Advertisement
২৩ জুন ২০২৪
Oxygen

জোগান স্বাভাবিক রাখতে জেলায় ‘অক্সিজেন হাব’

করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে গোটা দেশজুড়ে অক্সিজেন সঙ্কট প্রকাশ্যে আসে। তখন থেকেই অক্সিজেন সঙ্কট মেটাতে তৎপর হয় প্রশাসন ও স্বাস্থ্য দফতর।

প্রতীকী ছবি।

প্রতীকী ছবি।

নিজস্ব সংবাদদাতা
কোচবিহার শেষ আপডেট: ১২ জুন ২০২১ ০৬:৫৫
Share: Save:

দিনকয়েক আগেই অক্সিজেন নিয়ে টানাটানি শুরু হয়েছিল। কেউ অক্সিজেনের অভাবে হন্যে হয়ে ঘুরছিলেন। আবার হাসপাতালগুলোতেও অক্সিজেন পরিষেবা নিয়ে উদ্বেগ তৈরি হয়। তারপরেই অক্সিজেন সঙ্কট মেটাতে একের পর-এক পদক্ষেপ করে স্বাস্থ্য দফতর। এবারে সেই তালিকায় নতুন সংযোজন ‘অক্সিজেন হাব’। কোচবিহার শহরে ইন্ডোর স্টেডিয়ামে স্যাটেলাইট হাসপাতালের পাশেই তৈরি করা হয়েছে ওই হাব। প্রয়োজন মতো সেখান থেকে অক্সিজেন সংগ্রহ করতে পারবেন রোগীরা।

কোচবিহারের সিএমওএইচ রনজিৎ ঘোষ বলেন, ‘‘এমন অনেক রোগী রয়েছে যাঁদের অন্য ধরনের কোন সমস্যা নেই কিন্তু অক্সিজেনের প্রয়োজন রয়েছে। তাঁদেরকে অক্সিজেন সরবরাহ করার জন্যই এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।’’ তিনি জানিয়েছেন, প্রয়োজন মতো স্বাস্থ্য বিভাগের সঙ্গে যোগাযোগ করে এই সুবিধা পাওয়া যাবে। সেখানে প্রয়োজনীয় শয্যা রাখা রয়েছে। সেখানে রোগীদের রেখে অক্সিজেন দেওয়া হবে।

করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে গোটা দেশজুড়ে অক্সিজেন সঙ্কট প্রকাশ্যে আসে। তখন থেকেই অক্সিজেন সঙ্কট মেটাতে তৎপর হয় প্রশাসন ও স্বাস্থ্য দফতর। একাধিক স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ও রাজনৈতিক দলের পক্ষ থেকেও অক্সিজেন পরিষেবা স্বাভাবিক রাখার জন্য উদ্যোগ নেওয়া হয়। কোচবিহারেও অক্সিজেন পরিষেবা নিয়ে পরিকাঠামো তৈরির কাজ শুরু করা হয়। কোচবিহার মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে একটি অক্সিজেন প্ল্যান্ট বসানো হয়। বায়ু থেকে অক্সিজেন সংগ্রহ করে তা সরাসরি রোগীর কাছে পৌঁছনোর কাজ শুরু হয়েছে। এর বাইরে ও মহাকুমা হাসপাতাল গুলিতে অক্সিজেন পাইপ লাইন বসানোর কাজ শুরু করা হয়েছে। পাশাপাশি কোথাও যাতে অক্সিজেন সিলিন্ডারের ঘাটতি না থাকে সেদিকে লক্ষ্য রাখা হচ্ছে। জেলার এক স্বাস্থ্য আধিকারিক জানান, অক্সিজেনের ঘাটতির কথা মাথায় রেখেই ৫০টির উপরে ‘অক্সিজেন কনসেনট্রেটর’ কেনা হয়েছে। যা বিপদের মুহূর্তে করোনা রোগীদের কাছে অক্সিজেন পরিষেবার স্বাভাবিক রাখতে সাহায্য করবে।

স্বাস্থ্য দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে, এমন বেশ কয়েকটি ঘটনা সামনে এসেছে, করোনা রোগীদের শারীরিক অন্য কোনও সমস্যা না থাকলেও একসময় অক্সিজেনের প্রয়োজন হচ্ছে। রাতবিরেতে অনেকেই সেই সমস্যায় পড়েছেন। একাধিক স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন বেশকিছু বাড়িতে অক্সিজেন সিলিন্ডার পৌঁছে দিয়েছে। সেসব কথা মাথায় রেখেই এই ‘হাব’ তৈরি হয়েছে।

স্বাস্থ্য দফতরের এক কর্তার কোথায়, ‘‘দ্বিতীয় ঢেউ এর শুরুতে অক্সিজেনের চাহিদা বেড়ে যায়। জোগান নিয়ে কিছুটা সমস্যা তৈরি হয়। কিন্তু এখন আর কোনও সমস্যা নেই। মানুষ যাতে সহজেই অক্সিজেন পরিষেবা পায় সেই চেষ্টা করা হচ্ছে। ওই হাবে অক্সিজেনের সঙ্গে চিকিৎসকের পরামর্শ পাবেন রোগীরা।’’

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)

অন্য বিষয়গুলি:

Oxygen Coronavirus in North Bengal
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement

Share this article

CLOSE