×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

২৬ জানুয়ারি ২০২১ ই-পেপার

ভুয়ো খবর রটাচ্ছে বিজেপি, অভিযোগ

নিজস্ব সংবাদদাতা 
রায়গঞ্জ২২ নভেম্বর ২০২০ ০৮:১০
প্রতীকী ছবি।

প্রতীকী ছবি।

বিধানসভা ভোটের আগে রাজনৈতিক স্বার্থে উত্তর দিনাজপুর জেলায় সামাজিক মাধ্যমে ভুয়ো খবর রটাচ্ছে বিজেপি— শনিবার এমনই অভিযোগ তুললেন জেলা তৃণমূল নেতৃত্ব। এ দিন রায়গঞ্জের সুপারমার্কেট এলাকায় দলের জেলা কার্যালয়ে ‘টিম পিকে’র সদস্যদের উপস্থিতিতে সাংবাদিক বৈঠক করেন জেলা তৃণমূল সভাপতি কানাইয়ালাল আগরওয়াল, জেলা তৃণমূলের মুখপাত্র সন্দীপ বিশ্বাস ও দলের দুই জেলা কো-অর্ডিনেটর মোশারফ হোসেন ও মনোদেব সিংহ।

বৈঠকে কানাইয়া বলেন, “উত্তর দিনাজপুর জেলায় বিজেপির কোনও সংগঠন নেই। গত লোকসভা নির্বাচনে জেলার মানুষকে ভুল বুঝিয়ে ও বিভেদের রাজনীতি করে বিজেপি রায়গঞ্জ লোকসভা কেন্দ্রে জয়ী হয়েছে। এখানকার বিজেপি সাংসদ দেবশ্রী চৌধুরী কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পাওয়ার পর গত দেড় বছরে জেলায় কোনও উন্নয়ন হয়নি।” কানাইয়ার দাবি, জেলায় সার্বিক উন্নয়ন ও সম্প্রীতি রক্ষার স্বার্থে আগামী বিধানসভা ভোটে জেলাবাসী তৃণমূল প্রার্থীদেরই জয়ী করবেন। বিজেপি পরাজয় নিশ্চিত বুঝতে পেরে রাজনৈতিক স্বার্থে সামাজিক মাধ্যমে ভুয়ো খবর ছড়িয়ে বাসিন্দাদের বিভ্রান্ত করছে।

সন্দীপের দাবি, আগামী সপ্তাহ থেকে রায়গঞ্জ, কালিয়াগঞ্জ, হেমতাবাদ, ইটাহার, করণদিঘি, ইসলামপুর, চোপড়া, গোয়ালপোখর ১ ও ২ ব্লকে তৃণমূলের নেতা-কর্মীরা আন্দোলন ও সামাজিক মাধ্যমে বিজেপির ভুয়ো খবর রটানোর প্রতিবাদ করবেন।

Advertisement

মোশারফ ও মনোদেবের অভিযোগ, গত জুলাই মাসে হেমতাবাদের বিধায়ক দেবেন্দ্রনাথ রায় ও চোপড়ায় এক কিশোর ও এক কিশোরীর আত্মহত্যার ঘটনা নিয়ে বিজেপি সামাজিক মাধ্যমে ভুয়ো খবর রটায়। সামাজিক মাধ্যমে দুটি ঘটনাতেই বিজেপি তৃণমূলকে অভিযুক্ত করে। কিছুদিন আগে রায়গঞ্জ থানায় এক বিজেপি কর্মীর অসুস্থ হয়ে মৃত্যুর ঘটনাকে বিজেপি সামাজিক মাধ্যমে পুলিশের বিরুদ্ধে ওই ব্যক্তিকে খুনের অভিযোগ তুলে ভুয়ো প্রচার চালিয়েছে। এর আগে দাড়িভিটে দুষ্কৃতীদের ছোঁড়া গুলিতে দুই ছাত্রের মৃত্যুর ঘটনাকেও বিজেপি সামাজিক মাধ্যমে পুলিশ ও তৃণমূল ওই দু’জনকে গুলি করে খুন করেছে বলে ভুয়ো খবর রটিয়েছে।

জেলা বিজেপি সভাপতি বিশ্বজিৎ লাহিড়ী বলেন, “জেলা জুড়ে তৃণমূলের তোলাবাজি, খুন, ধর্ষণ সহ বিভিন্ন অসামাজিক কার্যকলাপের রাজনীতি সবাই বুঝে গিয়েছেন। জেলার কর্মহীন ছেলেমেয়েদের বঞ্চিত করে কিছুদিন আগে তৃণমূল নেতাদের আত্মীয় ও পরিচিতদের পঞ্চায়েতে নিয়োগ করা হয়েছে। বিজেপি সামাজিক মাধ্যমে সত্যি কথা তুলে ধরায় তৃণমূল আতঙ্কে রয়েছে।”

Advertisement