• সংবাদ সংস্থা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

জোটেও ক্ষতি নেই, ভোট দেওয়ার পরে বার্তা শিল্প মহলের

Mahindra and Jindal
ভোটদান: আনন্দ মহীন্দ্রা ও সজ্জন জিন্দল।

কেন্দ্রে জোট সরকার এলেও তাতে অর্থনীতির তেমন ক্ষতি হবে না বলেই মনে করেন শিল্পপতিদের অনেকে। সোমবার ভোট দিয়ে মহীন্দ্রা গোষ্ঠীর চেয়ারম্যান আনন্দ মহীন্দ্রা, জেএসডব্লিউয়ের সজ্জন জিন্দল, গোদরেজ গোষ্ঠীর কর্ণধার আদি গোদরেজ প্রমুখের দাবি, ক্ষমতায় যারাই আসুক না কেন, সরকার যেন মজবুত ও স্থায়ী হয়। তা জোট সরকার হলেও সমস্যা নেই।

বিজেপি বরাবরই দাবি করেছে, কেন্দ্রে বিরোধী জোট সরকার এলে তা শক্তপোক্ত হবে না। ধাক্কা খাবে অর্থনীতি। বিরোধীদের পাল্টা দাবি, মোদী সরকারের আমলে নোটবন্দি ও তড়িঘড়ি জিএসটি চালুর জেরে অর্থনীতির কোমর ভেঙেছে। এই তরজার মধ্যে শিল্পের বক্তব্য তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞেরা। তাঁদের মতে, বিরোধী জোট সরকার আসুক বা না-আসুক, বিজেপির পক্ষেও ২০১৪ সালের মতো একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাওয়া নিয়ে সংশয় রয়েছে। সে ক্ষেত্রে শরিকদের সঙ্গে দর কষাকষি করে চলতে হতে পারে তাদের। যে কারণে দু’তরফেই বার্তা দিয়ে রাখতে চেয়েছে শিল্প মহল।

মহীন্দ্রা আজ বলেছেন যে, জোট সরকার এলেও উন্নয়ন ও বৃদ্ধির পথেই তারা চলবে বলে মনে হয়। আবার জিন্দলের দাবি, এর আগেও জোট সরকার প্রশাসনিক দিক দিয়ে ভাল কাজ করেছে। তাঁর মতে, কেন্দ্রে এমন স্থায়ী সরকার জরুরি, যারা নিয়মিত উন্নয়ন চালাতে পারবে। গোদরেজ বলেন, যত দিন জোটের বাঁধন মজবুত থাকবে, ভাল কাজ করা সম্ভব।

সংশ্লিষ্ট মহলের মতে, এমনিতে শিল্প বরাবরই চায় নীতিগত সিদ্ধান্ত নেওয়ার সময়ে যেন মতৈক্য থাকে। তা যেন দ্রুত নেওয়া হয়। সংস্কারের গতি কোন দিকে যাচ্ছে, তা স্পষ্ট বোঝা যায়। যে কারণে সাধারণত স্থায়ী বা একক সংখ্যাগরিষ্ঠ সরকার তাদের পছন্দ। বিশেষজ্ঞদের ধারণা, এই অবস্থায় জোট সরকার এলেও, তারা যেন উন্নয়নের পথ থেকে না-সরে, তাই মনে করিয়ে দিতে চেয়েছে শিল্প মহল।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন