মাঝখানে ২৪ ঘণ্টার বিরতি। বুধবার ফের পতনের মুখ দেখল ভারতীয় শেয়ার বাজার। এ দিন সেনসেক্স পড়ল ২০৩.৬৫ পয়েন্ট। বাজার বন্ধের সময়ে ৩৭,১১৪.৮৮ অঙ্কে ছিল ওই সূচক। নিফ্‌টি ৬৫.০৫ পয়েন্ট হারিয়ে বন্ধ হয়েছে ১১,১৫৭ অঙ্কে। বাজার বিশেষজ্ঞদের মতে, নির্বাচনের ফল সংক্রান্ত অনিশ্চয়তা তো ছিলই। তার সঙ্গে নতুন করে যোগ হয়েছে শুল্ক যুদ্ধ সংক্রান্ত উদ্বেগ। উল্লেখ্য, টানা ন’দিন ১,৯৪০.৭৩ পয়েন্ট পড়ার পরে মঙ্গলবারই সেনসেক্স মাথা তুলেছিল। সূচক বেড়েছিল ২২৭.৭১ পয়েন্ট। 

এ দিন অবশ্য ডলারের নিরিখে টাকার দাম বেড়েছে। যার সুবাদে ১ ডলারের দাম ১০ পয়সা কমে হয়েছে ৭০.৩৪ টাকা। 

বাজার বিশেষজ্ঞদের মতে, একটা সময় পর্যন্ত মূলত বিদেশি লগ্নিকারী সংস্থাগুলির বিনিয়োগের উপরে ভর করেই উঠছিল সূচক। কিন্তু সম্প্রতি বাজার থেকে লগ্নি সরাতে শুরু করেছে তারা। এ দিনও যার ব্যতিক্রম হয়নি। ওই সব সংস্থা এ দিন ১,১৪২.৪৪ কোটি টাকার শেয়ার বিক্রি করেছে। গত দু’দিনে তারা ভারতের বাজার থেকে তুলে নিল ৩,১৫৪.২৯ কোটি টাকা। বাজার সূত্রের খবর, কেন্দ্রে স্থায়ী সরকার গঠিত হবে— এই আশাতেই নির্বাচনের আগে থেকে বিদেশি লগ্নিকারী সংস্থাগুলি ভারতের বাজারে টানা বিনিয়োগ করেছিল। কিন্তু সেই সম্ভাবনাতেই কিছুটা অনিশ্চয়তা তৈরি হয়েছে। সেটিই লগ্নি তুলে নেওয়ার প্রধান কারণ। তবে বাজারের বড় পতন রুখে দিয়েছে ভারতীয় আর্থিক সংস্থাগুলি। তারা ও মিউচুয়াল ফান্ড গত দু’দিনে শেয়ার কিনেছে ২,৯১৪.৬৮ কোটি টাকার। 

তবে আপাতত বাজার চাঙ্গা হওয়ার সম্ভাবনা কম বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। তাঁদের অনেকেরই আশঙ্কা, কেন্দ্রে সরকার গঠন নিয়ে সমস্যা তৈরি হলে দ্রুত নেমে আসতে পারে সূচকের পারা।