Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৮ নভেম্বর ২০২১ ই-পেপার

ডাইনি অপবাদ, মহিলাকে মার

রাজু সাহা
শামুকতলা ০৮ জুলাই ২০১৭ ০৩:২৭
প্রতীকী ছবি।

প্রতীকী ছবি।

গত এক মাসে বস্তির চার জন গলায় দড়ি দিয়ে আত্মঘাতী হয়েছেন। এক গুণিনের কাছে গেলে ওই গ্রামে ডাইনি আছে বলে রটিয়ে দেন তিনি। গুণিন ফতোয়া দেন, ওই ডাইনিকে না মারলে গোটা গ্রাম শেষ হয়ে যাবে। এর পরেই এই ঘটনায় এক বিধবা মহিলাকে দায়ী করে তাঁকে ডাইন অপবাদ দিয়ে ব্যাপক মারধর ও লাগাতার অত্যাচার চালানোর অভিযোগ উঠল গ্রামবাসীদের কয়েকজনের বিরুদ্ধে।

ওই মহিলাকে যাতে কেউ কোনও সাহায্য না করে, তার ফরমানও জারি করা হয়। গত চার দিন মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়লেও তাঁকে সাহায্যের জন্য এগিয়ে আসেনি কেউ। গত মঙ্গলবার রাতে আলিপুরদুয়ার জেলার বক্সা ব্যাঘ্র প্রকল্পের জঙ্গল ঘেরা কালকুট বনবস্তিতে ঘটনাটি ঘটেছে। শুক্রবার বিষয়টি জানতে পেরে চেকো বিটের বনাধিকারিক প্রসেনজিৎ পাল ওই গ্রামে গিয়ে মহিলাকে উদ্ধার করতে গেলে গ্রামবাসীদের বাধায় ফিরে আসেন। এরপর কালচিনি থানার ওসি লাকপা লামা ভূটিয়া ও তার পুলিশ বাহিনী নিয়ে গিয়ে ওই মহিলাকে উদ্ধার করে আলিপুরদুয়ার জেলা হাসপাতালে ভর্তি করছে।

গ্রামবাসীরা জানান, গত এক মাসে বস্তির মোট চার জন গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মঘাতী হয়েছেন। সিকিমে শ্রমিকের কাজ করতেন এই গ্রামের বিজয় কুজুর নামে এক যুবক। মঙ্গলবার খবর আসে তিনিও গলায় দিয়ে মারা গিয়েছেন। এর পরেই গ্রামের লোকেরা ওঝার কাছে যান। ওঝা এক মহিলাকে ডাইনি বলার পরেই তাঁকে মারধর করা হয়। পুলিশ সুত্রে জানা গিয়েছে, ওই মহিলার নাম রোশনি মুণ্ডা। তিনি গ্রামে একাই থাকতেন। দুই ছেলে ভিন রাজ্যে শ্রমিকের কাজ করেন। ওই মহিলার অভিযোগ, মঙ্গলবার রাতে হঠাৎ এক দল লোক বাড়িতে চড়াও হয়। তিনি বলেন, ‘‘আমাকে টেনে হিঁচড়ে গ্রামে এক বাড়ির উঠোনে নিয়ে যায়। সেখানে এক ওঝার সামনে আমাকে বসিয়ে দেওয়া হয়। সেই ওঝা আমাকে ডাইন বলতেই অন্তত গ্রামের কুড়ি পঁচিশজন মহিলা পুরুষ আমাকে মারধর করতে থাকে। আমি মাটিতে লুটিয়ে পড়ি। এর পর আমার আর কিছুই মনে নেই।’’ বুধবার অনেক বেলায় তাঁর জ্ঞান ফেরার পর দেখেন ঘরের চৌকিতে পড়ে আছি। পিঠে, বুকে সারা শরীরে প্রচন্ড ব্যথা। কথা বলতে নিশ্বাস নিতে কষ্ট হচ্ছিল তাঁর। তিন দিন কেউ তাঁর খোঁজ নেননি।

Advertisement

চেকো বিটের বিট অফিসার প্রসেনজিৎ পাল বলেন, ‘‘খুবই দুঃখজনক ঘটনা। ওই মহিলাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়েছে। আরও আগে চিকিৎসার প্রয়োজন ছিল। এ যুগে এমন ঘটনা মানা যায় না।’’ কালচিনি থানার ওসি লাকপা লামা ভুটিয়ে জানান, ঘটনার তদন্ত শুরু করা হয়েছে।

আরও পড়ুন

Advertisement