Advertisement
০৬ ডিসেম্বর ২০২২

সঙ্গী বাড়ছে ভারতের, বিচ্ছিন্ন হচ্ছে পাকিস্তান, ঘোর উদ্বেগে পাক সেনা

ছাবাহার বন্দর চুক্তি প্রবল চাপে ফেলে দিয়েছে পাকিস্তানকে। ভারত, ইরান, আফগানিস্তান— এই নতুন অক্ষের হাতে প্রায় ঘেরাও হয়ে গিয়েছে পাকিস্তান। শুধু তাই নয়, চিন-পাকিস্তান যৌথ উদ্যোগে তৈরি গোয়াদর বন্দরের গুরুত্বও এক ধাক্কায় অনেক কমিয়ে দিয়েছে ভারতের ছাবাহার চুক্তি।

নিজস্ব প্রতিবেদন
শেষ আপডেট: ০৫ জুন ২০১৬ ২০:০৩
Share: Save:

ছাবাহার বন্দর চুক্তি প্রবল চাপে ফেলে দিয়েছে পাকিস্তানকে। ভারত, ইরান, আফগানিস্তান— এই নতুন অক্ষের হাতে প্রায় ঘেরাও হয়ে গিয়েছে পাকিস্তান। শুধু তাই নয়, চিন-পাকিস্তান যৌথ উদ্যোগে তৈরি গোয়াদর বন্দরের গুরুত্বও এক ধাক্কায় অনেক কমিয়ে দিয়েছে ভারতের ছাবাহার চুক্তি। ভারতের বিদেশনীতি গোটা বিশ্বের কাছ থেকে বিচ্ছিন্ন করে দিচ্ছে পাকিস্তানকে, এমনই আলোচনা শুরু হয়ে গিয়েছে পাকিস্তানের আমলা মহলে।

Advertisement

ইসলামাবাদ যে রীতিমতে আতঙ্কে, তা প্রকাশ পেয়েছে পাক সেনার দুই অবসরপ্রাপ্ত শীর্ষ কর্তার কথায়। শুধু সেনার শীর্ষ কর্তাই নন লেফটেন্যান্ট জেনারেল ইয়াসিন মালিক এবং লেফটেন্যান্ট জেনারেল নাদিম লোদি পাকিস্তানের বিদেশ সচিবও ছিলেন। পাকিস্তানের স্ট্র্যাটেজিক ভিশন ইনস্টিটিউট আয়োজিত সেমিনারে ‘জাতীয় নিরাপত্তা এবং দক্ষিণ এশিয়ার ভারসাম্য’ নিয়ে আলোচনায় ইয়াসিন মালিক এবং নাদিম লোদি ইরানের ছাবাহারে ভারতীয় বন্দর নিয়ে ঘোর আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন। এই দুই অবসরপ্রাপ্ত পাক আমলাই নিজেদের ভাষণে খুব স্পষ্ট করে বলেছেন, ছাবাহারের বন্দর এবং ভারত-ইরান-আফগানিস্তান ঘনিষ্ঠতা পাকিস্তানের জাতীয় নিরাপত্তার পক্ষে একটি প্রত্যক্ষ বিপদ।

প্রথমত, ছাবাহারে ভারত বন্দর তৈরি করায় মধ্য এশিয়ার সব দেশ এবং তেল সমৃদ্ধ দেশগুলিতে পৌঁছনোর জন্য গোটা বিশ্বের সামনে নতুন পথ খুলে যাচ্ছে। পাকিস্তান এবং চিন এর আগে ভেবেছিল, পাকিস্তানের গোয়াদর বন্দরই গোটা বিশ্বের কাছে অপরিহার্য হয়ে উঠবে। কিন্তু ছাবাহার চুক্তি সে পরিকল্পনা ভেস্তে দিয়েছে।

আরও পড়ুন:

Advertisement

পাশেই আছি, ঘানিকে বার্তা দিলেন মোদী

দ্বিতীয়ত, ভারতের সঙ্গে আফগানিস্তানের যে নিবিড় সম্পর্ক তৈরি হচ্ছে, পাকিস্তান তাতে বাধা দেওয়ার চেষ্টা করছিল। আফগানিস্তান পৌঁছনোর মূল পথগুলি পাকিস্তান হয়েই যায়। ভারত থেকে আফগানিস্তানে পণ্য পাঠানোর পথ পাকিস্তান বন্ধ করে দিচ্ছিল এবং আফগানিস্তানকে তাদের উপর নির্ভরশীল হওয়ার জন্য চাপ দিচ্ছিল। ইরানের ছাবাহারে বন্দর তৈরি করে ভারত এ বার আফগানিস্তান পৌঁছনোর নতুন পথ খুঁজে নিল। ফলে ভারত-আফগান সুসম্পর্ককে ভেস্তে দেওয়া পাকিস্তানের পক্ষে আরও কঠিন হয়ে গেল।

তৃতীয়ত, ভারত ইরানে শুধু বন্দর তৈরি করছে না, ইরানের মধ্যে দিয়ে আফগানিস্তান পর্যন্ত নতুন রাস্তা এবং রেলপথও বানাবে। ফলে ইরানের সঙ্গেও ভারতের সম্পর্ক নতুন মাত্রা পাচ্ছে। এর জেরে ভারত এবং তার সহযোগী দেশগুলির হাতে পাকিস্তান তিন দিক দিয়ে ঘেরাও হয়ে যাচ্ছে।

এই বিষয়গুলির কারণেই পাকিস্তানের মাথায় আকাশ ভেঙে পড়েছে। ইয়াসিন মালিক ও নাদিম লোদি নিজেদের ভাষণে এক সুরে বলেছেন, বর্তমান আন্তর্জাতিক পরিস্থিতির প্রেক্ষিতে পাকিস্তান ক্রমশ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ছে। দুই অবসরপ্রাপ্ত সেনা কর্তাই বলেছেন, এই পরিস্থিতির জন্য পাকিস্তান নিজেই দায়ী। বিশ্বের বড় শক্তিগুলির অধিকাংশই পাকিস্তান সম্পর্কে বিরূপ বলেও তাঁরা স্বীকার করেছেন।

ইয়াসিন মালিক ও নাদিম লোদি অবশ্য মনে করছেন, পাক সেনা বা আইএসআই এর জন্য দায়ী নয়। পাকিস্তানের বিদেশ মন্ত্রকের ব্যর্থতাতেই দেশ ক্রমশ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ছে।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.