Advertisement
০৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৩
Israel-Gaza border

নিহত মায়ের হাতে জীবন্ত একরত্তি

প্রায় দু’সপ্তাহ ধরে চলা ইজ়রায়েল-প্যালেস্তাইন সংঘর্ষে এখনও পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ২১৯ জন সাধারণ মানুষের

গাজ়ার হাসপাতালে ওমর আল-হাদিদি।

গাজ়ার হাসপাতালে ওমর আল-হাদিদি। ছবি: সোশ্যাল মিডিয়া

সংবাদ সংস্থা
জেরুসালেম শেষ আপডেট: ২০ মে ২০২১ ০৫:২৪
Share: Save:

নিথর মায়ের জড়ানো দু’টো হাতের ভিতর থেকে উদ্ধার করা হয়েছিল তাকে। পাঁচ মাসের ওমর আল-হাদিদির ছোট্ট পায়ের তিন জায়গায় ভেঙে গিয়েছে। চোখের পাতাগুলো রক্ত জমে কালচে গাঢ় লাল রং। ইন্টারনেটের সৌজন্যে হাসপাতালের নার্সদের কোলে একরত্তির রক্তাক্ত ছবি দেখে ফেলেছে গোটা দুনিয়া। ওমরের বাবা, মহম্মদ আল-হাদিদি গাজ়ার কোনও এক হাসপাতালের বিছানার ধারে বসে বিলাপ করে চলেছেন, ‘‘তুই ছাড়া এই পৃথিবীতে আমার আর কেউ রইল না।’’

Advertisement

ইজ়রায়েলি ক্ষেপণাস্ত্র একসঙ্গে কেড়েছে ওমরের মা আর চার দাদাকে। শিশুদের বয়স ১৩ থেকে ৬-এর মধ্যে। ইদের ঠিক পরেই শনিবার ভোর রাত থেকে ইজ়রায়েলি সেনার একের পর এক ক্ষেপণাস্ত্র নিশানা করেছিল গাজ়ার বহুতলগুলোকে। ইদ উপলক্ষে ওমরদের নিয়ে এক কাকার বাড়ি গিয়েছিলেন তার মা। ৩৭ বছরের মহম্মদ বলেছেন, ‘‘নতুন পোশাক পরে হাতে খেলনা নিয়ে আমার ভাইয়ের বাড়ি গিয়েছিল ছেলেরা। রাতে বায়না করল ওখানেই থেকে যাওয়ার। আমি বাধা দিইনি। ভোর রাতে একটা ফোনে ঘুম থেকে উঠি। ওই এলাকাতেই পর পর বোমা পড়ছে। পৌঁছে দেখি গোটা বাড়িটাই ধ্বংসস্তূপ। আমার স্ত্রী আর চার ছেলে শেষ হয়ে গিয়েছে চাপা পড়ে। দাদার স্ত্রী আর বাচ্চারাও বেঁচে নেই। বাকি দাদাদের মতো প্রথম থেকেই মায়ের দুধ খেত না ওমর। ঈশ্বর ওকে ওই জন্যই এ ভাবে তৈরি করেছেন হয়তো।’’

প্রায় দু’সপ্তাহ ধরে চলা ইজ়রায়েল-প্যালেস্তাইন সংঘর্ষে এখনও পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ২১৯ জন সাধারণ মানুষের। যার মধ্যে শিশুদের সংখ্যাই ৬১। ধ্বংসস্তূপের আনাচকানাচে এখনও চাপা পড়ে রয়েছে অনেক শিশু, যাদের বেঁচে থাকার আশাটা ক্ষীণ। একশোরও বেশি হামাস জঙ্গিকে মেরেছে ইজ়রায়েলি সেনা। গত কয়েক দিনে হামাস তাদের দিকে শয়ে শয়ে রকেট ছুড়েছে বলে দাবি করেছে ইজ়রায়েলি সেনা। হামাসের হামলায় ইজ়রায়েলে এখনও পর্যন্ত মারা গিয়েছেন ১২ জন। গত কাল ইজ়রায়েলের আক্রমণ কিছুটা হলেও কম ছিল। যদিও আজ সকাল থেকেই গাজ়া ভূখণ্ডে আকাশ-হামলা জারি রেখেছে তারা। প্যালেস্তাইনের স্বাস্থ্য মন্ত্রক জানিয়েছে, মঙ্গলবার ভোর রাতে ইজ়রায়েলের হামলায় গুঁড়িয়ে গিয়েছে গাজ়ার একমাত্র কোভিড পরীক্ষাকেন্দ্রটি। এর ফলে সেখানকার মানুষের করোনা পরীক্ষা নিয়ে ঘোর অনিশ্চয়তা তৈরি হয়েছে। গোটা বিশ্বের মধ্যে প্যালেস্তাইনের সংক্রমণের পজ়িটিভিটি রেট খুবই বেশি।

হামাসের হামলায় ইজ়রায়েলে নিহত ভারতীয় নার্স কেরলের সৌম্যা সন্তোষের পরিবারের সঙ্গে আজ ফোনে কথা বলেন ইজ়রায়েলি প্রেসিডেন্ট রুভিন রিভলিন। গত ১১ মে স্বামীর সঙ্গে ভিডিয়ো কলে কথা বলার সময়ে ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় মৃত্যু হয়েছিল বছর তিরিশের সৌম্যার। এর আগে ভারতে ইজ়রায়েলের দূতও সৌম্যার পরিবারের সঙ্গে কথা বলে সমবেদনা জানিয়েছিলেন।

Advertisement
(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.