বিভিন্ন রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্ককে মিশিয়ে বড় ব্যাঙ্ক তৈরির কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্তে নিজেদের আপত্তির কথা অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামনকে জানাল ভারতীয় মজদুর সঙ্ঘ (বিএমএস)। বৃহস্পতিবার এ জন্য অর্থমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করলেন সঙ্ঘ পরিবারের শ্রমিক সংগঠনটির প্রতিনিধিরা। সংশ্লিষ্ট সূত্রের খবর, তাঁদের অভিযোগ, সব দিক খতিয়ে না দেখে সিদ্ধান্তটি নেওয়া হয়েছে। এতে স্বার্থরক্ষা হবে শুধু কর্পোরেট সংস্থার। 

ইতিমধ্যেই সংযুক্তির বিরুদ্ধে সরব হয়েছে ব্যাঙ্কের কর্মী সংগঠনগুলি। মুখ খুলেছে বিএমএস-ও। ক্ষোভ আঁচ করে নির্মলা কথা দিয়েছেন, এর জেরে কাজ হারাবেন না এক জনও। তার পরেও বিএমএসের প্রেসিডেন্ট সাজি নারায়ণনের অভিযোগ ছিল, ২০০৮ সালের বিশ্ব জোড়া মন্দার সময়েই বোঝা গিয়েছিল কম সংখ্যক বড় ব্যাঙ্কের থেকে বেশি ছোট ব্যাঙ্ক থাকার সুবিধা। কারণ, একটি বড় ব্যাঙ্কে লালবাতি জ্বাললেই তার ফল হয় মারাত্মক। ভারতের মতো ১৩০ কোটি মানুষের দেশে ব্যাঙ্কের সংখ্যা বেশি থাকা জরুরি বলেও মনে করেন তিনি। তাঁর দাবি, গ্রামে, ছোট শহরে ছোট-মাঝারি শিল্প এবং ছোট ব্যবসার কাছে ছোট ব্যাঙ্কের গুরুত্ব অনেক। অর্থমন্ত্রী চাকরি না যাওয়ার আশ্বাস দিলেও বিএমএসের আশঙ্কা, সংযুক্তির পরে ছোট ব্যাঙ্ক কর্মীদের ‘দ্বিতীয় শ্রেণির কর্মী’ হয়ে থাকতে হবে।