Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৬ জানুয়ারি ২০২২ ই-পেপার

ক্যালিফোর্নিয়ায় ইহুদিদের উপর হামলা বন্দুকবাজের, নিহত ১

ইতিমধ্যেই হামলার তীব্র নিন্দা করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

সংবাদ সংস্থা
ক্যালিফোর্নিয়া ২৮ এপ্রিল ২০১৯ ১৮:২৬
ফের হামলা ধর্মস্থানে। ছবি: পিটিআই।

ফের হামলা ধর্মস্থানে। ছবি: পিটিআই।

ফের মার্কিন মুলুকে বন্দুকবাজের হামলা। প্রার্থনা চলাকালীন সান দিয়েগোর পাওয়ে শহরে ইহুদিদের চাবাড হাউসে হামলা চালাল এক কিশোর। তাতে ৬১ বছরের এক মহিলার মৃত্যু হয়েছে। জখম হয়েছেন চাবাড হাউসের যাজক, ৩৪ বছরের এক ব্যক্তি এবং ৯ বছরের একটি শিশু। হামলাকারী ওই কিশোরকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ধর্মীয় বিদ্বেষ থেকেই সে হামলা চালিয়েছে বলে প্রাথমিক তদন্তের পর ধারণা গোয়েন্দাদের।

মোজেসের নেতৃত্বে মিশরে দাসত্ব থেকে মুক্তি মিলেছিল। সেই উপলক্ষে প্রতি বছর বসন্তকালে সাত-আটদিন ধরে বিশেষ পাসওভার উত্সব পালন করেন ইহুদিরা, শনিবার যার শেষ দিন ছিল। সেই উপলক্ষে সান দিয়েগো চাবাড হাউসে বিশেষ প্রার্থনা সভার আয়োজন হয়েছিল। স্থানীয় সময় সকাল সাড়ে ১১টা নাগাদ সেখানে ওই কিশোর হামলা চালায় বলে জানা গিয়েছে।

সান দিয়েগোর শেরিফ বিল গোর জানান, এআর-১৫ অ্যাসল্ট রাইফেল নিয়ে চাবাড হাউসে হাজির হয়েছিল হামলাকারী। তার নাম জন আর্নেস্ট। বয়স ১৯ বছর। ক্যালিফোর্নিয়া স্টেট ইউনিভার্সিটি সান মার্কোজে পাঠরত। চাবাড হাউসে ঢুকে ছ’-সাতটা গুলি ছোড়ে সে। তাতে আহত হন চাবাড হাউসের যাজকও। সেই অবস্থাতেই হামলাকারী এবং সেখানে উপস্থিত সকলকে শান্ত করার চেষ্টা করেন তিনি। কিন্তু চারিদিকে হুড়োহুড়ি পড়ে গেলে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে জন। চাবাড হাউস থেকে তাকে ছুটে বেরিয়ে আসতে দেখে গুলি ছোড়েন টহলরত এক এজেন্ট। কিন্তু হামলাকারীর গায়ে না লেগে, গুলি এসে লাগে তার গাড়িতে। সেই গাড়ি নিয়েই সেখান থেকে সরে পড়ে সে। আপদকালীন নম্বর ৯১১-এ ফোন করে অপরাধ স্বীকার করে। নিজের অবস্থানও জানায় পুলিশকে, যার পর তাকে গ্রেফতার করে সান দিয়েগো পুলিশ।

Advertisement



প্রার্থনা চলাকালীন আচমকাই হামলা লাচানো হয়। ছবি: এএফপি।

আরও পড়ুন: বাড়িতে ঢুকে অভিযান, শ্রীলঙ্কা বিস্ফোরণের অন্যতম মাস্টারমাইন্ড বাবা ও দুই ছেলে নিহত​

হামলা চালানোর পর আচমকা চাবাড হাউস থেকে জন কেন ছুটে বেরিয়ে এসেছিল, তা স্পষ্ট নয়। তবে রাইফেলে কিছু সমস্যা দেখা দেওয়াতেই সে পালানোর সিদ্ধান্ত নেয় বলে দাবি সান দিয়েগো শেরিফ বিভাগের। তার বাড়ি, গাড়ি এবং পাওয়ে শহরের ওই চাবাড হাউসে তল্লাশি চালাচ্ছে পুলিশ। এর আগে মার্চ মাসে সান দিয়েগোর-ই এস্কনডিডো শহরের একটি মসজিদে কেউ বা কারা আগুন ধরিয়ে দিয়েছিল। সেই ঘটনার সঙ্গে জন আর্নেস্টের কোনও ভূমিকা রয়েছে কিনা তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তাকে জেরা করছেন এফবিআইয়ের গোয়েন্দারা।

ইতিমধ্যেই হামলার তীব্র নিন্দা করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। হামলায় নিহত ৬১ বছরের লোরি কায়ের পরিবারকে সমবেদনা জানিয়েছেন। আহতদের দ্রুত আরোগ্য কামনা করেছেন। ধর্মীয় বিদ্বেষ থেকেই ইহুদিদের নিশানা করে হামলা চালানো হয়েছে বলেও সংবাদমাধ্যমকে জানান তিনি।

আরও পড়ুন: ভুল ধর্মশিক্ষা পেয়েছিল, মারা যাওয়ায় খুশি, বললেন শ্রীলঙ্কায় নাশকতার মূল চক্রীর বোন​

পুলিশের তরফে এখনও পর্যন্ত এ নিয়ে মন্তব্য করা হয়নি। তবে সোশ্যাল মিডিয়ায় জন আর্নেস্টের নামে পোস্ট করা কিছু খোলা চিঠির সন্ধান মিলেছে। তাতে সান দিয়েগোর চাবাড হাউসের উল্লেখ না থাকলেও ইহুদিদের উপর হামলা করা হতে পারে বলে ইঙ্গিত মিলেছে। এমনকি নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে সম্প্রতি ঘটে যাওয়া জোড়া মসজিদ হামলার উল্লেখও রয়েছে তাতে। গতবছর পিটসবার্গে ইহুদিদের উপর হামলার কথাও লেখা রয়েছে। চিঠিতে ইহুদিদের প্রতি নিজের বিদ্বেষও তুলে ধরা হয়েছে। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

আরও পড়ুন

Advertisement