Advertisement
০৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৩

ফিরলেন ৩৫৮ ভারতীয়

যুদ্ধবিধ্বস্ত ইয়েমেন থেকে ভারতীয় নৌবাহিনীর জাহাজ আইএনএস সুমিত্রা তাঁদের পৌঁছে দিয়েছিল জিবুতিতে। সেখান থেকে বায়ুসেনার দু’টি বিশেষ বিমানে আজ সকালে মুম্বই ও কোচিতে এসে পৌঁছলেন ৩৫৮ জন ভারতীয়। এঁদের মধ্যে কলকাতা-সহ পশ্চিমবঙ্গের জনা ত্রিশেক বাসিন্দা রয়েছেন। ইয়েমেনের অল-হুদাইদাহ বন্দর থেকে আজ আরও ৩০০ জন ভারতীয়কে নিয়ে জিবুতির উদ্দেশে রওনা দিয়েছে সুমিত্রা। তবে চেষ্টা চলছে ইয়েমেন থেকেই সরাসরি বিমানে করে ভারতীয়দের ফেরানোর।

সংবাদ সংস্থা
নয়াদিল্লি ও সানা শেষ আপডেট: ০৩ এপ্রিল ২০১৫ ০২:৫৮
Share: Save:

যুদ্ধবিধ্বস্ত ইয়েমেন থেকে ভারতীয় নৌবাহিনীর জাহাজ আইএনএস সুমিত্রা তাঁদের পৌঁছে দিয়েছিল জিবুতিতে। সেখান থেকে বায়ুসেনার দু’টি বিশেষ বিমানে আজ সকালে মুম্বই ও কোচিতে এসে পৌঁছলেন ৩৫৮ জন ভারতীয়। এঁদের মধ্যে কলকাতা-সহ পশ্চিমবঙ্গের জনা ত্রিশেক বাসিন্দা রয়েছেন। ইয়েমেনের অল-হুদাইদাহ বন্দর থেকে আজ আরও ৩০০ জন ভারতীয়কে নিয়ে জিবুতির উদ্দেশে রওনা দিয়েছে সুমিত্রা। তবে চেষ্টা চলছে ইয়েমেন থেকেই সরাসরি বিমানে করে ভারতীয়দের ফেরানোর।

Advertisement

এ ক্ষেত্রে অবশ্য দোলাচল থাকছে। লড়াই শুরু হওয়ার পর থেকেই ইয়েমেনের বেশির ভাগ বিমানবন্দর বন্ধ। এত দিন আডেন বিমানবন্দর খোলা থাকছিল। কিন্তু বৃহস্পতিবারের পর সেই বিমানবন্দর উদ্ধারকাজে কতটা ব্যবহার করা যাবে, সংশয় তা নিয়েই। কারণ, সৌদি আরবের লাগাতার বিমান হানা সত্ত্বেও আজ আডেনের সিংহভাগ দখল করে নিয়েছে শিয়া হুথি সম্প্রদায়ের জঙ্গিরা।

তা হলে? এই মুহূর্তে ইয়েমেনের বিভিন্ন জায়গায় যে হাজার তিনেক ভারতীয় আটকে রয়েছেন, তাঁদের কী হবে? আজ যাঁরা ভারতে ফিরেছেন, তাঁদের জিবুতি আনা হয়েছিল আডেন বন্দর থেকে। কিন্তু পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে সকলকে যে আডেন পর্যন্ত নিয়ে আসা সম্ভব নয়, তা স্পষ্ট। সে ক্ষেত্রে বিকল্প বিমানই। এ নিয়ে ইয়েমেন প্রশাসনের সঙ্গে নয়াদিল্লির কথা হলেও সংশয় থাকছেই।

জিবুতি থেকে উদ্ধারকাজ তদারক করছেন বিদেশ প্রতিমন্ত্রী ভি কে সিংহ। ভারতকে সাহায্য করার জন্য আজ জিবুতির প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদও জানান তিনি। কিন্তু ইয়েমেনের যা পরিস্থিতি, তাতে উদ্ধার-অভিযানে গতি না এলে সমস্যা যে বাড়বেই, তা স্পষ্ট। এ দিন যাঁরা ইয়েমেন থেকে ফিরেছেন, তাঁদের সঙ্গে কথা বলে চিন্তা বেড়েছে দিল্লির। কলকাতার বাসিন্দা, বছর পঞ্চাশের মুজিবুল শেখের কথায়, ‘‘দু’সপ্তাহ ঠিক করে ঘুমোতে পারিনি। ভেবেছিলাম আর বোধহয় পরিবারের সঙ্গে দেখা হবে না।’’ আজ সকালে মুম্বইয়ে নামেন মুজিবুল। তাঁর মতো ইয়েমেন থেকে আসা সকলেই যাতে মুম্বই ও কোচি থেকে বিনা খরচে নিজেদের রাজ্যে ফিরে যেতে পারেন, তার বন্দোবস্ত করছেন রেল কর্তৃপক্ষ। রেল সূত্রের খবর, পশ্চিমবঙ্গের বাসিন্দাদের দুরন্ত এক্সপ্রেসে ফেরত পাঠানো হতে পারে।

Advertisement

আপাতত ইয়েমেনের সব স্কুল বন্ধ। প্রয়োজনে হাসপাতাল পর্যন্ত পৌঁছনোও কঠিন হয়ে দাঁড়াচ্ছে। শিয়া হুথিদের সঙ্গে লাগাতার লড়ে চলেছে প্রেসি়ডেন্ট আবেদাব্বো মনসুর হাদির সমর্থকরা। হাদির সমর্থনে বোমাবর্ষণ করে চলেছে সৌদি আরব-সহ আরব দুনিয়ার ন’টি দেশ। ইয়েমেনের আকাশ এখন তাদের দখলে। এ সবের মধ্যেই আজ আবার হদ্রামাত প্রদেশের এক জেল ভেঙে ৩০০ সঙ্গীকে ছাড়িয়ে নিয়েছে আল কায়দা। সংঘর্ষে প্রাণ গিয়েছে বেশ ক’জন নিরাপত্তাকর্মীর। এ দিন আল কায়দা যাদের ছাড়িয়ে নিয়েছে, তাদের মধ্যে রয়েছে অন্যতম প্রভাবশালী জঙ্গি খালিদ বতারফি। ২০১১-১২ সালে ইয়েমেনের সেনার সঙ্গে লড়ে জঙ্গিরা যখন দক্ষিণ ও পূর্বের বিশাল অংশের দখল নেয়, তাতে বড় ভূমিকা ছিল এই বতারফির। তার মুক্তির পর ইয়েমেনের চলতি লড়াই নতুন কী রূপ নেয়, তা ভেবেই চিন্তা বাড়ছে সাধারণ মানুষের।

শিয়া হুথি সম্প্রদায়ের ‘পুরনো বন্ধু’ ইরানের চিন্তা বাড়িয়ে এ দিন পাকিস্তান ঘোষণা করেছে, সৌদি আরবের উপর কেউ হামলা চালালে কড়া জবাব দেওয়া হবে। তবে সৌদির দাবিমতো ইয়েমেনে পাক সেনা নামানো হবে কি না, সে নিয়ে এখনও কিছু বলেনি পাকিস্তান।

নিউ ইয়র্কে ধৃত ২ মহিলা জঙ্গি

সংবাদ সংস্থা • নিউ ইয়র্ক

আমেরিকার বিভিন্ন প্রান্তে জঙ্গি হামলা চালানোর ছক কষার অভিযোগে আজ নিউ ইয়র্ক থেকে দুই মহিলাকে গ্রেফতার করেছে এফবিআই। ২৮ বছরের নোয়েল ভেলেন্তজাস ও ৩১ বছরের আসিয়া সিদ্দিকী মার্কিন নাগরিক। এফবিআইয়ের অভিযোগ, তাঁরা জঙ্গি সংগঠন আইএসের আদর্শে বিশ্বাস করেন। এক সময়ে নোয়েল ও আসিয়া িনউ ইয়র্কের কুইন্সে একই অ্যাপার্টমেন্টে থাকতেন। ২০১৪ সালের অগস্ট মাস থেকে তাঁরা আমেরিকায় বিস্ফোরণ ঘটানোর ছক কষছিলেন। নোয়েল ও আসিয়া গাড়ি ও প্রেসার কুকার বোমা তৈরির চেষ্টা করছিলেন বলে দাবি এফবিআইয়ের। ১৯৯৩ সালের ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারে ব্যবহৃত গািড় বোমা ও ১৯৯৫ সালে ওকলাহোমার রাসায়নিক বোমার মতো বিস্ফোরক তৈরির কিছু উপাদানও সংগ্রহ করেছিলেন ওই দুই মহিলা। তাঁদের কাছে প্রোপেন গ্যাসের ট্যাঙ্ক পাওয়া গিয়েছে। একটি জেহাদি ওয়েবসাইট থেকে ওই ট্যাঙ্ককে কী ভাবে বিস্ফোরকে পরিণত করা যায় তা জেনেছিলেন আসিয়া ও নোয়েল।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.