Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

১৯ অক্টোবর ২০২১ ই-পেপার

ধর্ম বিদ্বেষী মন্তব্য সেনেটরের, মাথায় ডিম ফাটিয়ে ‘শিক্ষা’ দিল কিশোর

সংবাদ সংস্থা
মেলবোর্ন ১৭ মার্চ ২০১৯ ১৪:৩১
সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি ফ্রেজার অ্যানিং, পিছনে সেই কিশোর। ছবি: টুইটার থেকে সংগৃহীত।

সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি ফ্রেজার অ্যানিং, পিছনে সেই কিশোর। ছবি: টুইটার থেকে সংগৃহীত।

ধর্ম বিদ্বেষী মন্তব্য সেনেটরের। মাথায় কাঁচা ডিম ফাটিয়ে তাঁকে ‘উচিত শিক্ষা’ কিশোরের। সেই নিয়ে হূলস্থূল অস্ট্রেলিয়ায়। ইতিমধ্যে ইন্টারনেটেও ভাইরাল হয়ে গিয়েছে সেই ভিডিয়ো। সেখানে ওই কিশোরের প্রশংসাই করেছেন অধিকাংশ নেটিজেন।

অস্ট্রেলিয়ার কুইন্সল্যান্ডের সেনেটর ফ্রেজার অ্যানিং। নিউজিল্যান্ডেক্রাইস্টচার্চে সন্ত্রাস হামলা নিয়ে সম্প্রতি বিতর্কিত মন্তব্য করেছিলেন তিনি। হামলাকারীর সমালোচনার পরিবর্তে মুসলিম শরণার্থী ও অভিবাসীদের উপরই গোটা ঘটনার দায় চাপিয়েছিলেন। টুইটারে তিনি বলেন, ‘সাধারণত মুসলিমরাই এই ধরনের নাশকতা চালায়। সেই তুলনায় ক্রাইস্টচার্চের ঘটনা ব্যাতিক্রম। এই প্রথম মুসলিমদের হামলার শিকার হতে হল।’

নিউজিল্যান্ডের অভিবাসী আইন নিয়েও প্রশ্ন তোলেন ফ্রেজার অ্যানিং। ভারত-সহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে মুসলিম অভিবাসী এবং শরণার্থীরা সেখানে আশ্রয় নিয়েছে। তা নিয়ে কটাক্ষ করে তিনি বলেন,‘‘এখনও বলবেন সন্ত্রাসের সঙ্গে মুসলিমদের কোনও যোগ নেই? মুসলিমদের জন্যই আজ রক্তাক্ত নিউজিল্যান্ড। অবশ্য তাদের অভিবাসী নীতিও এর জন্য দায়ী। যেচে পড়ে ধর্মান্ধ মুসলিমদের আশ্রয় দিয়েছিল। এখন তার ফল ভুগছে।’’

Advertisement

এই ভিডিয়োই ভাইরাল হয়েছে।

আরও পড়ুন: ক্রাইস্টচার্চ কাণ্ডে নিহত পাঁচ ভারতীয়, মৃত্যু বেড়ে ৫০​

আরও পড়ুন: ব্রেন্টনকে আটকানো পাক নায়কের মৃ্ত্যু​

তাঁর সেই মন্তব্য নিয়ে বিতর্ক বাধতে সময় লাগেনি। যার পর শুক্রবার মেলবোর্নে সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হন তিনি। সেই সময় মোবাইলের ক্যামেরা অন করে তাঁর পিছনে এসে দাঁড়ায় বছর সতেরোর এক কিশোর। একহাতে ভিডিয়ো রেকর্ডিং করছিল সে। অন্যহাতে পকেট থেকে ডিম বের করে আচমকাই ফ্রেজার অ্যানিংয়ের মাথায় ফাটিয়ে দেয়।বিষয়টি বোধগম্য হতেই পিছন ফিরে ছেলেটিকে দু’ঘা বসিয়ে দেন ফ্রেজার। কিন্তু স্থানীয় লোকজন তাঁকে নিরস্ত করেন।

ঘটনাস্থলে সংবাদমাধ্যমের উপস্থিতিতে ভিডিয়োটি ভাইরাল হতে সময় লাগেনি। তবে সকলেই ওই কিশোররে প্রশংসা করেছেন। বরং তার গাতে হাত তোলার জন্য সেনেটরের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করারও দাবি তুলেছেন অনেকে। এ নিয়ে এখনও পর্যন্ত কিছু জানায়নি অস্ট্রেলিয়া প্রশাসন। ঘটনার পর ওই কিশোরকে কিছু ক্ষণ আটকে রাখা হয়েছিল। তবে শেষমেশ ছেড়ে দেওয়া হয় তাকে।

(সারা বিশ্বের সেরা সব খবর বাংলায় পড়তে চোখ রাখতে পড়ুন আমাদের আন্তর্জাতিক বিভাগে।)

আরও পড়ুন

Advertisement