Advertisement
২০ জুলাই ২০২৪
West Asia War

বদলার হুঁশিয়ারি হুথিদের, আমেরিকা, ব্রিটেনের যৌথ হামলার পর পাল্টা প্রতিজ্ঞা করল ইরান-ঘনিষ্ঠ গোষ্ঠী

ইয়েমেনের ১৩টি জায়গায় ৩৬টি হুথি ঘাঁটি চিহ্নিত করে শনিবার হামলা চালিয়েছে আমেরিকা এবং ব্রিটেন। ইরান-ঘনিষ্ঠ গোষ্ঠী এই হামলার পরেই পাল্টা হুঁশিয়ারি দিয়েছে।

আমেরিকা, ব্রিটেনের বিরুদ্ধে পাল্টা হুঁশিয়ারি হুথিদের।

আমেরিকা, ব্রিটেনের বিরুদ্ধে পাল্টা হুঁশিয়ারি হুথিদের। —ফাইল চিত্র।

আনন্দবাজার অনলাইন ডেস্ক
কলকাতা শেষ আপডেট: ০৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ১৪:৫৮
Share: Save:

আমেরিকা, ব্রিটেনের যৌথ হামলার কয়েক ঘণ্টা পরে জবাব এল ইরান-ঘনিষ্ঠ গোষ্ঠী হুথি শিবির থেকে। ইয়েমেনে তাদের ৩৬টি ঘাঁটিতে হামলা চালিয়েছে আমেরিকা এবং ব্রিটেন। তাদের সঙ্গে আরও ছ’টি দেশ হাত মিলিয়েছিল। এই হামলার পর প্রতিশোধের প্রতিজ্ঞা করে বসল হুথিরা। তাদের তরফে জানানো হয়েছে, আক্রমণ করে তাদের দমিয়ে রাখা যাবে না। বরং এই আক্রমণের উপযুক্ত জবাব দেবে তারা। আক্রমণকারীদের শাস্তি দেবে বলেও জানিয়েছে হুথিরা।

ইয়েমেনের ১৩টি জায়গায় ৩৬টি হুথি ঘাঁটি চিহ্নিত করে শনিবার হামলা চালিয়েছে আমেরিকা এবং ব্রিটেন। তাদের যৌথ বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, লোহিত সাগর সংলগ্ন এলাকায় আন্তর্জাতিক এবং বাণিজ্যিক যাতায়াতে দীর্ঘ দিন ধরে ব্যাঘাত সৃষ্টি করছে হুথিরা। সেই কারণেই এই হামলা করা হয়েছে। অস্ট্রেলিয়া, বাহরিন, কানাডা, ডেনমার্ক, নেদারল্যান্ডস এবং নিউ জ়িল্যান্ডের মতো দেশও এই হামলায় আমেরিকা এবং ব্রিটেনকে সহযোগিতা করেছে।

হুথিদের সামরিক মুখপাত্র রবিবার এক্স হ্যান্ডেলে পোস্ট করে আমেরিকার হামলার বিরুদ্ধে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন। তিনি লিখেছেন, ‘‘আমাদের ঘাঁটিতে ৪৮টি ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালানো হয়েছে। তবে এই আক্রমণ গাজ়ায় প্যালেস্টাইনিদের পক্ষ থেকে আমাদের দূরে সরিয়ে দিতে পারবে না। আমরা তাদের সমর্থন করবই।’’ তিনি আরও বলেন, ‘‘এই আক্রমণের শাস্তি হবেই। আমরা চুপ করে বসে থাকব না।’’

এর আগে আমেরিকা এবং ব্রিটেন যৌথ ভাবে বিবৃতি দিয়ে হুথি ঘাঁটিতে ক্ষেপণাস্ত্র বর্ষণের কথা জানিয়েছিল। ইয়েমেনের মাটিতে যে সমস্ত গোপন ডেরায় হুথিরা তাদের অস্ত্রশস্ত্র সরবরাহ করে, সেখানে হামলা চালানো হয়েছে বলে তাদের দাবি। যৌথ বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, ‘‘বিশ্ব বাণিজ্যকে ব্যাহত করা, নিষ্পাপ প্রাণ হত্যা করার যে যজ্ঞ হুথিরা শুরু করেছে, তা ছন্নছাড়া করতেই এই হামলা।’’ এর আগে শনিবারই লোহিত সাগরের জাহাজে হামলা চালাতে হুথিদের তাক করে রাখা ক্ষেপণাস্ত্র ধ্বংস করেছিল আমেরিকা। গুলি করে নামানো হয়েছিল আটটি ড্রোনও।

কিছু দিন আগে জর্ডনে সিরিয়া সীমান্তের কাছে আমেরিকান বাহিনীর ওপর ড্রোন হামলা চালানো হয়। আমেরিকার দাবি, এই হামলার নেপথ্যে রয়েছে ইরান। ওই হামলায় আমেরিকার তিন জন সৈনিকের মৃত্যু হয়েছে। আহত হয়েছেন আরও অনেকে। হামলার পরেই আমেরিকান প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন প্রত্যাঘাতের হুঁশিয়ারি দিয়েছিলেন। তার পর দেখা যায়, শুক্রবার ইরাক এবং সিরিয়ায়, ইরানের বাহিনী এবং তেহরান সমর্থিত সশস্ত্র বাহিনীর উপর যুদ্ধবিমান দিয়ে হামলা চালিয়েছে ওয়াশিটন। তাতে সিরিয়ায় ১৮ জঙ্গি নিহত হয়েছে বলে পেন্টাগন সূত্রে খবর। যদিও ইরানের মাটিতে সরাসরি হামলা চালায়নি আমেরিকা। তার এক দিন পরেই আমেরিকা এবং ব্রিটেনের যৌথ প্রচেষ্টায় হুথিদের ঘাঁটিতে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালানো হল।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)

অন্য বিষয়গুলি:

West Asia Houthis Iran US UK
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement

Share this article

CLOSE