ফের সুদ কমাল রিজার্ভ ব্যাঙ্ক। ভোটের আগে এ নিয়ে টানা দু’বার। কিন্তু প্রশ্ন উঠছে, তাতে কি বাড়ি, গাড়ি ঋণের সুদে কিছুটা স্বস্তি পাবেন গ্রাহকেরা? মাসিক কিস্তির বোঝা কি কিছুটা কমবে? নাকি এর সুবিধা সে ভাবে তাঁদের কাছে পৌঁছবেই না?

বহু দিন ধরেই গ্রাহকদের অভিযোগ, রিজার্ভ ব্যাঙ্ক রেপো রেট বাড়ালে দ্রুত সুদ বাড়ায় ব্যাঙ্কগুলি। কিন্তু তা যখন কমে, তখন সেই তৎপরতা দেখা যায় না। এর আগে শীর্ষ ব্যাঙ্কও একই কথা বলেছিল। যে কারণে বৃহস্পতিবার রিজার্ভ ব্যাঙ্ক গভর্নর শক্তিকান্ত দাস ফের কম সুদের সুবিধা গ্রাহকের কাছে পৌঁছনোর কথা বলেন। তবে অনেকেরই প্রশ্ন, এই বিষয়টি নিশ্চিত করতে ডিসেম্বরের ঋণনীতিতে বাড়ি, গাড়ি ঋণের সুদ স্থির করার নতুন মাপকাঠির কথা বলেছিল শীর্ষ ব্যাঙ্ক। এ দিন সেই সিদ্ধান্ত কার্যকর করার থেকে কেন পিছিয়ে এল তারা? শক্তিকান্তের যদিও দাবি, প্রযুক্তিগত সমস্যা ও সংশ্লিষ্ট সব পক্ষের সঙ্গে আলোচনার জন্যই এই সিদ্ধান্ত।

চাহিদা বাড়াতে ব্যাঙ্কগুলিকে অবিলম্বে গৃহঋণে সুদ কমানোর আর্জি জানিয়েছে আবাসন শিল্পের সংগঠন ক্রেডাই। তবে ঋণনীতিকে স্বাগত জানিয়েও সুদ নিয়ে আশার কথা শোনায়নি বেশির ভাগ ব্যাঙ্ক। বেশ কিছু ব্যাঙ্ক কর্তা বলেছেন, সুদ কমবে কি না, ব্যাঙ্কের অ্যাসেট লায়বিলিটি কমিটি তার সিদ্ধান্ত নেবে। স্টেট ব্যাঙ্কের বেঙ্গল সার্কেলের কর্তা আর কে মিশ্র অবশ্য বলেন, রেপো রেট কমায় ঋণে সুদ কমার সম্ভাবনা বেড়েছে। কিন্তু তা হলে, সুদ কমবে জমায়ও।

এক ঝলকে

  • রেপো রেট ২৫ বেসিস পয়েন্ট কমে ৬%। রিভার্স রেপো কমে ৫.৭৫%।
  • গত অর্থবর্ষের চতুর্থ ত্রৈমাসিকে সম্ভাব্য মূল্যবৃদ্ধি ২.৪%। ২০১৯-২০ সালের প্রথমার্ধে ২.৯%-৩%।
  • চলতি অর্থবর্ষে বৃদ্ধির পূর্বাভাস ছাঁটাই। ৭.৪% থেকে কমে ৭.২%।
  • ব্যাঙ্কগুলি যাতে বেশি ঋণ দিতে পারে, সে জন্য লিকুইটিডি কভারেজ রেশিও-র নিয়মে বদল। 

আরও কী কী

  • শীর্ষ ব্যাঙ্কের সুদ কমানোর সিদ্ধান্ত যাতে ব্যাঙ্কগুলিও কার্যকর করে, তা নিশ্চিত করতে আলাদা ব্যবস্থা চালুর কথা ছিল ১ এপ্রিল থেকে। তা পিছোল।
  • এনবিএফসি গ্রাহকের অভিযোগ শুনতে অম্বুডসমান তৈরি হয়েছে আগেই। এ বার তার আওতায় আসবে টাকা জমা নেয় না (তহবিল ১০০ কোটির বেশি) এমন এনবিএফসিও।
  • লেনদেনে গ্রাহকের অভিযোগ সামলাতে 
  • সময় বেঁধে কাজ করার নতুন ব্যবস্থা।
  •  অর্থনীতিতে নগদ জোগানের ব্যবস্থা করতে পদক্ষেপ বজায় রাখা।

দিল্লি দখলের লড়াই, লোকসভা নির্বাচন ২০১৯

ইউনাইটেড ব্যাঙ্কের প্রাক্তন সিএমডি ভাস্কর সেনের যুক্তি, ‘‘রেপো রেট বাড়লে তহবিল সংগ্রহের খরচ বাড়ে। ফলে সুদ বাড়াতে বাধ্য হয় ব্যাঙ্ক। কিন্তু সেই খরচ শুধু রেপোর উপরে নির্ভর করে না। ফলে তা কমলে বহু ক্ষেত্রে তহবিলের খরচ কমে না।’’ তাই ব্যাঙ্কগুলি কী করে, তা-ই এখন দেখার।