আদালত সমন জারি করলেও, মেহুল চোক্সীকে দেশে ফেরানো যায়নি এখনও। এই পরিস্থিতিতে পঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাঙ্কে ঋণ প্রতারণা কাণ্ডের অন্যতম এই অভিযুক্তের আইনজীবী মুম্বইয়ের বিশেষ আদালতকে জানালেন, সফর করার মতো সুস্থ থাকলে অবশ্যই হাজিরা দেবেন চোক্সী। 

সম্প্রতি কালো টাকা প্রতিরোধ আইনে আওতাভুক্ত মামলাগুলি বিচারের বিশেষ আদালতে চলছিল এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেটের (ইডি) দায়ের করা আবেদনের শুনানি। যেখানে তদন্তকারী সংস্থাটি এ বার মেহুলের বিরুদ্ধে পলাতক আর্থিক অপরাধী আইন প্রয়োগের আর্জি জানিয়েছে বিচারপতি এমএস আজমির কাছে। বলেছে, এই আইনে তাঁকে পলাতক আর্থিক অপরাধী হিসেবে ঘোষণা করুক আদালত।

তখনই চোক্সীর তরফে আইনজীবী সঞ্জয় অ্যাবট বলেন, তাঁর মক্কেল সফর করার মতো সুস্থ নন। তাই তাঁর বিবৃতি ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে রেকর্ড করা যেতে পারে। শুধু তাই নয়, চাইলে ইডি অফিসাররা অ্যান্টিগাতে গিয়ে মেহুলের বয়ান নিতে পারবে বলেও আদালতকে জানিয়েছেন অ্যাবট। 

মেহুলের আইনজীবী অবশ্য একই সঙ্গে অপেক্ষা করার পরামর্শও দিয়েছেন। তিনি জানান, ইডি-র আধিকারিকরা পারলে তিন মাস অপেক্ষা করুন। যাতে তাঁর মক্কেলের শারীরিক পরিস্থিতির কিছুটা উন্নতি হয় এবং তিনি দেশে ফিরে এসে আদালতের সামনে হাজির হতে পারেন। গত মাসে খারাপ স্বাস্থ্যের কারণ দেখিয়ে তাঁকে পলাতক আর্থিক অপরাধী ঘোষণার মামলাটি খারিজের আবেদন জানিয়েছিলেন চোক্সী। বলেছিলেন, তাঁর যা অবস্থা তাতে ৪১ ঘণ্টার উড়ান সফর করে ভারতে আসতে পারবেন না তিনি।