Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২০ অগস্ট ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

গোঁজ নিয়ে কড়া বার্তা পুরুলিয়াতেও

পুরুলিয়া শহরে গোঁজ কাঁটাই ভাবাচ্ছে শাসকদলকে। তাই পুরভোটের আগে কর্মিসভায় এসে তৃণমূলের বিক্ষুদ্ধ সেই সব ‘নির্দল’ প্রার্থীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা

নিজস্ব সংবাদদাতা
পুরুলিয়া ০২ এপ্রিল ২০১৫ ০০:৫৯
Save
Something isn't right! Please refresh.
কর্মিসভায় বক্তৃতা দিচ্ছেন সেচমন্ত্রী। বুধবার।

কর্মিসভায় বক্তৃতা দিচ্ছেন সেচমন্ত্রী। বুধবার।

Popup Close

পুরুলিয়া শহরে গোঁজ কাঁটাই ভাবাচ্ছে শাসকদলকে। তাই পুরভোটের আগে কর্মিসভায় এসে তৃণমূলের বিক্ষুদ্ধ সেই সব ‘নির্দল’ প্রার্থীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দিয়ে গেলেন দলের তরফে পুরুলিয়ার পর্যবেক্ষক রাজ্যের সেচমন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়।

বুধবার রাজীববাবু পুরুলিয়া শহরের ধর্মশালায় বলেন, ‘‘কেউ যদি ভেবে থাকেন নিজের জন্য উন্নয়ন করব, তাঁদের জায়গা তৃণমূলে নেই। অনেক বিভীষণ, অনেক মিরজাফর তৃণমূলকে শেষ করে দেওয়ার চেষ্টা করছেন। যাঁরা আমাদের প্রার্থীর বিরুদ্ধে অন্য প্রতীক নিয়ে লড়তে নেমেছেন তাঁরা আমাদের প্রার্থী নন। তাঁরা বাজারের প্রার্থী। এ ভাবে যাঁরা বিরোধিতা করছেন তাঁদের ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে চিঠি দিয়ে বহিষ্কার করতে হবে। এই নির্দেশ জেলা সভাপতি শান্তিরাম মাহাতোকে দেওয়া হয়েছে।’’ বস্তুত বাঁকুড়া শহরেও একই সমস্যায় রয়েছে তৃণমূল। সেখানেও মঙ্গলবার কর্মিসভা করতে এসে দলের জেলা পর্যবেক্ষক শুভেন্দু অধিকারী গোঁজ প্রার্থীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার নিদান দিয়ে গিয়েছেন। কলকাতা পুরভোটেও একই ব্যবস্থা নিচ্ছে দল।

পুরুলিয়ার বিদায়ী পুরপ্রধান তারকেশ চট্টোপাধ্যায়-সহ দলের তিন কাউন্সিলরকে টিকিট দেওয়া হয়নি। তারকেশবাবু ও বিদায়ী কাউন্সিলর প্রদীপ মুখোপাধ্যায় তৃণমূল ছেড়ে কংগ্রেসে যোগ দেন। তাঁরা কংগ্রেস সমর্থিত নির্দল প্রার্থী হয়ে লড়াইয়ের ময়দানে নেমে পড়েছেন। নিজের ৩ নম্বর ওয়ার্ড সংরক্ষণের আওতায় পড়ায় এই আসনের কাউন্সিলর সুনয় কবিরাজ তাঁর আসনে দাঁড় করিয়ে দিয়েছেন তাঁর স্ত্রীকে। দলের দুই জেলা নেতা সুদীপ মুখোপাধ্যায় ও গোবিন্দ মুখোপাধ্যায়ও দাঁড়িয়ে পড়েছেন তৃণমূলের বিরুদ্ধে। গোবিন্দবাবু ময়দানে হাজির দীর্ঘদিনের বাম বিরোধী ওয়ার্ড বলে পরিচিত ৭ নম্বর ওয়ার্ডে বিধায়ক কে পি সিংহ দেওয়ের বিরুদ্ধে। সব মিলিয়ে ২৩টি ওয়ার্ডের মধ্যে দলেরই গোঁজ একাধিক ওয়ার্ডে। একজন বাদে সকলেই নির্দল হয়ে ময়দানে।

Advertisement

গোঁজ প্রার্থীদের সম্পর্কে দলের অবস্থান স্পষ্ট না করলে তাঁরা যে দলের প্রার্থীদের কোথাও কোথাও বেগ দিতে পারে এমন ইঙ্গিত মিলেছে পুরপ্রধান হিসেবে লড়াইয়ে নামা দলের মুখ কে পি সিংহ দেওয়ের কথাতেই। তিনি বলেন, ‘‘নির্দল হয়ে যাঁরা লড়ছেন তাঁদের দল থেকে বের করে দিন।’’ মঞ্চেই তিনি রাজীববাবুকে এই অনুরোধ করেন।



পথে এ বার। পুরুলিয়া শহরে ১১ ও ১৬ ওয়ার্ডের সিপিএম প্রার্থীদের নিয়ে মিছিল।

রঘুনাথপুরের পুরভোটেও টিকিট প্রত্যাশী হয়েও দল প্রার্থী না করায় গোঁজ হয়ে ভোটে নেমে পড়েছেন তৃণমূলের অন্তত চারজন। তাঁদের মধ্যে একজন আবার বিদায়ী কাউন্সিলও। সেখানেও বিকেলে কর্মিসভা করতে গিয়ে ওই সব গোঁজদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার কথা শুনিয়েছেন রাজীববাবু। দুই শহরেরই দলীয় কর্মীদের একাংশের ধারণা, শহরের আনাচে কানাচে এমন রটনাও রয়েছে যে দলের টিকিট না পেয়ে যাঁরা নির্দল হয়ে লড়াইয়ে নেমেছেন তাঁরা জয়ী হলে ফের দলে ফিরে আসতে পারেন। এই ভাবনা দূর করতেই এ দিন ওই গোঁজ প্রার্থীদের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেওয়ার কথা শুনিয়েছেন রাজীববাবু। জেলা সভাপতি শান্তিরাম মাহাতোও কর্মিসভায় বলেন, ‘‘একটি বিষয়ে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করছেন কেউ কেউ। আমরা জানাতে চাই যাঁরা তৃণমূলের বিরুদ্ধে নির্দল হয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে নেমেছেন তাঁদের সঙ্গে তৃণমূলের কোনও সম্পর্ক নেই। আমি পরিষ্কার বলতে চাই ভবিষ্যতে তাঁদের তৃণমূলে কোনও স্থান হবে না।’’

এ দিকে, এখনও প্রকাশ্যে ক্ষোভ প্রকাশ না করলেও টিকিট পাওয়ার আশা করেও না পেয়ে অনেকে নেতা-কর্মীই অসন্তুষ্ট। তা আঁচ করে রাজীববাবু এ দিন বলেন, ‘‘দল এখন বড় হয়েছে। একশো জন দাবিদার হতেই পারেন। হয়তো তাঁদের মধ্যে অনেকেই যোগ্য। কিন্তু প্রার্থী একজনই। মনে রাখবেন দলে কোনও বিভেদ নেই, কোন দ্বন্দ্ব নেই। যাঁরা দলকে ছুরি মারবে তাঁদের কোথাও কোনও স্থান নেই।’’ আবার রঘুনাথপুরে তিনি এমনও জানিয়েছেন, যাঁরা টিকিটের আশা করেও পাননি, তাঁরা কাজ করে গেলে দল ভবিষ্যতে তাঁদের কথা ভাববে। সকালে ঝালদায় বৈঠক করেন রাজীববাবু।

গত বছরের মে মাসে কমিটি ভাঙার পরে এখনও কমিটি গঠন হয়নি জেলায়। পুরভোট সামনে থাকায় তাই শীঘ্র একটি জেলা কমিটি গড়া হবে বলে রাজীববাবু পুরুলিয়ায় কর্মীদের জানান।

— নিজস্ব চিত্র।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)


Something isn't right! Please refresh.

Advertisement