২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৪
Axis Mutual Fund

অ্যাক্সিস ম্যানুফ্যাকচারিং ফান্ড ভারতের অর্থনৈতিক রূপান্তরে অংশগ্রহণের সুযোগ

ভারতে উৎপাদন শিল্পের ইতিহাস দীর্ঘ দিনের। বিগত কয়েক বছরে উৎপাদনে শিল্পের দিকে সরকার বিশেষ নজর দিয়েছে। আত্মনির্ভর ভারত, মেক ইন ইন্ডিয়া ২.০ এবং বিভিন্ন পিএলআই স্কিমের মতো একাধিক সংস্কারমুখী নীতি গ্রহণ করা হয়েছে। বেড়েছে বাজেট বরাদ্দও।

অ্যাক্সিস মিউচুয়াল ফান্ড

অ্যাক্সিস মিউচুয়াল ফান্ড

এবিপি ডিজিটাল ব্র্যান্ড স্টুডিয়ো
শেষ আপডেট: ০৪ ডিসেম্বর ২০২৩ ১৭:৩৬
Share: Save:

সারা বিশ্বে সবচেয়ে দ্রুত গতিতে বাড়তে থাকা অর্থনীতিগুলোর মধ্যে অন্যতম হল ভারত। জিডিপি-র নিরিখে বর্তমানে ভারত পঞ্চম স্থানে। আশা করা হচ্ছে যে, ২০২৭ সালের মধ্যে ভারত বিশ্বের তৃতীয় বৃহত্তম অর্থনীতি হয়ে উঠবে। এই সময়ে দেশের জিডিপি বেড়ে হবে ১ লক্ষ কোটি মার্কিন ডলার।

ভারতে উৎপাদন শিল্পের ইতিহাস দীর্ঘ দিনের। বিগত কয়েক বছরে উৎপাদনে শিল্পের দিকে সরকার বিশেষ নজর দিয়েছে। আত্মনির্ভর ভারত, মেক ইন ইন্ডিয়া ২.০ এবং বিভিন্ন পিএলআই স্কিমের মতো একাধিক সংস্কারমুখী নীতি গ্রহণ করা হয়েছে। বেড়েছে বাজেট বরাদ্দও।

রফতানি এবং বিদেশি লগ্নির মাধ্যমে ভারত এখন দেশের জিডিপি-তে উৎপাদন শিল্পের অবদান বাড়াতে চাইছে। বিশ্বের উৎপাদন মানচিত্রে সবার পছন্দের জায়গা হয়ে উঠতে চাইছে বিশ্বের বৃহত্তম গণতন্ত্র। চাহিদা এবং জোগান, এই দুই-ই বেড়ে চলায় ভারতের এই স্বপ্ন ক্রমে সত্যি হওয়ার পথে।

এ দেশে উৎপাদনের মূল্যই ভারতকে চিন, পশ্চিম ইউরোপ, অস্ট্রেলিয়া, আমেরিকা এবং কানাডার মতো প্রতিযোগী দেশগুলোর তুলনায় আকর্ষণীয় করে তুলছে। শ্রমিক নীতি এবং কর নীতির সংস্কার ভারতকে বিশ্বের উৎপাদন কেন্দ্র হিসেবে গড়ে তোলার চাবিকাঠি।

সার্বিক ভাবে দেখতে গেলে উৎপাদনে জোর দেওয়ার এই উদ্যোগ খুব দ্রুত ভারতের অগ্রগতির সমার্থক হয়ে উঠছে। অর্থবর্ষ ১৯, অর্থাৎ কোভিডের আগে যেখানে ভারতে উৎপাদন শিল্পের বাজার ছিল ৩৩ হাজার কোটি মার্কিন ডলার, সেখানে আজ অর্থবর্ষ ২৩-এ দাঁড়িয়ে তা বেড়ে হয়েছে ৪৪ হাজার কোটি ডলার।

ভারতের উৎপাদন শিল্পের এই বিশাল সম্ভাবনার কথা মাথায় রেখে বলা যেতে পারে যে এটাই এই শিল্পে বিনিয়োগের সেরা সময়। এ জন্য বিনিয়োগকারীরা অ্যাক্সিস ম্যানুফ্যাকচারিং ফান্ড বেছে নিতে পারেন।

অ্যাক্সিস ইন্ডিয়া ম্যানুফ্যাকচারিং ফান্ড কী ভাবে লগ্নি করে

গুণগত মানের নিরিখে ভাল স্টকে বিনিয়োগ করাই অ্যাক্সিস ইন্ডিয়া ম্যানুফ্যাকচারিং ফান্ডের লক্ষ্য। এরা বিভিন্ন মার্কেট ক্যাপিটালাইজেশনের সেই সমস্ত সংস্থায় বিনিয়োগ করবে, যাদের সুস্থায়ী বৃদ্ধির সম্ভাবনা আছে। স্টক চিহ্নিতকরণের জন্য যে ত্রিমুখী কৌশল গ্রহণ করা হবে, তা হল:

১. উৎপাদন ক্ষমতা বাড়ানোর জন্য যে সব সংস্থা কারখানার যন্ত্রপাতি এবং গবেষণা ও উন্নয়নে বিনিয়োগ করছে, তেমন সংস্থা বেছে নেওয়া।

২. পারিবারিক স্তরের ভোগ্যপণ্য এবং মহার্ঘ্য মূল্যে পণ্য বিক্রির নিরিখে (ডোমেস্টিক কনজাম্পশন এবং প্রোডাক্ট প্রিমিয়ামাইজেশন) যে সব শিল্পকে ঘিরে চাহিদা রয়েছে।

৩. যে সব শিল্পক্ষেত্রের মাধ্যমে ভারত থেকে রফতানি হচ্ছে।

অ্যাক্সিস ইন্ডিয়া ম্যানুফ্যাকচারিং ফান্ডের মূল বৈশিষ্ট্য

১. অ্যাক্সিস ম্যানুফ্যাকচারিং ফান্ড হল একটা ‘ওপেন-এন্ডেড ইক্যুইটি স্কিম’ যেটা ভারতের উৎপাদন শিল্পক্ষেত্রে বিনিয়োগ করে।

২. সরকারি-বেসরকারি ও বিভিন্ন মার্কেট ক্যাপিটালাইজেশন মিলিয়ে ১১টি শিল্পক্ষেত্রের ৬৬টি শিল্পে বিনিয়োগ করবে এই ফান্ড। এর ফলে ফান্ডের বৈচিত্র অক্ষুণ্ণ থাকবে।

যে সব শিল্পে বিনিয়োগ করা হবে, সেগুলি হল - অটোমোবাইল এবং এর অনুসারী শিল্প, রাসায়নিক, ওষুধ, বস্ত্র, বৈদ্যুতিক ও বৈদ্যুতিন সামগ্রী, খাদ্য ও পানীয়, টেকসই ভোগ্যপণ্য (কনজিউমার ডিউরেবল), নির্মাণ সামগ্রী, প্রতিরক্ষা এবং এরোস্পেস, ক্যাপিটাল গুডস ও ইঞ্জিনিয়ারিং, এবং ইন্ডাস্ট্রিয়ালস।

৩. বিনিয়োগকারীদের জন্য নিউ ফান্ড অফার (NFO) ১ ডিসেম্বর ২০২৩ থেকে ১৫ ডিসেম্বর ২০২৩ পর্যন্ত খোলা থাকবে।

অ্যাক্সিস ইন্ডিয়া ম্যানুফ্যাকচারিং ফান্ডে কেন বিনিয়োগ করবেন?

১. এটি ভারতের উদীয়মান উৎপাদন শিল্পে বিনিয়োগ করে

২. সেক্টর এবং মার্কেট ক্যাপের নিরিখে এর বৈচিত্র পর্যাপ্ত

৩. দীর্ঘমেয়াদি সম্পদ তৈরির সম্ভাবনা

৪. একটি ফান্ডের মাধ্যমে সামগ্রিক উৎপাদন শিল্পে বিনিয়োগ

৫. গুণগত ভাল মানের পোর্টফোলিও গড়ায় জোর

এই ফান্ড কাদের জন্য আদর্শ?

অ্যাক্সিস ম্যানুফ্যাকচারিং ফান্ড হল একটি থিম্যাটিক ফান্ড যা সম্ভাবনায় ভরা ভারতের উদীয়মান উৎপাদন ক্ষেত্রে বিনিয়োগ করে। থিম্যাটিক ফান্ড কোনও নির্দিষ্ট থিম কিংবা সেক্টরেই জোর দেয়। যেমন ইনফ্রাস্ট্রাকচার থিমড ফান্ড রিয়েল এস্টেট, সড়ক নির্মাণ, রেলওয়ে, স্টিল, সিমেন্ট, ইত্যাদি শিল্প বিনিয়োগ করবে।

যে হেতু থিম্যাটিক ফান্ড একটি নির্দিষ্ট ভাবনা/থিমের উপর জোর দেয়, তাই তা বিকশিত হতে সময় লাগতে পারে। তাই এই ধরনের ফান্ড সেই সব বিনিয়োগকারীদের জন্য আদর্শ, যাঁরা চারপাশের খবরাখবর রাখেন এবং বড় ঝুঁকি নিতে তৈরি (হাই-রিস্ক অ্যাপেটাইট)।

অ্যাক্সিস ইন্ডিয়া ম্যানুফ্যাকটারিং ফান্ড তাঁদের জন্যও আদর্শ যাঁরা দীর্ঘ মেয়াদে মূলধন বৃদ্ধিতে ইচ্ছুক এবং ৫ বছরের জন্য উচ্চ ঝুঁকিপূর্ণ বিনিয়োগ করতে চান।

‘লাম্পসাম’ বিনিয়োগের ক্ষেত্রে বিনিয়োগকারীরা ন্যূনতম ৫০০ টাকা ও তার পরে ১ টাকার গুণিতকে বিনিয়োগ করতে পারবেন। SIP-এর ক্ষেত্রে ন্যূনতম ১০০ টাকা ও তার পরে ১ টাকার গুণিতকে বিনিয়োগ করা যাবে।

মিউচুয়াল ফান্ডে বিনিয়োগ বাজারগত ঝুঁকিসাপেক্ষ। স্কিম সংক্রান্ত নথি মনোযোগ দিয়ে পড়বেন।

দাবিত্যাগ এবং ঝুঁকির কারণ

সূত্র: www.makeinindia.com, IBEF রিপোর্ট – মে ২০২৩, india.gov.in,

www.rbi.org.in/Scripts/BS_SpeechesView.aspx?Id=1385

৩০ সেপ্টেম্বর ২০২৩ পর্যন্ত তথ্য

দাবিত্যাগ: পূর্ববর্তী ফলাফল আগামী দিনেও যে জারি থাকবে, এমন কোনও নিশ্চয়তা নেই। উপরে উল্লেখ করা সেক্টর/স্টক/ইসুয়ারের নাম স্কিমের পোর্টফোলিও প্রকাশ করার স্বার্থে ব্যবহার করা হয়েছে। এগুলোকে যেন অনুমোদন হিসেবে বিবেচনা না করা হয়। ফান্ড ম্যানেজার(রা) সময়ে সময়ে এই সব স্টক ধরতে বা ছাড়তে পারেন।

বিনিয়োগকারীদের অনুরোধ, তাঁরা যেন বিনিয়োগ সংক্রান্ত সিদ্ধান্ত গ্রহণের আগে তাঁদের আর্থিক, কর এবং অন্যান্য উপদেষ্টাদের পরামর্শ নিয়ে নেন।

এই নিবন্ধে অ্যাক্সিস অ্যাসেট ম্যানেজমেন্ট কোম্পানি লিমিটেডের মত প্রকাশ করা হয়েছে। শুধুমাত্র এর উপর ভিত্তি করে বিনিয়োগ সংক্রান্ত সিদ্ধান্ত না নেওয়াই শ্রেয়। এখানে দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে কোনও লোকসান হলে অ্যাক্সিস মিউচুয়াল ফান্ড, অ্যাক্সিস মিউচুয়াল ফান্ড ট্রাস্টি লিমিটেড কিংবা অ্যাক্সিস অ্যাসেট ম্যানেজমেন্ট কোম্পানি লিমিটেড ও তার কোনও অধিকর্তা কিংবা সহযোগী এর দায় নেবে না। এই নিবন্ধে দেওয়া তথ্য এবং মতামতের যথার্থতা, সার্বিকতা কিংবা নিরপেক্ষতা নিয়ে কোনও অঙ্গীকার এখানে করা হচ্ছে না। প্রয়োজনে এই অ্যাসেট ম্যানেজমেন্ট কোম্পানি(AMC)-র এই বক্তব্য বদলানোর অধিকার রয়েছে।

বিধিবদ্ধ খুঁটিনাটি তথ্য: ১৮৮২ সালের ইন্ডিয়ান ট্রাস্টস অ্যাক্ট মোতাবেক অ্যাক্সিস মিউচুয়াল ফান্ড প্রতিষ্ঠা হয়। অ্যাক্সিস ব্যাঙ্ক লিমিটেড এর পৃষ্ঠপোষক (ঋণ ১ লক্ষ টাকার মধ্যে সীমাবদ্ধ)। ট্রাস্টি: অ্যাক্সিস মিউচুয়াল ফান্ড ট্রাস্টি লিমিটেড।

ইনভেস্টমেন্ট ম্যানেজার: অ্যাক্সিস অ্যাসেট ম্যানেজমেন্ট কোম্পানি লিমিটেড (এই এএমসি)।

রিস্ক ফ্যাক্টর: স্কিম পরিচালনার ফলে কোনও ক্ষতি অথবা ঘাটতির ক্ষেত্রে অ্যাক্সিস ব্যাঙ্ক লিমিটেড দায়ী থাকবে না।

(নিউ ফান্ড অফারের শ্রেণিভুক্তিকরণ এই স্কিম বৈশিষ্ট্য অথবা মডেল পোর্টফোলিওর অভ্যন্তরীণ মূল্যায়নের ভিত্তিতে করা হয়েছে। NFO-র পর প্রকৃত বিনিয়োগের সময়ে তা বদলে যেতে পারে)

মিউচুয়াল ফান্ডে বিনিয়োগ বাজারগত ঝুঁকিসাপেক্ষ। স্কিম সংক্রান্ত নথি মনোযোগ দিয়ে পড়বেন।

এই প্রতিবেদনটি ‘অ্যাক্সিস মিউচুয়াল ফান্ড’-এর সঙ্গে আনন্দবাজার ব্র্যান্ড স্টুডিয়ো দ্বারা যৌথ উদ্যোগে প্রকাশিত।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:

Share this article

CLOSE