×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

২৩ এপ্রিল ২০২১ ই-পেপার

ইন্দোনেশিয়ায় জেগে উঠল ভয়ঙ্কর আগ্নেয়গিরি! চার কিলোমিটার ঢেকে গেল কালো ধোঁয়ায়

সংবাদ সংস্থা
জাকার্তা ৩০ নভেম্বর ২০২০ ১২:২০
ইন্দোনেশিয়ায় প্রায় ১৩০০টি সক্রিয় আগ্নেয়গিরি রয়েছে। যে কোনও দেশের তুলনায় সংখ্যাটা অত্যধিক মাত্রায় বেশি।  ছবি: রয়টার্স

ইন্দোনেশিয়ায় প্রায় ১৩০০টি সক্রিয় আগ্নেয়গিরি রয়েছে। যে কোনও দেশের তুলনায় সংখ্যাটা অত্যধিক মাত্রায় বেশি। ছবি: রয়টার্স

রবিবার ইন্দোনেশিয়ার পূর্ব নুসা টেঙ্গারা প্রদেশে ইলি লিউওটোলোক আগ্নেয়গিরি হঠাৎই জেগে উঠেছে। জাগ্রত আগ্নেয়গিরির প্রভাবে কালো ধোঁয়ায় ঢেকে গিয়েছে ওই অংশের চার কিলোমিটার এলাকা। ছাইয়ের পুরু স্তর পড়ে গিয়েছে রাস্তায়। এলাকা থেকে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে প্রায় ২৭০০ মানুষকে।

ইন্দোনেশিয়ায় প্রায় ১৩০০টি সক্রিয় আগ্নেয়গিরি রয়েছে। যে কোনও দেশের তুলনায় সংখ্যাটা অত্যধিক মাত্রায় বেশি। পুরো মাত্রায় উদ্গিরণের আগে কখনও ১ মাস, কখনও বা কয়েক সপ্তাহ ধরে এগুলি সামান্য সক্রিয় থাকে। তখনই ছাই ছড়িয়ে পড়ে এগুলি থেকে।

ইন্দোনেশিয়ার রাজধানী জাকার্তা থেকে ২৬০০ কিলোমিটার পূর্বে হঠাৎই এই আগ্নেয়গিরি থেকে ছাই, লাভা বেরিয়ে আসতে দেখে আতঙ্কিত হয়ে পড়েন এলাকার বাসিন্দারা। ঘটনা প্রত্যক্ষ করার পর অনেকেই এলাকা ছেড়ে চলে যান। অনেককে উদ্ধার করে ইন্দোনেশিয়ার জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনী।

Advertisement

আরও পড়ুন: গুরুত্বপূর্ণ পদে মহিলারাই পছন্দ বাইডেনের, বাজেট বিভাগের দায়িত্বে প্রথম কোনও ভারতীয় বংশোদ্ভূত

বিজ্ঞানীরা বলছেন, ঘটনা সবে শুরু হয়েছে। এর পর আগ্নেয়গিরি থেকে ক্রমাগত লাভা উদ্গিরণের সম্ভাবনা রয়েছে। এর ফলে গরম মেঘ, লাভা স্রোত, লাভা-ধস ও বিষাক্ত গ্যাসে ছেয়ে যেতে পারে এলাকা। আপাতত ইন্দোনেশিয়ার সরকারের পক্ষ থেকে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ সতর্কবার্তা জারি করা হয়েছে।

আরও পড়ুন: শাহের শর্ত নাকচ, দিল্লি অবরুদ্ধ করার হুঙ্কার চাষিদের

Advertisement