Advertisement
৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২
by election

By Election: ভবানীপুর-সহ ৭ বিধানসভা কেন্দ্রের উপনির্বাচনের প্রস্তুতি শুরু করে দিল কমিশন

নির্বাচন কমিশনের এই তৎপরতা দেখে শাসক শিবিরের ধারণা, আগামী কয়েক মাসের মধ্যেই ভবানীপুর-সহ সাতটি আসনে উপনির্বাচন হতে পারে।

প্রতীকী ছবি।

প্রতীকী ছবি।

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা শেষ আপডেট: ০৩ জুলাই ২০২১ ১২:১৮
Share: Save:

ভবানীপুর-সহ রাজ্যের ৭টি বিধানসভা কেন্দ্রের নির্বাচনের প্রস্তুতি শুরু করে দিল নির্বাচন কমিশন। কমিশনের পক্ষ থেকে রাজ্য সরকারের কাছে জানতে চাওয়া হয়েছিল, রাজ্যের শূন্য দুই রাজ্যসভা আসনে উপনির্বাচন করা সম্ভব কি না। উত্তরে শুক্রবার নবান্ন জানায় শুধু রাজ্যসভা নয়, ৭টি বিধানসভার নির্বাচনও করা সম্ভব। যদিও রাজ্য সরকারের উত্তর পাওয়ার আগেই উপনির্বাচনের বিষয়ে উদ্যোগী হতে শুরু করেছে কমিশন। দক্ষিণ কলকাতার গোপালনগরে সার্ভে বিল্ডিংয়ে সব রাজনৈতিক দলের প্রতিনিধির উপস্থিতিতে ইভিএম ও পোস্টাল ব্যালট পরীক্ষার কাজ শুরু হয়েছে। দক্ষিণ কলকাতার চারটি বিধানসভা কেন্দ্রে যে সমস্ত ইভিএম কাজে লাগানো হয়েছিল, মূলত সেগুলিরই পরীক্ষার কাজ শুরু হয়েছে।

আগামী সপ্তাহের সোম, মঙ্গল ও বুধবারও সার্ভে বিল্ডিংয়ে এই কাজ হওয়ার কথা। নির্বাচন কমিশনের এই তৎপরতা দেখে শাসক শিবিরের ধারণা, আগামী কয়েক মাসের মধ্যেই ভবানীপুর-সহ সাতটি আসনে উপনির্বাচন হতে পারে। কমিশন সূত্রে খবর, ভবানীপুর, রাসবিহারী, বালিগঞ্জ ও কলকাতা পোর্টে যেসব ইভিএম ভোটের কাজে লাগানো হয়েছিল, মূলত সেগুলিকে এখানে পরীক্ষার কাজ করা হচ্ছে। ওই ইভিএমগুলিতে থাকা পুরনো সিল যেমন কেটে ফেলা হচ্ছে, তেমনই ইভিএমগুলি ‘ক্লিয়ার’ করার কাজ হচ্ছে দ্রুততার সঙ্গে। আর এই ইভিএম ‘ক্লিয়ার’ করার কাজকে উপনির্বাচনের প্রস্তুতি হিসেবে ধরছে রাজনৈতিক দলগুলি। শুক্রবার রাজ্য সরকার উপনির্বাচন করার বিষয়ে নির্বাচন কমিশনকে সবুজ সঙ্কেত দিতেই উপ-নির্বাচন প্রক্রিয়া আরও গতি পাবে বলেই মনে করছে কমিশনের এক আধিকারিক।

প্রসঙ্গত, ৭ উপনির্বাচনের মধ্যে সবচেয়ে বেশি আগ্রহ ভবানীপুর কেন্দ্রকে নিয়েই। কারণ এই বিধানসভা কেন্দ্রে তৃণমূলের প্রার্থী হতে পারেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ২১ মে কৃষিমন্ত্রী শোভনদেব চট্টোপাধ্যায় ভবানীপুর বিধানসভা আসন থেকে পদত্যাগের পর সেই সম্ভাবনাই জোরালো হয়েছে। ভবানীপুর ছাড়াও দিনহাটা ও শান্তিপুর থেকে যথাক্রমে বিধায়ক পদ ত্যাগ করেছেন সাংসদ নিশীথ প্রামাণিক ও জগন্নাথ সরকার। সেই কারণেই উপনির্বাচন হবে সেখানেও। এছাড়া, খড়দহে ফলাফল ঘোষণার আগেই করোনা সংক্রমণে প্রয়াত হন বিজয়ী তৃণমূল প্রার্থী কাজল সিংহ। সম্প্রতি প্রয়াত হয়েছেন গোসাবার বিধায়ক জয়ন্ত নস্কর। আর করোনা সংক্রমনে প্রার্থীদের মৃত্যুর কারণে নির্দিষ্ট সময় ভোট করা যায়নি মুর্শিদাবাদ জেলার জঙ্গিপুর ও সামশেরগঞ্জে। তাই মুখ্য নির্বাচন কমিশনের পশ্চিমবঙ্গের দফতরে তৎপরতা এই ৭টি বিধানসভার নির্বাচন নিয়ে।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.