Advertisement
২১ জুন ২০২৪

ইমরান-শাসনে কি ছায়া ফেলবেন সেনাপ্রধানই

পাক ভোটের ফলে স্পষ্ট, দেশের প্রাক্তন ক্রিকেট ক্যাপ্টেনকে এখন থেকে চলতে হবে এক জন ক্রিকেট প্রেমীর পছন্দ-অপছন্দকে মাথায় রেখে। সরকার চালাতে সেনার চাপকে অস্বীকার করা ইমরানের পক্ষে কঠিন।

সফল: নির্বাচনের পরে পাক সেনা। রাওয়ালপিন্ডিতে। এএফপি

সফল: নির্বাচনের পরে পাক সেনা। রাওয়ালপিন্ডিতে। এএফপি

সংবাদ সংস্থা
ইসলামাবাদ শেষ আপডেট: ২৭ জুলাই ২০১৮ ০৩:২৭
Share: Save:

ক্রিকেট খেলতে ভালবাসেন। পছন্দ উইকেট কিপিং। পাকিস্তানের সেনাপ্রধান ৫৮ বছর বয়সি কমর জাভেদ বাজওয়ার সেই ক্রিকেট প্রেমই ইমরান খানের সঙ্গে সম্পর্ককে আরও মধুর করবে কিনা, তা সময়েই বলবে। তবে পাক ভোটের ফলে স্পষ্ট, দেশের প্রাক্তন ক্রিকেট ক্যাপ্টেনকে এখন থেকে চলতে হবে এক জন ক্রিকেট প্রেমীর পছন্দ-অপছন্দকে মাথায় রেখে। সরকার চালাতে সেনার চাপকে অস্বীকার করা ইমরানের পক্ষে কঠিন।

পাকিস্তানের ভোটের ফলের পরে ইমরানের সঙ্গে বাজওয়ার সম্পর্ক কেমন হতে পারে, তা নিয়ে জল্পনা শুরু হয়ে গিয়েছে। কারণ, সেনার চোখের মণি হয়েই ভোটে জিতেছেন ইমরান। তবে সবচেয়ে বড় দল হলেও একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা মেলেনি। সরকার চালাতে ইমরানকে নির্ভর করতে হবে মুত্তাদিয়া মজলিস-ই আমল-এর মতো দল ও নির্দলদের উপর। যারা সেনার কথায় ওঠেবসে। সেখানেও সরকারের চাবি হাতে রাখবে সেনা।

পাক সেনাপ্রধানের পদে রাহিল শরিফের অবসরের পরে বাজওয়াকে নিয়োগ করেন তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ। কারণ, তিনি ছিলেন পাকিস্তানের পাঁচ জন সিনিয়র জেনারেলের অন্যতম। বিশেষ করে নিয়ন্ত্রণরেখা ও পাক অধিকৃত কাশ্মীরে সেনার নেতৃত্ব দেওয়ায় দীর্ঘ অভিজ্ঞতা রয়েছে তাঁর। ভারতের প্রাক্তন সেনাপ্রধান বিক্রম সিংহের নেতৃত্বে এক সময়ে কঙ্গোয় রাষ্ট্রপুঞ্জের শান্তিরক্ষা বাহিনীতে কাজ করেছিলেন বাজওয়া। পাক সেনাপ্রধান হওয়ার পরে তাঁর ‘অসাধারণ পেশাদারিত্বের’ প্রশংসায়ও করেছিলেন বিক্রম সিংহ। আর পাক সেনাপ্রধানের দুই ছেলে আলি ও সাদ জানিয়েছেন, ভারতকে নিয়ে বিশেষ আগ্রহ রয়েছে তাঁদের বাবার। নিজের লাইব্রেরিতে রেখেছেন ভারত সংক্রান্ত বইপত্র। ভারতকে নিয়ে তাঁর সামরিক রণকৌশলের কারণেই সেনাপ্রধান হিসেবে বেছে নেওয়া হয়েছিল বাজওয়াকে। কূটনীতিকেরা মনে করছেন, আগামী দিনে ইমরানের ভারত নীতিতে ছায়া ফেলবেন সেনাপ্রধান।

সেনাপ্রধান কমার জাভেদ বাজওয়া এবং আইএসআই প্রধান নাভেদ মুখতার

সন্দেহের পিছনে কারণও রয়েছে। ইমরানকে প্রধানমন্ত্রী করার চেষ্টায় সেনা ও গুপ্তচর সংস্থা আইএসআই এ বার খোলাখুলি মাঠে নেমেছিল। অনেকেই বলছেন, অতীতে কখনও বেনজির ভুট্টোর পাকিস্তান পিপলস পার্টি কখনও বা নওয়াজ শরিফের পাকিস্তান মুসলিম লীগের পাশে থেকে কাজ করেছে সেনা ও আইএসআই। তবে সময়ের সঙ্গে সঙ্গে সেনাকর্তারা বুঝেছেন, এই দলগুলিকে সব সময়ে বশ করে রাখা সম্ভব নয়। আর পানামা পেপারস কেলেঙ্কারিতে শরিফ পরিবার ফেঁসে যাওয়ার পরে ইমরানের মধ্যেই দেশের ভবিষ্যত নেতাকে দেখতে পায় সেনা। সেই মতোই এগিয়েছে ছক। ফলও মিলেছে প্রত্যাশিত পথেই।

কোন পিচে খেলবেন

জনসংখ্যা: ২১ কোটি ২৭ লক্ষ

বেহাল অর্থনীতি

বিশ্ব ব্যাঙ্কের ‘গ্লোবাল ইকনমিক প্রসপেক্ট রিপোর্ট-২০১৮’ বলছে, জিডিপি ৫.৮ শতাংশ থেকেও পরের বছর কমতে পারে। বাড়ছে চিনের ঋণ। আয়কর দেন মাত্র ১ শতাংশ মানুষ। সার্কের রিপোর্ট, ২কোটি ২৬ লক্ষ শিশু স্কুলে যায় না।

সেনার দাদাগিরি

সাড়ে তিন দশক ধরে সামরিক শাসনে। গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় সরকার বদল এ নিয়ে দ্বিতীয় বার। সরকারে জোরালো প্রভাব সেনা ও আইএসআইয়ের। বর্তমান সেনাপ্রধান কমার জাভেদ বাজওয়া। অতীতে নিয়ন্ত্রণরেখা ও পাক অধিকৃত কাশ্মীরে বাহিনীর গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বে ছিলেন। আইএসআই প্রধান নাভেদ মুখতার সেনার প্রাক্তন লেফটেন্যান্ট জেনারেল। ইউ এস আর্মি ওয়ার কলেজের প্রাক্তনী।

সাঁড়াশি চাপে

সন্ত্রাস-বিরোধী লড়াইয়ে আগ্রহ দেখাচ্ছে না বলে মার্কিন আর্থিক সাহায্যে কাটছাঁট। আমেরিকার চাপে ‘গ্লোবাল টেররিজম ফাইন্যান্সিং মনিটরিং লিস্ট’এ। হাফিজ সইদ, মাসুদ আজহারেরা অবশ্য খুবই সক্রিয়। জঙ্গি সন্ত্রাসের শিকার পাকিস্তানের মানুষও।

দুর্নীতির পাঁক

২০১৬-য় পানামা পেপারস কেলেঙ্কারিতে প্রধানমন্ত্রী পদে ইস্তফা নওয়াজ শরিফের। প্রশাসনে দুর্নীতির অভিযোগ যথেষ্ট। ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনালের সমীক্ষায়, পাকিস্তানে দুর্নীতি কেমন, বহির্বিশ্বে তার ধারণা অনুযায়ী পাকিস্তানের স্থান ১৮০টি দেশের মধ্যে ১১৭।

তবে পাকিস্তানের অতীত বলছে, দেশের কোনও প্রধানমন্ত্রীই পুরো মেয়াদ শেষ করতে পারেননি। সেনাই নিয়ন্ত্রণ করেছে শাসন ক্ষমতা। সেনার আজকের ‘চোখের মণি’ ইমরানের ভবিষ্যৎ কী হবে, সময়ই তা বলবে।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement

Share this article

CLOSE