Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৮ জানুয়ারি ২০২২ ই-পেপার

বিপিসিএলের আগ্রহপত্র এ মাসেই

আগামী অর্থবর্ষে বিলগ্নিকরণের মাধ্যমে ২.১ লক্ষ কোটি টাকা তুলতে চায় কেন্দ্র।

সংবাদ সংস্থা
নয়াদিল্লি ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০ ০৫:০২
প্রতীকী ছবি।

প্রতীকী ছবি।

ভারত পেট্রোলিয়ামে (বিপিসিএল) নিজেদের ৫৩.২৯% অংশীদারি বিক্রির সিদ্ধান্ত নিয়েছে মোদী সরকার। সূত্রের খবর, সম্প্রতি দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম তেল শোধন সংস্থাটির বিক্রি সংক্রান্ত নথিতে (সেল বিড ডকুমেন্টস) সম্মতি দিয়েছে কেন্দ্রের আন্তঃমন্ত্রিগোষ্ঠী। পরবর্তী ধাপে গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রকগুলিকে নিয়ে গঠিত কমিটির সায় পেলেই নিলাম সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তি জারি করা হবে। সে ক্ষেত্রে বিপিসিএল হাতে নিতে আগ্রহী সংস্থাগুলির কাছ থেকে আগ্রহপত্র চাওয়া হতে পারে এ মাসেই।

আগামী অর্থবর্ষে বিলগ্নিকরণের মাধ্যমে ২.১ লক্ষ কোটি টাকা তুলতে চায় কেন্দ্র। এর মধ্যে বিপিসিএল থেকে ৫৪,০০০ কোটি পাওয়ার আশা করছে তারা। সূত্রের খবর, রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থার বেসরকারিকরণের পথ বেশ দীর্ঘ। প্রথমে সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন মন্ত্রক, পেশাদার ও বিশেষজ্ঞদের মধ্যে কথা বলে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে হয়। পরবর্তী ধাপে মন্ত্রিসভার অর্থনীতি সংক্রান্ত কমিটির সম্মতি লাগে। গত নভেম্বরেই বিপিসিএলের অংশীদারি বিক্রিতে ওই কমিটি সায় দিয়েছে। এর পরেই আন্তঃমন্ত্রিগোষ্ঠী গঠন করা হয়। গোষ্ঠীতে রয়েছেন অর্থ, পেট্রোলিয়াম, আইন, কোম্পানি মন্ত্রক ও সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন দফতরের দফতরের প্রতিনিধিরা। সম্প্রতি সেই গোষ্ঠী বিক্রি সংক্রান্ত নথিতে সম্মতি দিয়েছে। যার মধ্যে রয়েছে আগ্রহপত্র ও তথ্য সংক্রান্ত নথি। মার্চেন্ট ব্যাঙ্কার, সংস্থার মূল্যায়নকারী, আইনি পরামর্শদাতা নিয়োগ করেছে তারা।

কী পাবে ক্রেতা

Advertisement

• বিপিসিএলের মহারাষ্ট্র, মধ্যপ্রদেশ ও কেরলের শোধনাগার। সেগুলির শোধন ক্ষমতা বছরে ৩.৫৩ কোটি টন
• ১৫,১৭৭টি পেট্রল পাম্প
• ৬০১১টি এলপিজি বণ্টন এজেন্সি
• ৫১টি এলপিজি বটলিং কারখানা
• ৫০টির বেশি বিমান জ্বালানি কেন্দ্র
• দেশে ব্যবহৃত পেট্রোপণ্যের ২১% বাজার

পরবর্তী ধাপে গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রীদের নিয়ে তৈরি কমিটি আগাগোড়া পদ্ধতি খতিয়ে দেখবে। সম্মতি দেবে ন্যূনতম দামে। তার পরেই আগ্রহপত্র চেয়ে বিজ্ঞপ্তি জারি করা হবে। যে গতিতে এই পদক্ষেপগুলি করা হয়েছে, তাতে চলতি মাসেই বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। নিলাম প্রক্রিয়া হতে পারে দু’টি ধাপে। শুরুতে প্রস্তাব চাওয়া হবে। তার পরে নির্বাচিত কয়েকটি সংস্থাকে নিয়ে হবে নিলাম প্রক্রিয়া। সরকারের হাতে থাকা শেয়ার যে দামে সংশ্লিষ্ট সংস্থা কিনবে, বাজার থেকেও একই দামে ২৬% শেয়ার কিনতে হবে তাদের। তবে সংস্থা বিক্রির যাবতীয় প্রক্রিয়া শেষ হতে এখনও ছয় থেকে আট মাস লাগতে পারে বলে সূত্রের খবর।

আরও পড়ুন

Advertisement