Advertisement
০৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৩
Nirmala Sitharaman

মাদক রুখতে ‘বড় মাছ’ ধরতে হবে, বার্তা নির্মলার

মাদকের সঙ্গে সোনা পাচার থামাতেও রাজস্ব গোয়েন্দাদের সক্রিয় হতে বলেছেন অর্থমন্ত্রী। তিনি জানান, প্রত্যেক বছর ৮০০ কেজি করে সোনা ধরা পড়ছে।

কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন।

কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন। ছবি: পিটিআই

নিজস্ব সংবাদদাতা
নয়াদিল্লি শেষ আপডেট: ০৬ ডিসেম্বর ২০২২ ০৬:২৬
Share: Save:

গুজরাতের মুন্দ্রা বন্দরে একের পর এক অভিযানে হাজার হাজার কোটি টাকার মাদক আটক হয়েছে। সেই প্রসঙ্গে আজ কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন বললেন, মাদক চোরাচালানের ‘বড় মাছেদের’ জালে তুলতে হবে। আজ রাজস্ব গোয়েন্দা দফতরের অনুষ্ঠানে অর্থমন্ত্রী গোয়েন্দা কর্তাদের বলেছেন, ‘‘বিরাট পরিমাণে কোকেন আসছে দেশে। আমার প্রশ্ন, এর অর্থ কি ভারতের মধ্যে দিয়ে এখন আর চোরাচালান হচ্ছে না? ভারতেই কোকেন সেবন বেড়েছে?’’

Advertisement

গত দু’বছরে গুজরাতের বন্দর ও উপকূলে কোটি কোটি টাকা মূল্যের কয়েক হাজার কেজি মাদক আটক হয়েছে। অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘‘মাদক পাচারকারী, যারা বিক্রি করছে, তাদের ধরছেন। কিন্তু পর্দার পিছনে থাকা বড় মাছদের ধরতে পারছেন কি?’’

মাদকের সঙ্গে সোনা পাচার থামাতেও রাজস্ব গোয়েন্দাদের সক্রিয় হতে বলেছেন অর্থমন্ত্রী। তিনি জানান, প্রত্যেক বছর ৮০০ কেজি করে সোনা ধরা পড়ছে। সাধারণত বলা হয়, আমদানি শুল্ক বাড়লে সোনা পাচার বাড়ে। কিন্তু এই দুইয়ের মধ্যে আদৌ সম্পর্ক রয়েছে কি না, নাকি সোনা পাচার নিজস্ব নিয়মে চলছে, তা দেখা দরকার। রাজস্ব গোয়েন্দা দফতরের রিপোর্ট অনুযায়ী, ২০২১-২২ অর্থবর্ষে ৪০৫ কোটি টাকার মোট ৮৩৩ কেজি সোনা আটক করা হয়েছে। পশ্চিম এশিয়া থেকে এখন সোনা আসছে মায়ানমার থেকে, মণিপুর দিয়ে। কোভিড-লকডাউনের সময় আর্থিক কর্মকাণ্ড, বিমান বন্ধ থাকলেও সোনা পাচার বেড়েছে।

Advertisement
(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.