Advertisement
০৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৩
Lancet Journal

ভারতীয় টিকা কোভ্যাক্সিনে বাড়ে প্রতিরোধ ক্ষমতা, জানাল ব্রিটিশ জার্নাল

১৩ থেকে ৩০ জুলাই মানব দেহে পরীক্ষার ৩৭৫ জন স্বেচ্ছাসেবকের উপর সমীক্ষার ভিত্তিতে ল্যানসেটের প্রতিবেদনটি প্রকাশিত হয়েছে।

প্রতীকী ছবি।

প্রতীকী ছবি।

সংবাদ সংস্থা
নয়াদিল্লি শেষ আপডেট: ২২ জানুয়ারি ২০২১ ১৮:০৯
Share: Save:

ভারতে তৈরি করোনা টিকা কোভ্যাক্সিন দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে তুলতে সক্ষম। ব্রিটেনের মেডিক্যাল জার্নাল ল্যানসেট এ কথা জানিয়েছে। প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ‘দেশে ৩৭৫ জন অংশগ্রহণকারীর উপর সমীক্ষার ফল বলছে, ‘প্রয়োগের ১৪ দিনের মধ্যেই তা সহনীয় হয়েছে এবং দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি পেয়েছে’।

Advertisement

ল্যানসেট-এর প্রতিবেদন জানাচ্ছে, তথ্য বিশ্লেষণ করে দেখা গিয়েছে কোভ্যাক্সিন গ্রহিতাদের দেহে কোনও বিরূপ প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।

‘ইন্ডিয়ান কাউন্সিল ফর মেডিক্যাল রিসার্চ' (আইসিএমআর)-এর সঙ্গে হাত মিলিয়ে কোভ্যাক্সিন তৈরি করেছে হায়দরাবাদের সংস্থা ‘ভারত বায়োটেক ইন্টারন্যাশনাল লিমিটেড' (বিবিআইএল)। পুণের সরকারি সংস্থা ‘ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব ভাইরোলজি (এনআইভি)’র গবেষণাগারে বানানো কোভিড-১৯ ভাইরাসের স্ট্রেন থেকেই তৈরি হয়েছে সম্পূর্ণ ভারতীয় টিকা।

জরুরি ভিত্তিতে ব্যবহারের জন্য ‘ড্রাগ কন্ট্রোল জেনারেল অব ইন্ডিয়া’-র ছাড়পত্র পাওয়ার পরে গণ টিকাকরণ অভিযানেও শামিল করা হয়েছে কোভ্যাক্সিনকে। অ্যাস্ট্রাজেনেকা এবং অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের যৌথ গবেষণায় তৈরি কোভিশিল্ড টিকাও গণ টিকাকরণে ব্যবহৃত হচ্ছে। ভারতে এই টিকা তৈরি করছে পুণের সেরাম ইনস্টিটিউট অফ ইন্ডিয়া।

Advertisement

গত ১৩ থেকে ৩০ জুলাই মানব দেহে পরীক্ষার (হিউম্যান ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল) সময় ১১টি কেন্দ্রে ৩৭৫ জন কোভ্যাক্সিন স্বেচ্ছাসেবকের উপর সমীক্ষার ভিত্তিতে ল্যানসেটের প্রতিবেদনটি প্রকাশিত হয়েছে। সে সময় ১৪ দিনের ব্যবধানে প্রয়োগ করা হয়েছিল দ্বিতীয় ডোজটি। এর পরে প্রত্যেক অংশগ্রহণকারীর রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বেড়েছিল বলে প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.