Advertisement
১৯ জুন ২০২৪
Nishith Pramanik

নিহত বিজেপি কর্মীকে পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে গেলেন নিশীথ, কটাক্ষ তৃণমূলের

শনিবার রাত ১টা নাগাদ ওই বিজেপি কর্মীকে পুলিশ রক্তাক্ত অবস্থায় দিনহাটা মহকুমা হাসপাতালে নিয়ে এলে চিকিৎসকরা তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।

Nishith Pramanik.

নিশীথ প্রামাণিক। —নিজস্ব চিত্র।

আনন্দবাজার অনলাইন সংবাদদাতা
দিনহাটা শেষ আপডেট: ১৮ জুন ২০২৩ ২৩:৩৭
Share: Save:

কোচবিহারে বিজেপি প্রার্থীর দেওরকে কুপিয়ে খুন করার অভিযোগ উঠেছে তৃণমূলের বিরুদ্ধে। দিনহাটা ২ নম্বর ব্লকের কিসামত দশগ্রাম এলাকায় ঘটনাটি ঘটেছে। শনিবার রাত ১টা নাগাদ ওই বিজেপি কর্মীকে পুলিশ রক্তাক্ত অবস্থায় দিনহাটা মহকুমা হাসপাতালে নিয়ে এলে চিকিৎসকরা তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। বিজেপি সূত্রে খবর, মৃত বিজেপি কর্মীর নাম শম্ভু দাস। বৌদি বিশাখা দাস পঞ্চায়েত ভোটে বিজেপির প্রার্থী হয়েছেন। রবিবার তাঁর বাড়িতে যান নিশীথ।

সেখানে গিয়ে তিনি বলেন, ‘‘গতকাল সাহেবগঞ্জ বিডিও অফিসে আমাদের বহু প্রার্থীকে প্রাণনাশের হুমকি দিয়েছিল তৃণমূল। দিনহাটার কিছু কুখ্যাত নেতা রয়েছেন, যাঁরা শম্ভু দাসের মৃত্যুকে নিয়ে কুকথা বলছেন। দিনহাটার এখন অরাজকতা চলছে। বারবার আইনশৃঙ্খলার অবনতি হচ্ছে। পর পর দু’বার আমার গাড়িতে আক্রমণ হয়েছে। এক মাসের মধ্যে দিনহাটা বিধানসভায় দুটো হত্যালীলা চলল। তৃণমূলের পায়ের তলার মাটি সরে গিয়েছে। যখন দেখছে আর লড়াই করে পেরে উঠছে না, তখন আমাদের কর্মীদের প্রাণ কেড়ে নিচ্ছে।’’

পাল্টা উদয়ন বলেন, ‘‘স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী হওয়ার যোগ্যতা নেই নিশীথ প্রামাণিকের। উনি যেখানে যেখানে যাচ্ছেন, সেখানেই সমস্যা তৈরি হচ্ছে। গোলমাল পাকাচ্ছে নিজের ব্যর্থতা নিজের অপদার্থতা ঢাকার জন্য। শম্ভু দাসের মৃত্যু অত্যন্ত দুঃখজনক ঘটনা। কিন্তু সেটা ত্রিমুখী প্রেমের ঘটনা। আমরা সেটা এলাকার মানুষদের থেকে খবর পেয়েছি। প্রত্যেকটা খুনের পিছনে একটা কারণ থাকে। শম্ভু দাস কোনও রাজনৈতিক দল করতেন না। শম্ভুর দাদা-বৌদি খুন হলে তাও বোঝা যেত যে এই কারণে খুন হয়েছে! কিন্তু আমার প্রশ্ন শম্ভুকে কী কারণে তৃণমূল খুন করতে যাবে।’’

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)

অন্য বিষয়গুলি:

Nishith Pramanik BJP
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement

Share this article

CLOSE