Advertisement
১৮ জুন ২০২৪
Rishi Sunak

Rishi Sunak: স্ত্রীর সম্পত্তি নিয়ে আলোচনা হতেই ঋষি বললেন, শ্বশুর-শাশুড়িকে নিয়ে আমি খুব গর্বিত

শ্বশুর-শাশুড়িকে নিয়ে তিনি গর্ব বোধ করেন। এমন মন্তব্যই করলেন ব্রিটেনের পরবর্তী প্রধানমন্ত্রিত্বের দৌড়ে থাকা ঋষি সুনক।

ফাইল চিত্র।

ফাইল চিত্র।

সংবাদ সংস্থা
লন্ডন শেষ আপডেট: ১৯ জুলাই ২০২২ ১৫:০২
Share: Save:

ব্রিটেনের পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী হওয়ার দৌড়ে এগিয়ে রয়েছেন ভারতীয় বংশোদ্ভূত ঋষি সুনক। সেই আবহে ইনফোসিস কর্তা নারায়ণমূর্তির জামাইকে ঘিরে জোর আলোচনা চলছে আন্তর্জাতিক রাজনীতিতে। সম্প্রতি ঋষি-পত্নী অক্ষতার পারিবারিক সম্পত্তির কথা উঠতেই গর্জে উঠলেন সুনক।

টিভিতে এক বিতর্কসভায় তাঁর শ্বশুর নারায়ণমূর্তি ও শাশুড়ি সুধামূর্তির প্রশংসা করতে দেখা গেল ঋষিকে। তিনি বলেন, ‘‘আমার শ্বশুরশাশুড়ি যা গড়েছেন, তাতে আমি অত্যন্ত গর্বিত।’’ ভারতীয় তথ্যপ্রযুক্তি সংস্থা ইনফোসিসে তাঁর স্ত্রী অক্ষতামূর্তির অংশীদারিত্ব এবং সেখান থেকে প্রাপ্ত আয় বাবদ ব্রিটেনে কর না দেওয়া নিয়ে বিগত কয়েক মাস ধরেই আলোচনা চলছে সে দেশে।

এ প্রসঙ্গে ঋষি বলেন, ‘‘আমি ব্রিটেনের করদাতা। আমার স্ত্রী অন্য দেশের। তাই তাঁর ক্ষেত্রে নিয়মটা আলাদা। বিষয়টা মিটে গিয়েছে।’’ তাঁর শ্বশুরবাড়ির কাহিনি সকলকে প্রেরণা জোগাবে বলেও মন্তব্য করেন তিনি। তাঁর আরও সংযোজন, ‘‘আমার শ্বশুরমশাইয়ের হাতে কিছুই ছিল না। শুধুমাত্র একটা স্বপ্ন, কয়েকশো পাউন্ড ও শাশুড়ি মায়ের দেওয়া গচ্ছিত টাকা।’’

ঋষির সঙ্গে অক্ষতার পরিচয় স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে। ২০০৯ সালে বিয়ে করেন তাঁরা। ঋষি ব্রিটেনের নাগরিক হলেও, তাঁর স্ত্রী সে দেশের পাসপোর্ট নেননি। অক্ষতার যুক্তি, ভারতের নাগরিক হিসেবে তাঁর দ্বৈত নাগরিকত্বের সুযোগ নেই। সম্প্রতি জানা যায়, ব্রিটেনের কর ব্যবস্থায় অক্ষতা ‘নন-ডোমিসাইলড’ হিসাবে চিহ্নিত। যাঁরা ব্রিটেনের স্থায়ী নাগরিক নন, তাঁদের এই তকমা দেওয়া হয়। বিদেশ থেকে তিনি যে আয় করেন তার জন্য ব্রিটেনে তাঁকে কর গুনতে হয় না। এই তকমা দেওয়া নিয়ে প্রশ্ন ওঠে ব্রিটেনের রাজনীতিতে।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)

অন্য বিষয়গুলি:

Rishi Sunak infosys international news
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement

Share this article

CLOSE