Advertisement
১৬ জুলাই ২০২৪
Tourism

দেশীয় পর্যটকেই ভরসা রাখছে পর্যটন শিল্প

করোনার পরে ভারতে বিদেশি পর্যটকের সংখ্যা তেমন ভাবে এখনও না বাড়লেও, বেড়ানোর উৎসাহ প্রায় দ্বিগুণ বেড়েছে দেশবাসীর মধ্যে। সেই ভরসাতেই এ বারের পুজোয় ভাল ব্যবসার আশা করছেন পর্যটন সংস্থার কর্তারা।

— প্রতিনিধিত্বমূলক ছবি।

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা শেষ আপডেট: ২৩ জুন ২০২৪ ০৮:৩৯
Share: Save:

অতিমারির ধাক্কা কাটিয়ে ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা করছে আতিথেয়তা ক্ষেত্র তথা পর্যটন শিল্প। আর সেই চেষ্টায় তাদের মুখে হাসি ফোটাচ্ছেন দেশীয় পর্যটকেরা। করোনার পরে ভারতে বিদেশি পর্যটকের সংখ্যা তেমন ভাবে এখনও না বাড়লেও, বেড়ানোর উৎসাহ প্রায় দ্বিগুণ বেড়েছে দেশবাসীর মধ্যে। সেই ভরসাতেই এ বারের পুজোয় ভাল ব্যবসার আশা করছেন পর্যটন সংস্থার কর্তারা। শনিবার কলকাতায় পর্যটন মেলার প্রাঙ্গনে দাঁড়িয়ে যাঁরা বলছেন, উৎসবের এখনও চার মাস বাকি থাকলেও, বেড়ানোর প্রস্তুতি শুরু হয়ে গিয়েছে। তাঁদের আশা, গত বছরের তুলনায় এ বার পর্যটকের সংখ্যা প্রায় ৩০% বাড়বে।

এক ছাতার তলায় বেড়ানো সংক্রান্ত সমস্ত তথ্য সাজিয়ে রাখতে প্রতি বছরই পর্যটন মেলার আয়োজন করে এবিপি গোষ্ঠী। এ বার কেন্দ্রীয় সরকারের সহযোগিতায় আয়োজন করা হয়েছে দ্বাদশ ‘আনন্দবাজার টুরিস্ট স্পট’ মেলাটি। ক্ষুদিরাম অনুশীলন কেন্দ্রে তা চলবে আজ, রবিবার রাত ৮টা পর্যন্ত। অংশ নিয়েছে প্রায় ৭০টি পর্যটন সংস্থা। সহযোগী রাজ্য হিসেবে এসেছে অরুণাচল প্রদেশ, ত্রিপুরা ও বিহারের পর্যটন দফতর। আছে এই ক্ষেত্রের বিভিন্ন সংগঠনও। আয়োজকেরা জানান, বেড়াতে যাওয়ার খুঁটিনাটি জানতে ইতিমধ্যেই ১৭,০০০ মানুষ এসেছেন।

এ দিন পর্যটন মন্ত্রকের অ্যাসিট্যান্ট ডিরেক্টর জ্যোতির্ময় বিশ্বাস বলেন, প্রচলিত বেড়ানোর জায়গা ছাড়াও নতুন নতুন অনেক ভাল জায়গা রয়েছে, যেগুলিকে পর্যটন কেন্দ্র হিসেবে গড়ে তোলায় উদ্যোগী হয়েছে সরকার। তুলে ধরা হচ্ছে দেশের সংস্কৃতি ও ঐতিহ্য। পর্যটকদের মধ্যে পরিবেশ সচেতনতা কর্মসূচিও চালানো হচ্ছে। মেলায় অরুণাচল প্রদেশের টুরিস্ট ইনফর্মেশন অফিসার তাকম কেনা বলেন, ‘‘কোভিডের পরে বিদেশি পর্যটকেরা ভারতে আসতে এখনও খুব বেশি আগ্রহ না দেখালেও, দেশীয় পর্যটকের সংখ্যা দ্রুত বাড়ছে। ২০১৯ সালে অরুণাচল প্রদেশে ৫.৬৩ লক্ষ ভারতীয় পর্যটক গিয়েছিলেন। ২০২৩ সালে তা হয়েছে ৯.৭৬ লক্ষ। অথচ এই সময়ে বিদেশিদের সংখ্যা ৭৮০০ থেকে কমে হয়েছে ৪২০০।’’

বামা লরির পর্যটন সংস্থা ভেকেসন্স এক্সটিকার ভাইস প্রেসিডেন্ট ভেঙ্কটরামন দোরাইরাজনেরও বক্তব্য, “অতিমারির সমস্যার জেরে পর্যটকের সংখ্যা তলানিতে ঠেকেছিল। কিন্তু তা কাটার পর থেকে পর্যটন শিল্প ঘুরে দাঁড়াতে শুরু করেছে। গত বছরের থেকে এ বছর পর্যটকের সংখ্যা প্রায় ৩০% বাড়বে বলে আশা।’’ সাধারণ বেড়ানোর পাশাপাশি ধর্মীয় ও সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যপূর্ণ স্থান ভ্রমনের প্রবণতা বেড়েছে বলেও জানান তিনি।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)

অন্য বিষয়গুলি:

tourism Tourism Industry tourism in india
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement

Share this article

CLOSE