Advertisement
২১ এপ্রিল ২০২৪
rajeev kumar

সুপ্রিম কোর্টে রাজীবকে গ্রেফতারের আবেদন সিবিআইয়ের, পুলিশ কর্তার বিরুদ্ধে নোটিস জারি করল আদালত

তদন্তকারী সংস্থাকে উপযুক্ত তথ্যপ্রমাণ দিয়ে আদালতকে সন্তুষ্ট করতে হবে যে, রাজীব কুমারকে গ্রেফতার করা প্রয়োজন।

রাজ্যের শীর্ষ পুলিশ কর্তা রাজীব কুমার। গ্রাফিক: শৌভিক দেবনাথ।

রাজ্যের শীর্ষ পুলিশ কর্তা রাজীব কুমার। গ্রাফিক: শৌভিক দেবনাথ।

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা শেষ আপডেট: ২৯ নভেম্বর ২০১৯ ১৩:০৪
Share: Save:

সারদা মামলায় রাজীব কুমারের বিরুদ্ধে নোটিস জারি করল শীর্ষ আদালত। শুক্রবার কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা সিবিআইয়ের করা রাজীবের জামিন খারিজের আবেদনের শুনানির শেষে সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতির বেঞ্চ নোটিস জারির নির্দেশ দেন।

এ দিন শুনানির শুরুতেই সিবিআইয়ের আইনজীবী রাজ্যের শীর্ষ পুলিশ কর্তা রাজীব কুমারের জামিন খারিজ করার আবেদন জানান। তিনি আদালতকে জানান, তদন্তের প্রয়োজনে রাজীব কুমারকে গ্রেফতার করে হেফাজতে নিয়ে জেরা করা প্রয়োজন। সেই সঙ্গে সিবিআইয়ের আইনজীবী আদালতে জানান, দীর্ঘ সময় রাজীব কুমারের সঙ্গে কোনও ভাবে যোগাযোগ করা যায়নি। দীর্ঘ সময় রাজীব কুমার কার্যত ফেরার ছিলেন। বার বার তাঁকে জেরা করার জন্য সমন পাঠালেও তিনি সিবিআই দফতরে হাজির হননি বলেই জানিয়েছেন গোয়েন্দা সংস্থার আইনজীবী।

সিবিআইয়ের সওয়ালের পর এ দিন প্রধান বিচারপতি মন্তব্য করেন, ‘‘নোটিস জারি করা হল কারণ, তাঁর বিরুদ্ধে ফেরার হওয়ার উদাহরণ পাওয়া গিয়েছে।” তবে একই সঙ্গে প্রধান বিচারপতি সিবিআইয়ের আইনজীবীকে এটাও স্পষ্ট করে দেন, তদন্তকারী সংস্থাকে উপযুক্ত তথ্যপ্রমাণ দিয়ে আদালতকে সন্তুষ্ট করতে হবে যে, রাজীব কুমারকে গ্রেফতার করা প্রয়োজন। কারণ রাজীব কুমার এক জন উচ্চপদে থাকা পুলিশ আধিকারিক।

আরও পড়ুন: রাজীব পরোক্ষে অভিযুক্ত, মনে করছেন কৌঁসুলিরাই

রাজীব নিয়ে শুনানি পিছিয়ে শুক্রবার

এর আগে সিবিআই বিভিন্ন সময়ে রাজীব কুমারের বিরুদ্ধে সারদা মামলার তদন্তে অসহযোগিতা এবং তথ্যপ্রমাণ লোপাটের অভিযোগ এনে ওই পুলিশ কর্তাকে গ্রেফতারের আবেদন জানায় নিম্ন আদালতে। আলিপুর আদালত রাজীবের আগাম জামিনের আবেদন খারিজ করে এবং নির্দেশ দেয় যে, রাজীবকে গ্রেফতারে কোনও বাধা নেই। এর পরেই কলকাতা হাইকোর্টের দ্বারস্থ হন রাজ্যের এডিজি সিআইডি রাজীব কুমার। গত ১ অক্টোবর কলকাতা হাইকোর্ট তাঁর আগাম জামিন মঞ্জুর করলে এক মাসেরও বেশি সময় অন্তরালে থাকা রাজীব কুমার প্রকাশ্যে আসেন এবং আলিপুর নিম্ন আদালত থেকে জামিন নিশ্চিত করেন। এর পরেই সিবিআই তাঁর জামিন খারিজের আবেদন নিয়ে হাজির হয়েছিল শীর্ষ আদালতে। সেই আবেদনের প্রথম শুনানি হল এ দিন।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE