Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৮ নভেম্বর ২০২১ ই-পেপার

COVID 19: করোনা চিকিৎসায় চড়া বিল, শহরের তিন হাসপাতালে রোগী ভর্তি বন্ধ করে দিল রাজ্য

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ১৭ মে ২০২১ ১৭:৪৬
তিন বেসরকারি হাসপাতালে রোগী ভর্তি বন্ধ করার নির্দেশ দিল রাজ্য হেল্থ রেগুলেটরি কমিশন।

তিন বেসরকারি হাসপাতালে রোগী ভর্তি বন্ধ করার নির্দেশ দিল রাজ্য হেল্থ রেগুলেটরি কমিশন।
ছবি পিটিআই।

শহরের তিন বেসরকারি হাসপাতালে রোগী ভর্তি বন্ধ করার নির্দেশ দিল রাজ্য হেল্থ রেগুলেটরি কমিশন। ওই তিন হাসপাতালের বিরুদ্ধে অতিরিক্ত বিলের অভিযোগ ওঠে। কমিশন সেই অভিযোগের ভিত্তিতে স্বতঃপ্রণোদিত ভাবে মামলা রুজু করে। সে কারণেই বেহালা, পার্ক সার্কাস এবং নিউটাউনের ওই বেসরকারি তিন হাসপাতালে আপাতত রোগী ভর্তি বন্ধ বলে নির্দেশ দিয়েছে কমিশন। ঘটনাচক্রে ওই তিন হাসপাতালের মালিকানা একই ব্যক্তির হাতে।

নেটমাধ্যমে ওই তিন হাসপাতালের বিরুদ্ধে অতিরিক্ত বিলের অভিযোগ ওঠে। সেই অভিযোগের ভিত্তিতে তিন হাসপাতালের বিরুদ্ধে তাঁরা মামলা রুজু করেছেন বলে জানিয়েছেন রাজ্য হেল্থ রেগুলেটরি কমিশনের চেয়ারম্যান তথা প্রাক্তন বিচারপতি অসীমকুমার বন্দোপাধ্যায়। করোনার প্রথম তরঙ্গের সময় শহরের একাধিক হাসপাতালের বিরুদ্ধে কোভিড-চিকিত্সায় অতিরিক্ত বিল করে টাকা নেওয়ার অভিযোগ ওঠে। তখনও এখাধিক বেসরকারি হাসপাতালে সাময়িক ভাবে রোগী ভর্তি বন্ধ করে দিয়েছিল কমিশন। দ্বিতীয় ঢেউয়ের প্রাথমিক পর্বেই অতিমারিতে বিলের চাপে যাতে কোনও রোগীর পরিবার হয়রানির শিকার না হয় সে বিষয়ে বেসরকারি হাসপাতালগুলোকে সতর্ক করেছিল কমিশন। অসীমের কথায়, ‘‘তার পরেও একাধিক হাসপাতালের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠছে অতিরিক্ত বিলের। এই ধরনের অভিযোগ হাল্কা ভাবে নেওয়া হবে না।’’

কমিশনের চেয়ারম্যান জানিয়েছেন, ওই তিন হাসপাতালের বিরুদ্ধে নেটমাধ্যমে পাওয়া অভিযোগগুলো সোমবার সংশ্লিষ্ট হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে পাঠানো হয়েছে। মঙ্গলবারের মধ্যে তাঁদের কাছে জবাব তলব করা হয়েছে। একইসঙ্গে ওই তিন হাসপাতালে আরও কোনও রোগীর চিকিত্সায় অতিরিক্ত বিল করা হয়েছে কি না তা-ও খতিয়ে দেখবে কমিশন। সে কারণেই হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে সুস্থ হয়ে যাওয়া একাধিক রোগীর পুরনো বিল চেয়ে পাঠানো হয়েছে। বিল বিশেষজ্ঞদের দিয়ে তা যাচাই করে দেখা হবে বলে জানিয়েছেন কমিশন।

Advertisement

ওই তিন বেসরকারি হাসপাতালে মোট ৩০৮টি বেড রয়েছে। তার মধ্যে কমবেশি ১৮০টি বেড করোনা রোগীদের জন্য সংরক্ষিত বলে জানিয়েছেন অভিযুক্ত হাসপাতালগুলোর ডিরেক্টর চিকিত্সক প্রবীর মুখোপাধ্যায়। কমিশনের নির্দেশ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘‘কমিশনের নির্দেশে তিন হাসপাতালেই সোমবার রোগী ভর্তি করা হচ্ছে না। তদন্তের জন্য কমিশন যে সব নথি চেয়ে পাঠিয়েছে তা দ্রুত পাঠিয়ে দেওয়া হবে।’’

আরও পড়ুন

Advertisement