভূয়সী প্রশংসা করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। বুধবার তৃণমূলের 'শহিদ দিবস'-এর মঞ্চ থেকে তা নিয়েই কটাক্ষ করলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বিজেপি-র উদ্দেশে তাঁর মন্তব্য, ‘‘কোভিড নিয়ন্ত্রণে আপনাদের গগনচুম্বী ব্যর্থতা রয়েছে। সে জন্যই চার লক্ষ মানুষ মারা গিয়েছেন।’’

বুধবার মমতার বক্তৃতা জাতীয় স্তরে প্রচারের ব্যবস্থা করেছিল তৃণমূল। সেই মতো বড় পর্দায় উত্তরপ্রদেশ, দিল্লি-সহ বেশ কয়েকটি রাজ্যে শোনানো হয় তাঁর বক্তব্য। বুধবার মোদী বিরোধিতায় এই সুযোগের সদ্ব্যবহার করেন মমতাও। বিজেপি বিরোধী একাধিক দলের নেতাদের উপস্থিতিতে তিনি হাতিয়ার করেন কেন্দ্রের কোভিড ব্যর্থতার প্রসঙ্গ। মমতার কথায়, ‘‘গঙ্গায় মৃতদেহ ভাসছে আর প্রধানমন্ত্রী বলছেন, উত্তরপ্রদেশ দেশের মধ্যে সেরা রাজ্য। একটুও লজ্জা নেই আপনাদের! টিকা, ওষুধ, অক্সিজেন ছিল না, মৃতদেহ সৎকার পর্যন্ত করেননি। গঙ্গায় ভাসিয়ে দিয়েছেন। আমরা তুলে সৎকার করেছি। এখন বড় বড় কথা বলছেন। আপনারা তো চূড়ান্ত ভাবে ব্যর্থ।’’

Advertisement


বাংলায় বিধানসভা নির্বাচন চলাকালীন করোনার দ্বিতীয় ঢেউ আছড়ে পড়ে ভারতে। মোদী-সহ বিজেপি নেতারা তখন বাংলায় ভোট প্রচারে ব্যস্ত ছিলেন। কোভিডের দিকে তাঁরা নজর দেননি। কেন্দ্রের ওই অবহেলার কারণে সংক্রমণ বৃদ্ধি পেয়েছে বলে মনে করেন মমতা। তাঁর মতে, ‘‘দ্বিতীয় ঢেউ নিয়ন্ত্রণ করা যেত ঠিক সময়ে ব্যবস্থা নিলে। কিন্তু বাংলায় ডেলি প্যাসেঞ্জারের মতো এসে গণতন্ত্র ধ্বংস করতেই ব্যস্ত ছিলেন বিজেপি নেতারা। আর বাংলার মানুষ তা বুঝিয়ে দিয়েছেন।’’ অন্য দিকে, বুধবার উত্তরপ্রদেশের পাঠ্যক্রম থেকে রবীন্দ্রনাথের রচনা বাদ দেওয়া নিয়েও সরব হন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘‘স্বাধীনতা এখন সঙ্কটে। রবীন্দ্রনাথকে পাঠক্রম থেকে বার করে দিয়েছে। বিজেপি একটি হাই লোডেড ভাইরাস পার্টি। করোনার চেয়েও বিপজ্জনক ভাইরাস রয়েছে বিজেপি-তে।’’



Something isn't right! Please refresh.

আরও পড়ুন

Advertisement