Advertisement
২২ জুলাই ২০২৪

মজুরি চেয়ে অবরোধ চা শ্রমিকদের

মজুরি না মেলায় ফের জাতীয় সড়ক অবরোধে করলেন চা শ্রমিকরা৷ এ দিন একসঙ্গে পাঁচটি চা বাগানের শ্রমিকরা জলপাইগুড়ির গোসালা মোড়ে প্রায় দু’ ঘন্টা ধরে ৩১ নম্বর জাতীয় সড়ক অবরোধ করেন৷

জলপাইগুড়ির গোশালা মোড়ে জাতীয় সড়ক অবরোধ। — নিজস্ব চিত্র

জলপাইগুড়ির গোশালা মোড়ে জাতীয় সড়ক অবরোধ। — নিজস্ব চিত্র

নিজস্ব সংবাদদাতা
জলপাইগুড়ি শেষ আপডেট: ২৫ নভেম্বর ২০১৬ ০২:৩৩
Share: Save:

মজুরি না মেলায় ফের জাতীয় সড়ক অবরোধে করলেন চা শ্রমিকরা৷ এ দিন একসঙ্গে পাঁচটি চা বাগানের শ্রমিকরা জলপাইগুড়ির গোসালা মোড়ে প্রায় দু’ ঘন্টা ধরে ৩১ নম্বর জাতীয় সড়ক অবরোধ করেন৷ তবে রিজার্ভ ব্যাঙ্কের নয়া নির্দেশিকার পর এ দিন থেকেই জলপাইগুড়িতে বিভিন্ন বাগান কর্তৃপক্ষ শ্রমিকদের মজুরির টাকা ব্যাঙ্ক থেকে তুলতে শুরু করেছে৷

মজুরি না মেলায় বুধবার জলপাইগুড়ির অসম মোড়ে জাতীয় সড়ক অবরোধ করেছিলেন করলা ভ্যালি চা বাগানের শ্রমিকরা৷ প্রায় সাড়ে পাঁচ ঘন্টা ধরে তাদের সেই অবরোধ চলে৷ এ দিন সেই একই পথে আন্দোলনে সামিল হন ডেঙ্গুয়াঝাড়, রায়পুর, জয়পুর, ভান্ডিবাড়ি ও নেপতি ভ্যালি চা বাগানের শ্রমিকরা৷ তবে শুরুতে জাতীয় সড়ক নয়, রেল অবরোধেরই পরিকল্পনা ছিল তাদের৷ সেই উদ্দেশ্যে বেলা এগারোটা নাগাদ জলপাইগুড়ি রোড স্টেশনে জড়ো হন তারা রেল লাইনে প্রায় আধঘণ্টা বসেনও আন্দোলনকারীরা৷ কিন্তু সেই সময় ওই স্টেশন দিয়ে কোনও ট্রেন না যাওয়ায় বারোটার কিছুক্ষণ আগে থেকে গোসালা মোড়ে জাতীয় সড়ক অবরোধ শুরু করেন তাঁরা৷

শ্রমিকদের এ দিনের এই আন্দোলনে সামিল হন তৃণমূল কংগ্রেসের নেতারাও ৷ শাসকদলের নেতা তথা বারোপাটিয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান কৃষ্ণ দাস বলেন, ‘‘শ্রমিকদের শীঘ্রই মজুরি প্রদান করা হবে বলে প্রশাসন শুধু প্রতিশ্রুতিই দিচ্ছে৷ কাজের কাজ কিছু হচ্ছে না৷ ফলে শ্রমিকরা চরম দুর্ভোগে রয়েছেন৷ সেজন্যই আমরা তাদের পাশে রয়েছি৷’’

এ দিন যে পাঁচটি বাগানের শ্রমিকরা অবরোধে সামিল হন তাদের প্রত্যেকেরই একটি করে মজুরি তো বটেই, এমনকি অনেকের অগ্রিমও বকেয়া পড়ে গিয়েছে৷ ভান্ডিগুড়ি চা বাগানের শ্রমিক সন্টু ঝা কিংবা জয়পুর চা বাগানের শ্রমিক বেলা কুজুরদের কথায়, ‘‘অনেকদিন ধরেই শুনছি প্রশাসন কিছু ব্যবস্থা নিয়েছে আমাদের মজুরি দেওয়ার ব্যাপারে৷ কিন্তু মালিকপক্ষের কাছে গেলেই তারা হাত তুলে নিচ্ছেন৷ মজুরির অভাবে আমরা আর সংসার টানতে পারছি না৷ তাই আন্দোলনে নেমেছি৷ দু’ঘণ্টা ধরে চলা অবরোধের জেরে জাতীয় সড়কে এ দিনও ব্যাপক যানজট সৃষ্টি হয়৷ তবে যাত্রীবাহী অনেক গাড়িকে হলদিবাড়ি মোড় ও পাহাড়পুর মোড় দিয়ে ঘুরিয়ে জলপাইগুড়ি শহরের ভেতর দিয়ে চালানো হয়৷ এ দিকে রিজার্ভ ব্যাঙ্কের নয়া নির্দেশিকার পর এ দিন থেকেই জলপাইগুড়ির বিভিন্ন চা বাগান ব্যাঙ্ক থেকে শ্রমিকদের মজুরির টাকা তুলতে শুরু করেছে৷ ডুয়ার্স ব্রাঞ্চ ইন্ডিয়ান টি অ্যাসোসিয়েশেন সম্পাদক সুমন্ত গুহ ঠাকুরতা জানান, বানারহাটে তাদের সংগঠনের অধীন তেরোটি বাগান এ দিন ব্যাঙ্ক থেকে মজুরির টাকা তুলেছে৷ শুক্রবারই ওই বাগানগুলির শ্রমিকরা মজুরি পাবেন৷ টি অ্যাসোসিয়েশন অব ইন্ডিয়ার সম্পাদক রাম অবতার শর্মা বলেন, ‘‘বারোটি বাগান কর্তৃপক্ষ মালবাজার থেকে এ দিন মজুরির অর্থ তুলেছে ৷ ওই বাগানগুলির শ্রমিকরাও শুক্রবারই মজুরি পেয়ে যাবেন৷’’

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)

অন্য বিষয়গুলি:

Tea worker Wages Strike
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement

Share this article

CLOSE