নোট না-গুনেও রান্নার গ্যাস সিলিন্ডার কেনার সুযোগ আনছে ইন্ডেন, এইচপি গ্যাসের মতো সংস্থা। তবে বহাল থাকবে এখনকার মতো নগদে দাম মেটানোর ব্যবস্থাও।

সঠিক গ্রাহকের বদলে সিলিন্ডার অন্য কারও হাতে যাচ্ছে কি না, তা নিয়ে নজরদারি চালাতে এলপিজি সংস্থাগুলি নোট বাতিলের আগেই কলকাতায় কিছু পরীক্ষামূলক ব্যবস্থা চালু করেছিল। মূলত তার ভিত্তিতেই আনা হচ্ছে বিনা নগদে সিলিন্ডার কেনার এই সুবিধা। এ জন্য ডেলিভারি বয়ের কাছে থাকবে কার্ড ঘষে দাম নেওয়ার যন্ত্র (এমপিওএস)। দাম মেটানো যাবে সেখানেই।

মাস তিনেক আগে কলকাতায় পাঁচ ডিলারকে নিয়ে সিলিন্ডারে নজরদারির পাইলট প্রকল্পটি শুরু করে ইন্ডেন। যা স্টেট ব্যাঙ্কের একটি অ্যাপ ভিত্তিক। সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে, সেই প্রক্রিয়ায় সিলিন্ডার বুকিংয়ের পরে ক্যাশমেমো তৈরি হলে গ্রাহকের মোবাইল ফোনে একটি ওটিপি (ওয়ান টাইম পাসওয়ার্ড) পাঠাচ্ছে সংস্থা। ডেলিভারি বয় সিলিন্ডার দিতে গেলে, তাঁর স্মার্ট ফোনের অ্যাপে দিতে হচ্ছে সেই ওটিপি। তার পরে লেনদেনটি সম্পূর্ণ হচ্ছে এবং প্রাপকের জায়গার ভৌগোলিক অবস্থান তৎক্ষণাৎ ডিলার ও সংস্থার কাছে পৌঁছে যাচ্ছে। এই ব্যবস্থাটির উপর ভিত্তি করে ইতিমধ্যেই ওই পাঁচ ডিলার নগদ ছাড়া রান্নার গ্যাস কেনার সুযোগ দিচ্ছেন তাঁদের গ্রাহকদের। এই প্রকল্প সফল হলে গোটা রাজ্যেই তা চালুর পথে হাঁটতে চায় ইন্ডিয়ান অয়েল।

ইন্ডেন সূত্রে খবর, এ জন্য ডেলিভারি বয়ের কাছে থাকছে স্টেট ব্যাঙ্কের এমপিওএস। ওই পাঁচ ডিলারের অন্যতম ও ইন্ডেন এলপিজি ডিস্ট্রিবিউটর্স অ্যাসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট বিজনবিহারী বিশ্বাস জানান, তিনি ৫০ জনেরও বেশি ডেলিভারি বয়কে স্মার্ট ফোন দিয়েছেন।

এইচপি গ্যাসের দাবি, তারা সিলিন্ডার জোগানে নজরদারির ব্যবস্থাটি মাস ছয়েক আগেই কলকাতায় চালু করেছে। ওটিপি নির্ভর ব্যবস্থা ছাড়াও তারা এনেছে ‘ইজি গ্যাস কার্ড’ পরিষেবা। কার্ডটিতে গ্রাহকদের তথ্য ভরা থাকে। সিলিন্ডার কেনার সময় ডেলিভারি বয় এমপিওএস যন্ত্রে সেটিকে ঘষলে সেখানকার অবস্থান সংস্থার কাছে পৌঁছয়। এ বার গ্রাহক চাইলে এমপিওএস-এ ক্রেডিট বা ডেবিট কার্ড ব্যবহার করে গ্যাসের দামও দিতে পারবেন। গ্রামীণ এলাকা ছাড়া সংস্থার প্রায় ১০০ জন ডিলারের (যেখানে আইভিআরএস-এর সুবিধা আছে) কাছে এই পরিষেবা মিলবে।

ক’দিন আগে এইচপি আরও একটি পরিষেবা এনেছে। গ্যাস বুকিংয়ের পরে ক্যাশমেমো তৈরি হলে গ্রাহককে এসএমএসে একটি লিঙ্ক পাঠাচ্ছে তারা। সেটি খুলে নেট-ব্যাঙ্কিং, ক্রেডিট বা ডেবিট কার্ডেও দাম মেটানো যায়।

ভারত গ্যাসের এক কর্তা জানান, দু’তিন মাসের মধ্যে তাঁদের নিজস্ব মোবাইল-অ্যাপ দিয়েও নগদ ছাড়া সিলিন্ডার কেনা যাবে। সংস্থা এ মাসেই ডিলারদের এমপিওএস যন্ত্র দেবে।

এ ছাড়া, ইন্ডেন ও ভারত গ্যাস গ্রাহকদের সুবিধার জন্য তাদের ডিলারদের অন্তত একটি মোবাইল-ওয়ালেট অ্যাকাউন্টও খুলতে বলেছে। সে ক্ষেত্রে ডেলিভারি বয়ের কাছে সংশ্লিষ্ট ডিলারের ‘কিউ আর কোড’ থাকবে। গ্রাহকেরা তা নিজেদের ফোনে স্ক্যান করে গ্যাস সিলিন্ডারের দাম মেটানোর সুযোগ পাবেন।