দীর্ঘ দিন ধরেই দেশের বাণিজ্যিক ব্যাঙ্কগুলির রক্তচাপ বাড়াচ্ছে তাদের ঘাড়ে চেপে থাকা অনুৎপাদক সম্পদের বোঝা। এ বার তথ্যের অধিকার আইনে ওঠা প্রশ্নের জবাবে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক জানিয়েছে গত মার্চের হিসেব অনুযায়ী, শুধু স্টেট ব্যাঙ্কই ২২০ জন ঋণ খেলাপীর মোট ৭৬,০০০ কোটি টাকা অনাদায়ি ঋণ হিসেবের খাতা থেকে মুছে ফেলেছে। যাঁদের প্রত্যেকের ধার ছিল ১০০ কোটি টাকার বেশি। ধারের অঙ্ক ৫০০ কোটি বা তার বেশি, এমন ক্ষেত্রে অনাদায়ি ঘোষণা করেছে ৩৩ জন খেলাপীর ঋণ। যার মোট মূল্য ৩৭,৭০০ কোটি।

তথ্যের অধিকার আইনে ওঠা প্রশ্নের প্রেক্ষিতে এক সংবাদ মাধ্যমকে গত মার্চ পর্যন্ত ১০০ কোটি ও ৫০০ কোটি টাকার বেশি ঋণের ক্ষেত্রে প্রতিটি ব্যাঙ্কের হিসেবের খাতা থেকে মুছে দেওয়া অনাদায়ি ঋণের অঙ্ক জানিয়েছে আরবিআই। তাতে দেখা গিয়েছে ১০০ কোটির ক্ষেত্রে মোট ২.৭৫ লক্ষ কোটি টাকা অনাদায়ি ঋণ হিসেবের খাতা থেকে মুছে দিতে হয়েছে বাণিজ্যিক ব্যাঙ্কগুলিকে। যেখানে খেলাপীর সংখ্যা ৯৮০। এই অ্যাকাউন্টগুলির এক পঞ্চমাংশের বেশি স্টেট ব্যাঙ্কের। ৫০০ কোটি বা তার বেশি ধারের ক্ষেত্রে অনুৎপাদক সম্পদ হিসেবে ঘোষিত হয়েছে মোট ৬৭,৬০০ কোটি টাকা। খেলাপী অ্যাকাউন্ট মোট ৭১টি।