রান্নার গ্যাস সিলিন্ডারের উপর প্রাপ্য ভর্তুকিতে চুপিসারে কোপ পড়ার অভিযোগ উঠেছে আগেই। সূত্রের খবর, তা আরও পাকাপোক্ত হল অক্টোবরে ভর্তুকির টাকা একাংশের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে ঢোকার পরেই।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানাচ্ছে, সেপ্টেম্বরের তুলনায় অক্টোবরে কলকাতায় ১৪.২ কেজির সিলিন্ডারের দাম ১৩.৫০ টাকা বাড়লেও, এই মাসে ভর্তুকি বাড়ানো হয়েছে মাত্র ৬ টাকা। শুধু তাই নয়, ভর্তুকির দাবিদার সাধারণ গ্রাহকদের থেকে প্রধানমন্ত্রী উজ্জ্বলা যোজনার গ্রাহকেরা গত অগস্ট, সেপ্টেম্বরের মতোই মোট ২১ টাকা বেশি ভর্তুকি পাচ্ছেন। গ্রাহক মহলের প্রশ্ন, বিভিন্ন ক্ষেত্রে কেন্দ্রের মোদী সরকার ফলাও করে ঘোষণা ও প্রচার করলেও, ভর্তুকি ছাঁটাইয়ের বেলায় কেন তা চুপিসারে করছে তারা? গ্রাহককে জানানোর সামান্য প্রয়োজনটুকু বোধ করছে না?

সূত্রের খবর, এ মাসে কলকাতায় বাজার দরে ৬৩০ টাকা দিয়ে সিলিন্ডার কেনার পরে উজ্জ্বলা যোজনার গ্রাহকেরা ১০৮.৯৫ টাকা ভর্তুকি পাবেন। অথচ বাকিরা পাবেন ৮৭.৯৫ টাকা। সেপ্টেম্বরে ওই সিলিন্ডারের দাম ১৫.৫০ টাকা বাড়লেও অগস্টের চেয়ে ভর্তুকি বেড়েছিল ৭.৯০ টাকা।

এত দিন জিএসটি সমেত ভর্তুকিহীন সিলিন্ডার যদি ১০০ টাকা পড়ত আর ভর্তুকিযুক্ত ৯০ টাকা, তা হলে দু’য়ের মধ্যে ফারাকের ওই ১০ টাকা ভর্তুকি হিসেবে পেতেন গ্রাহক। ভর্তুকি পাওয়ার যোগ্য উজ্জ্বলা যোজনা ও সাধারণ (তেল সংস্থাগুলির পরিভাষায় এপিএল তালিকা ভুক্ত) গ্রাহক, দু’পক্ষের ক্ষেত্রেই তার অঙ্ক হত একই। যা জমা পড়ে তাঁদের অ্যাকাউন্টে। ওই প্রক্রিয়ায় মাসে দু’ধরনের সিলিন্ডারের দামই জানাত রাষ্ট্রায়ত্ত তেল সংস্থাগুলি। অথচ ডিলারদের দাবি, অগস্ট ও সেপ্টেম্বরের মতো এ মাসেও তারা ভর্তুকিহীন ১৪.২ কেজির সিলিন্ডারের দাম (৬৩০ টাকা) ঘোষণা করলেও, ভর্তুকির সিলিন্ডারের দাম জানায়নি। ঘোষণা করেনি ভর্তুকির অঙ্কও। ফলে গ্রাহকদের অ্যাকাউন্টে টাকা না জমা পড়া পর্যন্ত কেউই আর আগের মতো জানতে পারছেন না, আদতে ভর্তুকি পাওয়া গেল কতটা।

ডিলারদের অনেকেরই অভিযোগ, কেন্দ্র ও তেল সংস্থাগুলি আচমকা ভর্তুকি নিয়ে এ ভাবে চুপিসারে পদক্ষেপ করায় ভোগান্তি বাড়ছে তাঁদের। এ নিয়ে বারবার গ্রাহকদের প্রশ্ন ও ক্ষোভের মুখে পড়তে হচ্ছে। 

অনেকের মতে, ভর্তুকির সিলিন্ডারের দাম হয় এ মাসে অনেক বেশি বাড়ানোয় ভর্তুকি কমেছে কিংবা মোট ভর্তুকিই ধাপে ধাপে কমাচ্ছে কেন্দ্র। তবে গত অগস্ট থেকেই ধোঁয়াশা রয়েছে গোটা বিষয়টিতে। কেন্দ্র ও তেল সংস্থাগুলিরও মুখে কুলুপ। এর আগে বছরে ১০ লক্ষ টাকা পরিবারিক আয় হলে, ওই গ্রাহকদের ভর্তুকি তুলে দিয়েছে কেন্দ্র। কিন্তু তা ঘোষণা করেই করা হয়েছিল। এ বার কি উজ্জ্বলা যোজনার অন্তর্ভুক্ত ছাড়া বাকিদের ক্ষেত্রে তা নিঃশব্দে করা হবে? প্রশ্ন ঘুরপাক খাচ্ছে গ্রাহক মহলে।