দেশের সবচেয়ে বড় বিস্কুট নির্মাতা সংস্থা ‘পার্লে প্রোডাক্টস প্রাইভেট লিমিটেড’-এর অন্তত ১০ হাজার কর্মী ছাঁটাই হতে পারেন। ব্যাপক ভাবে কাটছাঁট করা হতে পারে ৯০ বছরের সংস্থার দু’টি অত্যন্ত পরিচিত ব্র্যান্ড ‘পার্লে-জি’ ও ‘মারি’ বিস্কুটের উৎপাদনও। সংস্থার কর্মী সংখ্যা এখন এক লক্ষ।

মুম্বই থেকে সংবাদ সংস্থাকে বুধবার এ কথা জানিয়েছেন পার্লের ক্যাটেগরি হেড মায়াঙ্ক শাহ। তিনি জানিয়েছেন, দেশের আর্থিক বৃদ্ধির গতি শ্লথ হয়ে পড়া, জিএসটির চাপ আর গ্রামাঞ্চলে ওই দু’টি ব্র্যান্ডের বিস্কুটের চাহিদা অনেকটা কমে যাওয়ায় উৎপাদন কমানো ও সংস্থার আট থেকে দশ হাজার কর্মীকে ছাঁটাই করা ছাড়া পার্লের সামনে আপাতত আর কোনও রাস্তা খোলা নেই।

শুধুই পার্লের মতো দেশের এক নম্বর বিস্কুট নির্মাতা সংস্থা নয়, দেশের আর্থিক বৃদ্ধির গতি শ্লথ হয়ে পড়া আর মোদী সরকারের চাপানো জিএসটি-র ধকল সইতে হচ্ছে বিভিন্ন শিল্পক্ষেত্রকে। যার জেরে উৎপাদনে ব্যাপক কাটছাঁট হচ্ছে গাড়ি থে‌কে শুরু করে বস্ত্র শিল্প, সর্বত্রই।

আরও পড়ুন- রিয়েলমি নিয়ে এল নয়া দুই ফোন, থাকছে আকর্ষণীয় সব ফিচার​

আরও পড়ুন- ভর্তুকির দেখা নেই, তায় আবার বাড়তি!​

কর্মী-ছাঁটাই রুখতে সরকারি পদক্ষেপ অত্যন্ত জরুরি বলে জানিয়েছেন মায়াঙ্ক। তাঁর কথায়, ‘‘পারলে, সরকারই বাঁচাতে পারে। জরুরি পদক্ষেপ করতে পারে। তা হলে হয়তো সংস্থার এত কর্মীকে ছাঁটাই হতে হবে না।’’

মায়াঙ্ক জানিয়েছেন, মোদী সরকারের চাপানো জিএসটি-র বোঝা এতটাই দুর্বিষহ হয়ে উঠেছে যে, পার্লে-জি বিস্কুটের দাম আর ধরাছোঁয়ায় মধ্যে বেঁধে রাখা যাচ্ছে না। তার ফলে, প্যাকেটে আগের চেয়ে সংখ্যায় কম বিস্কুট দিতে হচ্ছে।