জালিয়াতির অভিযোগে এ বার গ্রেফতার হলেন ওষুধ প্রস্তুতকারক সংস্থা র‌্যানব্যাক্সির প্রাক্তন কর্ণধার শিবেন্দ্রমোহন সিংহ। ৭৪০ কোটি টাকা জালিয়াতির অভিযোগে বৃহস্পতিবার তাঁকে গ্রেফতার করেছে দিল্লি পুলিশের অর্থনৈতিক অপরাধ দমন শাখা। ওই মামলায় নাম রয়েছে শিবেন্দ্রমোহনের ভাই মলবেন্দ্র সিংহেরও। গত অগস্ট মাসেই তাঁদের বাড়ি ও অফিসে হানা দেয় এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি)। তার পরই এ দিন গ্রেফতার করা হয় শিবেন্দ্রকে। মলবেন্দ্রর খোঁজে তল্লাশি শুরু হয়েছে।

অর্থনৈতিক সংস্থা ‘রেলিগেয়ার ফিনভেস্ট লিমিটেড’  শিবেন্দ্র সিংহ এবং মলবেন্দ্রর বিরুদ্ধে জালিয়াতি  এবং কোটি কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগ এনেছে বলে দিল্লি পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে। গত বছর ডিসেম্বর মাসে ওই দুই ভাইয়ের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করে তারা। তার পর চলতি বছরের মে মাসে ওই দু’জনের বিরুদ্ধে ৭৪০ কোটি টাকার প্রতারণা, জালিয়াতি এবং আত্মসাতের মামলা দায়ের হয়। এ দিন রেলিগেয়ারের চেয়ারম্যান সুনীল গোধওয়ানি-সহ আরও তিন জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে খবর।

এর পর তাঁদের বিরুদ্ধে আর্থিক তছরুপের তদন্ত শুরু করে ইডি। তদন্তকারীরা জানিয়েছেন, শিবেন্দ্র এবং মলবেন্দ্রই ‘রেলিগেয়ার ফিনভেস্ট লিমিটেড’-এর প্রতিষ্ঠাতা। ওই সংস্থার আয়ের টাকায় বিভিন্ন জায়গায় ফর্টিস হাসপাতাল গড়ে তোলেন তাঁরা। রেলিগেয়ার থেকে ৭৪০ কোটি টাকা বার করে ঘুর পথে অন্যত্র পাচার করে দেন। কিন্তু দুই সংস্থার নিয়ন্ত্রণই হাতের বাইরে চলে গেলে দুই ভাইয়ের মধ্যে ঝামেলা বাধে। তা নিয়ে মুখ দেখাদেখি বন্ধ হয়ে যায়।

আরও পড়ুন: বাবুল গেলেন ক্যালিফোর্নিয়ার হাসপাতালে, ফেসবুকে আঙুল তুললেন যাদবপুর-কাণ্ডের দিকে​

আরও পড়ুন: পঞ্জাবে পাক ড্রোন হানায় পাকিস্তানের হাত ছিল, জানাল স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক​

২০০৮ সালে জাপানি সংস্থা দাইচি সানকিয়োকে র‌্যানব্যাক্সি ল্যাবরেটরিজ লিমিটেড বিক্রি করে দেন শিবেন্দ্র এবং মলবেন্দ্র। তার পর ফর্টিস হেলথকেয়ার এবং রেলিগেয়ারেই মনোনিবেশ করেন তাঁরা। কিন্তু অর্থিক অনটনের জেরে ওই দুই সংস্থার মালিকানাও হাতছাড়া হয় তাঁদের।