Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

০৮ ডিসেম্বর ২০২১ ই-পেপার

আন্তর্জাতিক

অনাহারে মৃতপ্রায় সিংহেরা, বাঁচানোর আর্তি সোশ্যাল মিডিয়ায়

সংবাদ সংস্থা
খার্তুম, সুদান ২১ জানুয়ারি ২০২০ ১৯:৫৬
প্রথম দর্শনে মনে হবে খাঁচার ভিতর শুয়ে রয়েছে কয়েকটি পথ-কুকুর।রুগ্ন, শীর্ণকায় চেহারা। মৃতপ্রায় অবস্থায় পাশাপাশি শুয়ে আছে এই প্রাণীগুলি।

আসলে এগুলি সিংহ। তবে খোলা জঙ্গলের নয়। পার্কের অভ্যন্তরে। খাঁচাবন্দি। খাবারের অভাবে, অযত্নে অবহেলায় মরতে বসেছে ‘বনের রাজা’রা।
Advertisement
এই ছবি সুদানের রাজধানী খার্তুমের আল-কুরেশি পার্কের। সেখানে এমনই পাঁচটি আফ্রিকান সিংহকে বাঁচানোর লড়াই চলছে। সোশ্যাল মিডিয়াজুড়ে চলছে প্রচার। সিংহগুলির জন্য খাবার, ওষুধের প্রয়োজন।

ওসমান সাহিন নামে এক ফেসবুক ইউজার সিংহগুলির ছবি-ভিডিয়ো একের পর এক পোস্ট করতে থাকেন। সবাইকে আবেদন করেন সাহায্যের জন্য এগিয়ে আসতে। সেই সব ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে যায়।
Advertisement
আফ্রিকান সিংহগুলির এই অবস্থার ছবি সামনে আসতেই অনেক নেটিজেন দাবি তুলেছেন, আল-কুরেশি পার্ক থেকে তাদের অন্য কোথাও সরিয়ে দেওয়া হোক। না হলে সিংহগুলি মারা যেতে পারে। অনেকে সাহায্য করতেও চেয়েছেন।

দায়িত্বপ্রাপ্ত পশুচিকিত্সকরা জানিয়েছেন, সিংহগুলি চূড়ান্ত অপুষ্টিতে ভুগছে, গত কয়েক সপ্তাহ ধরে খাবারের অভাবে ওজন প্রায় এক তৃতীয়াংশ হয়ে গিয়েছে। দ্রুত অবস্থার উন্নতি না হলে পরিস্থিতি আরও মারাত্মক হতে পারে।

দায়িত্বপ্রাপ্ত পশুচিকিত্সকরা জানিয়েছেন, সিংহগুলি চূড়ান্ত অপুষ্টিতে ভুগছে, গত কয়েক সপ্তাহ ধরে খাবারের অভাবে ওজন প্রায় এক তৃতীয়াংশ হয়ে গিয়েছে। দ্রুত অবস্থার উন্নতি না হলে পরিস্থিতি আরও মারাত্মক হতে পারে।

পার্কের ম্যানেজার এসামেলদিনে হাজ্জর জানিয়েছেন, সিংহগুলির জন্য প্রতিদিন যে পরিমাণ খাবার বা ওধুধ দরকার, তা মেলেন না। ফলে অনেক সময় তাঁরা নিজেরাই পকেটের টাকা দিয়ে সেই সব কেনেন। কিন্তু তা পর্যাপ্ত নয়।

সিংহগুলির ছবি-ভিডিয়ো সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়তেই বেশ কিছু স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের প্রতিনিধিরা দেখতে যান। বুঝতে পারেন এখনই কিছু না করতে পারলে সিংহগুলির মৃত্যু হতে পারে। খাঁচাগুলিও পরিষ্কার করা দরকার অবিলম্বে।

বেশ কয়েকটি সংগঠন সিহংগুলির জন্য তাজা মাংস ও ওষুধ নিয়ে আল-কুরেশি পার্কে পৌঁছে যায়। সেই খাবার, অ্যান্টিবায়োটিক ও অন্যান্য ওষুধ সিংহগুলিকে দেওয়া হয়।

সাহিনের প্রচারের ফলে একের পর সাহায্য যেমন আসতে শুরু করেছে, তেমনি আল-কুরেশি পার্কের অধিকার্তা ও প্রশাসনের কর্তারাও উদ্যোগ নিচ্ছেন। চেষ্টা চালানো হচ্ছে আরও নিয়মিত ও বেশি করে মাংস ও ওষুধ কেনার।

আর্থিক সঙ্কটের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে সুদান। বৈদেশিক মুদ্রার ঘাটতি, মূল্যবৃদ্ধি জর্জরিত। তার মধ্যেও সরকারি ভাবে প্রচেষ্টা চলছে। এগিয়ে আসছেন সাধারণ মানুষ। আর বিশ্ববাসীর প্রার্থনা, দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠুক বনের রাজারা।