Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২০ জানুয়ারি ২০২২ ই-পেপার

MURDER: মোবাইল ফোনের সূত্র ধরেই ঝালদার স্কুল ছাত্রের খুনিকে গ্রেফতার করল পুলিশ

নিজস্ব সংবাদদাতা
পুরুলিয়া ০৬ জুলাই ২০২১ ২৩:১২
অভিযুক্ত ছত্তীশদাস মাহাতো।

অভিযুক্ত ছত্তীশদাস মাহাতো।
নিজস্ব চিত্র।

মোবাইল ফোনের সূত্র ধরে ঝালদায় দশম শ্রেণীর ছাত্র খুনের ঘটনার কিনারা করল পুলিশ। ঘটনার ২ দিনের মাথায় পড়শি রাজ্য ঝাড়খণ্ডের রাঁচি জেলার সিল্লি থানার বিশেরিয়া গ্রাম থেকে ছত্তীশদাস মাহাতো নামে অভিযুক্ত যুবককে গ্রেফতার করা হয়। মঙ্গলবার ধৃতকে পুরুলিয়া আদালতে তোলা হলে ৬ দিনের পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ দেন বিচারক।

গত শনিবার গ্রামের অদূরে সুবর্ণরেখা নদীর ধারে একটি জঙ্গল থেকে ঘুটিয়া গ্রামের কিশোর শিবশঙ্কর মাহাতোর (১৬) মৃতদেহ উদ্ধার হয়। স্থানীয় কলমা-বন্দুলহর উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্র শিবশঙ্করের এই মৃত্যুর ঘটনায় মৃতের বাবা রানাপ্রতাপ মাহাতোর লিখিত অভিযোগের ভিত্তিতে অজ্ঞাত পরিচয় দুষ্কৃতীদের বিরুদ্ধে খুন ও প্রমাণ লোপাটের অভিযোগে মামলা রুজু করে তদন্তে শুরু করে ঝালদা থানার পুলিশ।

পুলিশ স্থানীয় ও পারিবারিক সূত্রে জানতে পারে প্রত্যেক দিনের মত শনিবার সকালে প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিয়ে ওই যুবক বাড়ি থেকে সুবর্ণরেখা নদীর উদ্দেশে বেরিয়ে আর ফেরেনি। এর পরেই বাড়ির লোকজন খোঁজখবর শুরু করেন। শনিবার বিকেলে নিহত যুবকের জেঠু প্রসেনজিৎ মাহাতো দেখতে পান সুবর্ণরেখা নদীর তীরে খেরবন পলাশ জঙ্গলে রক্তাক্ত অবস্থায় উপুড় হয়ে ওই যুবকের মৃতদেহ পড়ে আছে। মৃতদেহের পাশেই পড়ে আছে তার মোবাইল ফোনটি।

Advertisement

সে দিন সন্ধ্যায় পুলিশ গিয়ে মৃতদেহটি উদ্ধার করে। বাজেয়াপ্ত করে ফোনটিও। রবিবার দেহের ময়নাতদন্ত হয় দেবেন মাহাতো গভর্মেন্ট মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালের মর্গে। প্রাথমিক ভাবে পুলিশ জানতে পারে, নিহত কিশোরের মাথায় ধারালো অস্ত্রের আঘাত রয়েছে ।

এই ঘটনার কিনারা করতে উদ্ধার হওয়া মোবাইল ফোনের সূত্র ধরেই এগোয় পুলিশ। আর তাতেই সাফল্য আসে। পুলিশ জানায়, সুবর্ণরেখা নদীর এপার-ওপার দুই রাজ্যের এই দু’টি গ্রাম। পুলিশি জেরার ধৃত ছত্তীশ জানায়, তাঁর বোনের সঙ্গে শিবশঙ্করের প্রণয়ের সম্পর্ক ছিল। একটি মোবাইল ফোনকে কেন্দ্র করে ঝামেলা হয় আর তাতেই রেগে গিয়ে সে কুড়ুল দিয়ে কুপিয়ে খুন করেছে।

পুলিশ সূত্রে খবর ধৃতের বোনের সঙ্গে নিহত কিশোরের প্রণয়ের সম্পর্ক গড়ে উঠেছিল কয়েক বছর ধরে। খুন হওয়ার আগের দিন নিহত শিবশঙ্কর তাঁর প্রেমিকাকে একটি মোবাইল ফোন দেয়। সেই ফোন পরের দিন আনতে গেলে ফোন দেওয়ার কথা অস্বীকার করে তার প্রেমিকা। এই নিয়ে শিবশঙ্কর এর সঙ্গে ঝামেলা বাধে ছত্তীশের।

শিবশঙ্কর বিশেরিয়া গ্রাম থেকে সুবর্ণরেখা নদীর পেরিয়ে নিজের গ্রামের কাছে ওই পলাশ জঙ্গলে বসে তাঁর বন্ধুদের ফোন করেছিল। এমন সময় ক্রোধ বসত একটি কুড়ুল দিয়ে শিবশঙ্করের মাথায় পেছনে আঘাত করে ছত্তীশ। এর ফলে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। পুলিশ সূত্রের খবর, ধৃতকে নিজেদের হেফাজতে নিয়ে ঘটনার পুনঃনির্মাণ করা হবে।

আরও পড়ুন

Advertisement